প্রাইম দোলেশ্বরের কাছে আবাহনীর অসহায় আত্মসমর্পণ

প্রাইম দোলেশ্বরের কাছে আবাহনীর অসহায় আত্মসমর্পণ

দুই দলেরই সুপার লিগ নিশ্চিত হয়েছে আগে, তবে মুখোমুখি লড়াইয়ে জয়ের ফলে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে যাওয়ার সুযোগ তৈরি হত। যেখানে আবাহনী লিমিটেডকে ২৮ রানে হারিয়ে সে স্বপ্ন টিকিয়ে রাখলো প্রাইম দ্বোলেশ্বর।

সমান ১০ ম্যাচ খেলে দুই নম্বরে থাকা প্রাইম দ্বোলেশ্বরের পয়েন্ট ১৫, আবাহনীর ১৪। যেখানে শীর্ষে থাকা প্রাইম ব্যাংকের সমান ম্যাচে পয়েন্ট ১৬।

মিরপুরে আগে ব্যাট করে সাইফ হাসানের ফিফটিতে ভর করে ৯ উইকেটে ১৩২ রানের সংগ্রহ প্রাইম দ্বোলেশ্বরের। জবাবে ভুলে যাওয়ার মত ব্যাটিং প্রদর্শনীতে আবাহনীর মত শক্তিশালী ব্যাটিং লাইন আপ গুটিয়ে গেছে ১০৪ রানে।

লক্ষ্য তাড়ায় নেমে আবাহনী যেন এদিন মুখ থুবড়ে পড়েছে প্রাইম দোলেশ্বরের বিপক্ষে। আগের দুই ম্যাচে ঝড়ো ফিফটি তুলে নেওয়া মুনিম শাহরিয়ার এদিন ১১ বলে করতে পারেননি ৮ রানের বেশি। সমান রানে থামতে হয় নাজমুল হোসেন শান্তকেও। অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ব্যর্থ হয়েছেন আরেক দফা (৪)।

ওপেনার নাইম শেখ কিছুটা চেষ্টা করলেও ৩১ বলে ২২ রান করে সাইফ হাসানের বলে সাজঘরের পথ ধরেন। তাতে ৫১ রানেই ৪ উইকেট হারায় আবাহনী। শেষদিকে কামরুল ইসলাম রাব্বির তোপে ১০৪ রানেই গুটিয়ে যেতে হয় বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের। মাঝে মোসাদ্দেক হোসেনের ১৪ বলে ১৪ ও আফিফ হোসেনের ১৫ বলে ২৬ রানে আবাহনী একশ পেরোতে পারে।

রাব্বি ১১ রান খরচায় ৪ উইকেট নিয়ে হয়েছেন ম্যাচসেরা। দুইটি শিকার মোহাম্মদ শরিফুল্লাহর। একটি করে নেন এনামুল হক জুনিয়র, শামীম পাটোয়ারী, সাইফ হাসান ও রেজাউর রহমান রাজা।

সাইফ হাসানের ফিফটির পরও বাকিদের ব্যর্থতায় বড় সংগ্রহ পায়নি প্রাইম দোলেশ্বর। ৪ ওভার স্থায়ী উদ্বোধনী জুটিতে ইমরান উজ্জামানকে নিয়ে ৩০ রান তোলেন স্কোরবোর্ডে। যেখানে ১৬ বলে ২৩ রান করে বড় অবদান রেখেছেন ইমরানই। আরাফাত সানির বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়লে ভাঙে জুটি। দ্রুত ফিরে যান ফজলে রাব্বিও (১)।

৪১ রানে ২ উইকেট হারানোর পর মার্শাল আইয়ুবকে নিয়ে ৫৪ রানের জুটি গড়েন সাইফ। ২৩ বলে ২০ রান করে মার্শালকে ফিরেছেন মেহেদী হাসান রানার প্রথম শিকার হয়ে। এরপরই মূলত প্রাইম দোলেশ্বর ইনিংসে বিপর্যয় নামে। যেখানে ফিফটি হাঁকানো সাইফ সহ মিডল অর্ডারের অন্যতম ভরসা শামীম পাটোয়ারীকে (৩) ফিরিয়ে নেতৃত্ব দেন রানাই।

৪৯ বলে ১ চার ৬ ছক্কায় ৫৮ রানের ইনিংস খেলে সাইফ ক্যাচ দেন তানজিম হাসান সাকিবের হাতে। রানার তোপে ২ উইকেটে ৯৫ থেকে ৫ উইকেটে ১১২ রানে পরিণত হয় প্রাইম দোলেশ্বর। পরে তানজিম হাসান সাকিব, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন উইকেট শিকারে যোগ দিলে ৯ উইকেটে ১৩২ রানেই থামতে হয় দ্বোলেশ্বরকে।

৪ ওভারে ২৮ রান খরচায় রানার শিকার তিন উইকেট। ২৬ রান খরচায় সাকিবের শিকার দুইটি। আরাফাত সানি, মোসাদ্দেক হোসেন ও সাইফউদ্দিন নেন একটি করে উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাব ১৩২/৯ (২০), ইমরান ২৩, সাইফ ৫৮, রাব্বি ১, মার্শাল ২০, শামীম ৩, ফরহাদ ৭, শরিফউল্লাহ ৪, কামরুল ৭, রাজা ০*, শফিকুল ০; সাইফউদ্দিন ৪-০-৩৪-১, সাকিব ৪-০-২৬-২, সানি ৪-০-১৬-১, মোসাদ্দেক ২-০-৩-১, রানা ৪-০-২৮-৩

আবাহনী লিমিটেড ১০৪/১০ (১৯.৫), নাইম ২২, মুনিম ৮, শান্ত ৮, মুশফিক ৪, মোসাদ্দেক ১৪, আফিফ ২৬, সাইফউদ্দিন ৩, বিপ্লব ০, সাকিব ৯, রানা ১, সানি ৭*; শরিফউল্লাহ ৪-০-১২-২, এনামুল জুনিয়র ৩-০-২৪-১, শামীম ৩-০-১৫-১, সাইফ ৩-০-২০-১, রাজা ৩-০-১২-১, কামরুল ২.৫-০-১১-৪

ফলাফলঃ প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাব ২৮ রানে জয়ী

ম্যাচসেরাঃ কামরুল ইসলাম রাব্বি (প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাব)।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

জাজাই ঝড়ে হেসেখেলে জিতল পেশোয়ার জালমি

Read Next

‘বাংলাদেশ টাইগার’ এর সাথে যুক্ত থাকবেন জাতীয় দলের অধিনায়করা

Total
1
Share