আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের চ্যাম্পিয়ন নিউজিল্যান্ড

আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের চ্যাম্পিয়ন নিউজিল্যান্ড
Vinkmag ad

২০১৯ বিশ্বকাপের ফাইনালে লর্ডসে দুঃস্বপ্ন এবার সেই ইংল্যান্ডেই নিউজিল্যান্ড দলের সুখস্মৃতি। আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের চ্যাম্পিয়ন নিউজিল্যান্ড। সাউদাম্পটনে ফাইনালে ভারতকে ৮ উইকেটে হারিয়ে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম শিরোপা জিতল কেন উইলিয়ামসনের দল। টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে প্রথমবার বিশ্বসেরা হয়ে ইতিহাসের পাতায় নাম লেখাল নিউজিল্যান্ড। আর হতাশাই সঙ্গী হল ভিরাট কোহলিদের।

টম লাথাম ও ডেভন কনওয়ের উইকেট দ্রুত হারানোর পর দায়িত্ব নিয়ে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দিলেন দুই উইলিয়ামসন-টেইলর। সহজেই ম্যাচ জিতে নিল কিউইরা। আর তাতেই ২৩ বছর পর আইসিসির কোনও ট্রফি জিতল নিউজিল্যান্ড।

দ্বিতীয় ইনিংসে লজ্জার ব্যাটিং বিপর্যয় ভারতের। মাত্র ১৭০ রানে দ্বিতীয় ইনিংসে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে গুটিয়ে গেল কোহলির দল। ব্যাট হাতে খুবই খারাপ পারফর্ম করলেন অধিনায়ক কোহলি সহ পুরো দল। প্রথমবার ইতিহাসে টেস্ট ক্রিকেটের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হতে নিউজিল্যান্ডের দরকার ১৩৯ রান।

লাথামকে ফিরিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ভারতকে প্রথম সাফল্য এনে দিলেন স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন। ৪১ বলে ৯ রান করেন তিনি। নিউজিল্যান্ড ৩৩ রানে ১ উইকেট হারায়। লাথামের পর কনওয়ের উইকেটও তুলে নিলেন অশ্বিন। ৪৭ বলে ১৯ রান করে সাজঘরে ফেরেন কনওয়ে। নিউজিল্যান্ড ৪৪ রানে ২ উইকেট হারায়।

এরপর কেন উইলিয়ামসন ও রস টেইলর কী দুর্দান্ত এক জুটি গড়লেন। গ্ল্যাডিয়টরের মতো লড়ে গেলেন এ দুই কিউই তারকা। তাঁদের ব্যাটে চড়েই জয়ের বন্দরে পৌঁছায় নিউজিল্যান্ড। উইলিয়ামসন ৫২ ও রস টেইলর ৪৭ রানে অপরাজিত থাকেন।

এর আগে পঞ্চম দিনের শেষে ভারতের স্কোর ছিল ৬৪ রানে ২ উইকেট। বৃষ্টিতে দু’দিনের খেলা ভেস্তে যাওয়ায় ম্যাচ গড়ায় ষষ্ঠ দিনে (রিজার্ভ ডে)। এ দিন খেলতে নেমেই পরপর আউট হয়ে সাজঘরে ফেরত যান ভিরাট কোহলি (১৩) ও চেতেশ্বর পুজারা (১৫) দুজনের উইকেটে নিয়ে ভারতেক বড়সড় ধাক্কা দেন কাইল জেমিসন। বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে দুই ইনিংস মিলিয়ে কোহলির রান মাত্র ৫৭। প্রথম ইনিংসে ৪৪ রান করেছিলেন। দ্বিতীয় ইনিংসে করেছেন ১৩ রান।

এরপর রিশাব পান্ট ও আজিঙ্কা রাহানে কিছুটা লড়াই  করার চেষ্টা করেন। কিন্তু ট্রেন্ট বোল্টের শিকার হয়ে রাহানেকে ফিরতে হয় ১৫ রানে। ১০৯ রানে পঞ্চম উইকেট পড়ে ভারতের।

লাঞ্চের পর রিশাব পান্ট ও রবীন্দ্র জাদেজার জুটিও বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। জাদেজা আউট হন ১৬ রান করে। এক প্রান্তে থেকে নিজের ইনিংস চালিয়ে যান পান্ট। কিন্তু অপর দিক থেকে অব্যাহত থাকে উইকেটের পতন। পান্টও ৪১ রান করে সাজঘরে ফিরে যান। এটিই দ্বিতীয় ইনিংসে ভারতের সর্বোচ্চ সংগ্রহ। শেষ পর্যন্ত ভারতীয় দলের ইনিংস শেষ হয় ১৭০ রানে।

বল হাতে দ্বিতীয় ইনিংসে ৪ উইকেট পেলেন টিম সাউদি। ৩ উইকেট ট্রেন্ট বোল্টের। ২ উইকেট পেয়েছেন কাইল জেমিসন ও একটি নেইল ওয়াগনারের দখলে।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

ভারত ১ম ইনিংসঃ ২১৭/১০ (৯২.১ ওভার) রোহিত ৩৪, শুবমান ২৮, পুজারা ৮, কোহলি ৪৪, রাহানে ৪৯, রিশাব ৪, জাদেজা ১৫, অশ্বিন ২২; ওয়াগনার ১৫-৫-৪০-২, জেমিসন ২২-১২-৩১-৫, বোল্ট ২১.১-৪-৪৭-২, সাউদি ২২-৬-৬৪-১

নিউজিল্যান্ড ১ম ইনিংসঃ ২৪৯/১০ (৯৯.২ ওভার) লাথাম ৩০, কনওয়ে ৫৪, উইলিয়ামসন ৪৯, টেইলর ১১, নিকোলস ৭, ওয়াটলিং ১, গ্র্যান্ডহোম ১৩, জেমিসন ২১, সাউদি ৩০, বোল্ট ৭*; ইশান্ত ২৫-৯-৪৮-৩, শামি ২৬-৮-৭৬-৪, অশ্বিন ১৫-৫-২৮-২, জাদেজা ৭.২-২-২০-১

ভারত ২য় ইনিংসঃ ১৭০/১০ (৭৩ ওভার) রোহিত ৩০, শুবমান ৮, পুজারা ১৫, কোহলি ১৩, রাহানে ১৫, পান্ট ৪১, জাদেজা ১৬, অশ্বিন ৭, শামি ১৩; সাউদি ১৯-৪-৪৮-৪, বোল্ট ১৫-২-৩৯-৩, জেমিসন ২৪-১০-৩০-২, ওয়াগনার ১৫-২-৪৪-১

নিউজিল্যান্ড দ্বিতীয় ইনিংসঃ ১৪০/২ (৪৫.৫ ওভার) লাথাম ৯, কনওয়ে ১৯, উইলিয়ামসন ৫২*, টেইলর ৪৭*; অশ্বিন ১০-৫-১৭-২

ফলাফলঃ নিউজিল্যান্ড ৮ উইকেটে জয়ী

ফাইনাল সেরাঃ কাইল জেমিসন (নিউজিল্যান্ড)।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

না খেলেই যে কারণে ওয়ানডে দল থেকে বাদ পড়লেন সৌম্য

Read Next

আরও এক জয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে আবাহনী

Total
1
Share