সুপার ওভারে গড়ানো ম্যাচে জিতল মোহামেডান

সুপার ওভারে গড়ানো ম্যাচে জিতল মোহামেডান

বৃষ্টি বাঁধায় টি-টোয়েন্টি ম্যাচ নেমে আসে ১০ ওভারে। টি-১০ মেজাজে ঝড়ো ব্যাটিং করেছেন মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব ওপেনার আব্দুল মজিদ। দলের অর্ধেকের বেশি রান তার ব্যাটেই। ৩০ বলে ৫৭ রানের ইনিংসের পরও বাকিদের ব্যর্থতায় সংগ্রহটা পায়নি পূর্ণতা। কিন্তু তাদের দেওয়া ৮৯ রানের লক্ষ্য তাড়ায় নেমেও ৮৮ রানে আটকে যায় খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সমিতি।

সুপার ওভারে গড়ানো ম্যাচে শেষ হাসি মজিদের দলেরই। বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (বিকেএসপি) ৪ নম্বর মাঠে পাওয়া আজকের (১৬ জুন) এই জয়ে মোহামেডান ১৩ পয়েন্ট নিয়ে উঠে এলো পয়েন্ট টেবিলের চার নম্বর অবস্থানে।

মোহামেডানের দেওয়া ৮৯ রানের লক্ষ্য তাড়া করা দ্বারপ্রান্তে গিয়েও পারেনি খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সমিতি। ম্যাচ টাই হলে সুপার ওভারে হারতে হয় তাদের।

সুপার ওভারে আগে ব্যাট করে ১ উইকেট হারিয়ে ১৩ রান তোলে খেলাঘর। যা তাড়া করতে নেমে মোহামেডানের বাঁহাতি ব্যাটসম্যান ইরফান শুক্কুর প্রথম বলেই হাঁকান ছক্কা। এরপর শেষ বলে গড়ালেও জয় পেতে কষ্ট করতে হয়নি, মূল ইনিংসে ফিফটি হাঁকানো আব্দুল মজিদ ফিরেছেন ৩ বলে ৬ রান করে। ৩ বলে শুক্কুরের ব্যাট থেকে আসে ৭ রান।

১০ ওভারে ৮৯ রানের লক্ষ্য তাড়ায় নেমে ইনিংসের প্রথম বলেই উইকেট তুলে নেন তাসকিন আহমেদ, ফেরান ওপেনার ইমতিয়াজ হোসেনকে (০)। তবে অধিনায়ক জহরুল ইসলামের ঝড়ো শুরুতে ২ ওভারেই স্কোরবোর্ডে ১ উইকেটে ২৬ রান।

তবে এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারায় দলটি। সাদিকুর রহমানের (২) পর পঞ্চম ওভারে জহরুল ফিরেছেন ১৫ বলে ৩ চার ২ ছক্কায় ২১ রানে। ৩৯ রানে ৩ উইকেট হারানোর পরও মেহেদী হাসান মিরাজ ও মাসুম খান টুটুলের ব্যাটে জয়ের পথেই ছিল খেলাঘর। দুজনের ২৬ রানের জুটি ভাঙে মিরাজ ১৪ রান করে তাসকিনের দ্বিতীয় শিকার হলে। তবে উইকেট নিলেও তাসকিন ইনিংসের ৮ম ওভারে খরচ করেন ১১ রান।

যেখানে ব্যাট হাতে মাসুম খান ছিলেন সাবলীল, শেষ দুই ওভারে জয়ের জন্য প্রয়োজন মাত্র ১৩ রান। মাসুম অপরাজিত ছিলেন ১২ বলে ২৬ রানে। ৯ম ওভারে ৭ রান আসলেও আবু জায়েদ রাহির করা শেষ ওভারে ৬ বলে ৬ রানের সমীকরণই মেলাতে পারেনি খেলাঘর। উল্টো এক উইকেট হারিয়ে নিতে পারে মাত্র ৫ রান, ম্যাচ টাই। ৫ উইকেটে মোহামেডানের সমান ৮৮ রানে থামায় খেলা গড়ায় সুপার ওভারে।

১৭ বলে ৩৩ রানে অপরাজিত ছিলেন মাসুম খান। সর্বোচ্চ দুইটি করে উইকেট মোহামেডান পেসার তাসকিন আহমেদ ও ইয়ান আরাফাত মিশুর।

মোহামেডান ইনিংসের অর্ধেকের বেশি রান একাই তুলেছেন ওপেনার আব্দুল মজিদ। দলের ইনিংসকে দুই অংশে ভাগ করলে এক পাশে মজিদ অন্য পাশে আউট হওয়া বাকি ৮ ব্যাটসম্যান। তার ৩০ বলে ৫৭ রানের ইনিংসের বিপরীতে দুই অংক ছুঁতে পারেনি অন্য কোন ব্যাটসম্যান। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৮ রান আসে শামসুর রহমানের ব্যাট থেকে।

১০ ওভারে নেমে আসা ম্যাচে প্রথম ৮ ওভারে ৩ উইকেটে ৮৩ রান তোলে মোহামেডান। পরের ১২ বলে হারায় ৬ উইকেট, রান তোলে মাত্র ৫। মোহামেডান ইনিংসে রান আউটই হয়েছে তিনজন ব্যাটসম্যান, খালি হাতে ফিরেছে ৪ ব্যাটসম্যান।

মজিদ ২৭ বলে ফিফটি ছুঁয়ে থেমেছেন ৩০ বলে ৫ চার ৪ ছক্কায় ৫৭ রানে। খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সমিতির হয়ে ৯ রান খরচায় ৪ উইকেট নেন ইফরান হোসেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব ৮৮/৯ (১০), মজিদ ৫৭, ইমন ৭, শুক্কুর ৫, শুভ ৮, শুভাগত ২, নাদিফ ০, মাহমুদুল ০, মিশু ০, তাসকিন ০*, আসিফ ০; ইফরান ২-০-৯-৪, সাদ্দাম ২-০-১৮-১, টিপু ১-০-১৬-১

খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সমিতি ৮৮/৫ (১০), ইমতিয়াজ ০, জহুরুল ২৮, সাদিকুর ২, মিরাজ ১৪, মাসুম ৩৩*, কমল ৪, ফরহাদ ২*; তাসকিন ২-০-২২-২, আসিফ ২-০-১৭-১, শুভাগত ২-০-১০-১, রাহি ২-০-১৪-১

সুপার ওভারে খেলাঘর ১৩/১, মোহামেডান ১৪/১

ফলাফলঃ মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব সুপার ওভারে জয়ী।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

জিতেই চলেছে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব

Read Next

আবারও শেখ জামালের জয়ের নায়ক জিয়া

Total
19
Share