সাকিব বিহীন মোহামেডানকে পাত্তাই দেয়নি আবাহনী

সাকিব বিহীন মোহামেডানকে পাত্তাই দেয়নি আবাহনী
Vinkmag ad

রাউন্ড রবিন পর্বে আবাহনী-মোহামেডান ম্যাচে মাঠের ক্রিকেটের চাইতে বেশি উত্তাপ ছড়িয়েছিল সাকিব আল হাসানের স্টাম্প কান্ড। যে ম্যাচে ৫ বছর পর আবাহনীকে সহজেই হারিয়েছিল মোহামেডান। তবে সুপার লিগে এসেই বদলে গেল চিত্র, দাপট দেখিয়ে মোহামেডানকে হারিয়েছে আবাহনী। ব্যাটে-বলে মোহামেডানকে পাত্তাই দেয়নি ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।

৩ ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা শেষে নিয়মিত অধিনায়ক সাকিব রাউন্ড রবিন পর্বের শেষ ম্যাচ খেললেও সুপার লিগ থেকে নিয়েছেন ছুটি। ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে পরিবারের সাথে সময়ও কাটাচ্ছেন।

সাকিবের পরিবর্তে শুভাগত হোমকে অধিনায়ক করে মোহামেডান। সুপার লিগের প্রথম ম্যাচে আজ (২০ জুন) টস জিতে ব্যাটিংয়ে পাঠায় আবাহনীকে। মুশফিকুর রহিমের ফিফটির সাথে মুনিম শাহরিয়ার, নাজমুল হোসেন শান্ত, নাইম শেখদের কার্যকরী ইনিংসে ৭ উইকেটে ১৯৩ রানের সংগ্রহ পায় আবাহনী। জবাবে শুরু থেকেই খাদের কিনারায় মোহামেডান, খেই হারিয়ে শেষ পর্যন্ত হেরেছে ৬০ রানের বিশাল ব্যবধানে।

বল হাতে ৫০ রান খরচ করা আবু হায়দার রনি ব্যাট হাতে ফিফটি হাঁকিয়ে কেবল হারের ব্যবধানই কমিয়েছেন। এই জয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠে গেল আবাহনী।

বড় লক্ষ্য তাড়ায় নেমে মোহামেডান দিশেহারা শুরু থেকেই। ইনিংসের প্রথম ওভারেই ওপেনার অভিষেক মিত্র (০) ও তিন নম্বরে নামা শামসুর রহমান শুভকে (০) ফেরান মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। স্কোরবোর্ডে কোনো রান তোলার আগে ২ উইকেট হারানো মোহামেডানকে আশা দেখান ইরফান শুক্কুর। দুইবার জীবন (০ ও ১ রানে) পেয়েও ১৮ বলে ২৭ রানের বেশি করতে পারেননি।

মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের করা ৬ষ্ঠ ওভারে শুক্কুর ফিরেছেন রান তোলায় তাড়াহুড়ো দেখাতে গিয়ে। বোল্ড হওয়ার আগেই ঐ ওভারে হাঁকান একটি করে চার, ছক্কা। একই ওভারে নতুন ব্যাটসম্যান নাদিফ চৌধুরী খালি হাতে ফেরেন মোসাদ্দেককে ফিরতি ক্যাচ দিয়ে।

আরাফাত সানির করা ৭ম ওভারে উইকেট পড়েছে আরও দুইটি। রান আউটে কাটা পড়েছেন আব্দুল মজিদ (১০ বলে ১০)। অধিনায়ক শুভাগত হোম ফেরেন মুনিম শাহরিয়ারের হাতে ক্যাচ দিয়ে। ৪২ রানে ৬ উইকেট হারায় মোহামেডান।

সেখান থেকে ৭৮ রানের জুটিতে কেবল হারের ব্যবধান কমিয়েছে আবু হায়দার রনি ও মাহমুদুল হাসান লিমন। শেষ পর্যন্ত ৭ উইকেটে ১৩৩ রানে থামে মোহামেডান। আবু হায়দার ৪২ বলে ৫ চার ২ ছক্কায় খেলেছেন ক্যারিয়ার সেরা ৫৩ রানের অপরাজিত ইনিংস। আউট হওয়ার আগে ৩৬ বলে ৩৭ রান করেন লিমন। আবাহনীর হয়ে সর্বোচ্চ দুইটি করে উইকেট সাইফউদ্দিন ও মোসাদ্দেকের।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক আবাহনীর ওপেনার মুনিম শাহরিয়ার। টুর্নামেন্টে নিজের আক্রমণাত্মক ব্যাটিং ধরে রেখে আবু হায়দার রনিকে প্রথম ওভারেই হাঁকান তিন চার। ৩.১ ওভার স্থায়ী উদ্বোধনী জুটিতে যোগ হয় ২৮ রান। কব্জির চোট কাটিয়ে টুর্নামেন্টে প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমে ৪ রানের বেশি করতে পারেননি লিটন দাস। তাকে ফেরান ম্যাচে দারুণ বোলিং করা মোহামেডানের বাঁহাতি পেসার রুয়েল মিয়া।

লিটন ফিরলেও মুনিম শাহরিয়ার ছিলেন সাবলীল। নিজের জোনে বল পেলে পাঠিয়েছেন বাউন্ডারির বাইরে। নাজমুল হোসেন শান্তকে নিয়ে যোগ করেন ৪০ রান। যেখানে শান্তও রান তুলেছেন দ্রুত গতিতে। ৬ষ্ঠ ওভারে মোহামেডান অধিনায়ক শুভাগত হোমকে ডিপ ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্ট দিয়ে হাঁকান টানা দুই ছক্কা। ৬ ওভারে আবাহনীর স্কোরবোর্ডে ১ উইকেটে ৫০ রান।

আবু জায়েদ রাহির বলে ১৭ বলে ৩ ছক্কায় ২৭ রান করে শান্ত ফিরেছেন উইকেটের পেছনে ইরফান শুক্কুরকে ক্যাচ দিয়ে। ৯ রানের ব্যবধানে রুয়েল মিয়ার দ্বিতীয় শিকার হয়ে সাজঘরের পথ ধরেন মুনিম শাহরিয়ারও। ইয়র্কার লেংথের বলে বোল্ড হওয়ার আগে তার নামের পাশে ২৭ বলে ৫ চার ২ ছক্কায় ৪৩ রান।

প্রথম ১০ ওভারে ৩ উইকেটে ৭৯ রান তোলা আবাহনী শেষ ১০ ওভারে তোলে ১১৪ রান। যেখানে নেতৃত্ব দেন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম নিজেই, হাঁকিয়েছেন লিগে নিজের দ্বিতীয় ফিফটি। নাইম শেখকে নিয়ে চতুর্থ উইকেট জুটিতে তোলেন ৫৫ রান। ১৮ বলে ২৪ রান করে নাইম ফিরেছেন স্পিনার আসিফ হাসানের বলে স্টাম্পিং হয়ে।

তবে ২৮ বলে ফিফটি ছুঁয়ে মুশফিক অপরাজিত ছিলেন ৩২ বলে ৮ চার ১ ছক্কায় ৫৭ রানে। শেষদিকে আসিফ ফেরান মোসাদ্দেক হোসেন ও (৭ বলে ১৪) ও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনকে (১ বলে ০)। শেষ ৫ ওভারে ৬১ রান তুলে আবাহনী পায় টুর্নামেন্টে সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ ১৯৩। এর আগের সর্বোচ্চ ১৮৩ (প্রাইম ব্যাংক ও শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাবের বিপক্ষে) রানও তাদেরই ছিল।

রুয়েল মিয়া স্বীকৃত টি-টোয়েন্টিতে নিজের ক্যারিয়ার সেরা বোলিং করেন। ৪ ওভারে ১৯ রান খরচায় নেন ৩ উইকেট। আসিফ হাসান ৩ উইকেট নিলেও খরচ করেছেন ৪৭ রান। সবচেয়ে খরুচে আবু হায়দার রনি, ৪ ওভারে দেন ৫০ রান।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে যাচ্ছে পাকিস্তান নারী ও ‘এ’ দল

Read Next

জেমিসনের দাপুটে বোলিংয়ের পর ব্যাটেও নিউজিল্যান্ডের দারুণ শুরু, তবে…

Total
11
Share