আম্পায়ারিং ইস্যুতে কোন অভিযোগ নেই ক্লাবগুলোর

আম্পায়ারিং ইস্যুতে কোন অভিযোগ নেই ক্লাবগুলোর

দেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে বিতর্কিত আম্পায়ারিংয়ের অভিযোগ বেশ পুরোনো। আম্পায়ারের সিদ্ধান্তে অসন্তোষ প্রকাশ ও অসাদাচরণ করে সাকিব আল হাসানের সেই বিতর্কে ঘি ঢেলেছিলেন। সাকিবের শাস্তি হলেও বিতর্কিত আম্পায়ারিং নিয়ে আলোচনা হচ্ছে বেশ ভালোভাবে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসানের গঠন করে দেওয়া তদন্ত কমিটির রিপোর্ট অনুসারে অবশ্য অভিযোগ তোলেনি কোনো ক্লাবই।

নাজমুল হাসান পাপনের এমন বক্তব্য অনুসারে যে অসন্তোষ নিয়ে সাকিবের এমন আচরণ তিনি নিজেই অভিযোগ করেননি তদন্ত কমিটির কাছে। পাপন জানালেন খেলোয়াড়দের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্যমতে এবারের ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগকে (ডিপিএল) সেরা আয়োজনও বলা হচ্ছে।

আজ (১৫ জুন) বিসিবির বোর্ড সভা শেষে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘ডিপিএলে যে ঘটনাটা ঘটেছে সেটা নিয়ে একটা তদন্ত কমিটি গঠন হয়েছে আপনারা জানেন। সব জায়গাতে একটা অভিযোগ এসেছে যে আম্পায়ারিং। আমরা আম্পায়ারদের নিয়ে অনেকদিন ধরে শুনে আসছি। প্রকৃতপক্ষে ২০১৭ সালের দিকে অনেক অভিযোগ ছিল।’

‘আমি স্বীকার করছি ঐ সময় আমি জাতীয় দল ছাড়া অন্য কিছু নিয়ে জড়িতে ছিলাম না। আমি শুধু জাতীয় দলেই ফোকাস করেছিলাম। যার জন্য এতকিছু শোনার পরও তখন কিছু পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। এরপর ক্যামেরার যে সিস্টেম সেটা বসানোর কথা বলা হয়।’

সাকিব কান্ডের পর বিতর্কিত হওয়া ডিপিএল বন্ধ করে দেওয়ার ইচ্ছে থাকলেও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে আয়োজিত টুর্নামেন্ট বলে সে পথে হাঁটেনি বিসিবি প্রধান। ২০১৭ সাল এর পর কোনো অভিযোগই অবশ্য পাননি বলে জোর দিয়ে জানালেন বিসিবি সভাপতি।

‘এই প্রথম ডিপিএলে… আমরা অভিযোগ পাইনি ঠিক কিন্তু একটা ঘটনা ঘটেছে। শুনে আসছি যে আম্পায়রিং নিয়ে অভিযোগ আছে। কি করার আছে তখন? প্রথম প্রতিক্রিয়া ছিল এবার এটা নিয়ে অভিযোগ আসার পর প্রথমেই বন্ধ করার চিন্তা ছিল। আগে আমি সমস্যা বের করবো। সমস্যা যদি না জানি সমাধান করবো কিভাবে? সুতরাং টুর্নামেন্ট বন্ধ যতদিন সমস্যা সমাধান করতে না পারবো।’

‘আর এটাকে কমিয়ে আনার জন্য পদক্ষেপ না নিতে পারলে খেলার তো মানে হয়না। পরে মনে পড়ে গেল এটা সাধারণ টুর্নামেন্ট না, এটা বঙ্গবন্ধুর নামে টুর্নামেন্ট। এই প্রথম আমরা ডিপিএল উনার নামে করছি। এটা বন্ধ করা ঠিক হবেনা, তাই বন্ধ করিনি কিন্তু চালিয়ে নিচ্ছি।’

‘২০১৭ সালের পর এখনো পর্যন্ত কোন অভিযোগ আমাদের কাছে আসেনি। বাইরের থেকে কি আসছে তার থেকে আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ হল দল কি বলল, খেলোয়াড়েরা কি বলল, অধিনায়ক কি বলল, ম্যানেজার কি বলল, ক্লাব কি বলল। এটা তখন পর্যন্ত আসেনি।’

সাকিব ইস্যু ছাড়াও এখনো পর্যন্ত শেষ হওয়া ডিপিএলের ৯ রাউন্ডে বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নিয়েই তৈরি হয়েছিল বিতর্ক। তবে বিসিবি সভাপতি জানালেন কোনো ক্লাব কিংবা খেলোয়াড় অভিযোগ করেনি তাদের গঠিত তদন্ত কমিটিকে।

নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘এখন পর্যন্ত যে কয়টা ম্যাচ হয়েছে সেগুলোর অধিনায়ক, দলকে ডেকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছে । সেখানে সই করে যে অভিযোগ দেয় সেখানো কেউ কোন অভিযোগ করেনি। এরপর সব গুলো ক্লাবের সঙ্গে কথা বলা হয়েছে। প্রথমে ৮টি পরের দিন ৪টি , ১২টি ক্লাবের সঙ্গে কথা হয়েছে, অধিনায়কের সঙ্গেও কথা হয়েছে।’

‘যেটা হয়েছে যে এখন পর্যন্ত, একটা অধিনায়ক একটা ম্যানেজার বা কেউ আম্পায়ারিং নিয়ে কোন অভিযোগ করেনি ওরা বলেছে (কমিটি)। বিভিন্ন ক্লাবের খেলোয়াড়েরা নাকি এটাও বলেছে যে তাদের দেখা এটা সেরা টুর্নামেন্ট। কিন্তু একটা ব্যাপার শেষ করা তো সহজ না। তাই বাড়তি দায়িত্বে দেয়া হয়েছে। এই কমিটি সামনে সেই কাজ করবে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি এককভাবে আয়োজন করতে চায় বাংলাদেশ

Read Next

মেয়াদ শেষ হলেও টিকে গেলেন নান্নু-বাশাররা

Total
4
Share