বাজে আম্পায়ারিংয়ের সমাধানে দুর্জয়ের ভাষ্য

বাজে আম্পায়ারিংয়ের সমাধানে দুর্জয়ের ভাষ্য

সাকিব আল হাসানের বিতর্কিত কান্ডের পর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন আম্পায়ারিং খতিয়ে দেখতে তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন। কমিটিতে থাকা বিসিবি পরিচালক নাইমুর রহমান দুর্জয় মনে করেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে স্বচ্ছতা আনতে ব্যবহৃত প্রযুক্তি ঘরোয়া ক্রিকেটেও প্রয়োগ করে সমাধান করা যায়।

আবাহনী-মোহামেডান ম্যাচে শুক্রবার দুই দফায় আম্পায়ারের ওপর রাগ ঝেড়ে অসাদাচরণ করেন সাকিব। অমন কান্ডে তাকে পেতে হয়েছে শাস্তিও, ৩ ম্যাচ নিষিদ্ধ হওয়ার পাশাপাশি গুনছেন ৫ লাখ টাকার আর্থিক জরিমানাও।

রোববার বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের বাসভবনে গণমাধ্যমকে সাকিবের শাস্তি জানান ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিস (সিসিডিএম) চেয়ারম্যান কাজী ইনাম। সেখানেই তিনি জানান তাকে সহ পাঁচজনের তদন্ত কমিটি গঠন করে দিয়েছেন বিসিবি সভাপতি।

কমিটিতে থাকা নাইমুর রহমান দুর্জয় রোববার মিরপুরে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে জানালেন ক্রিকেটের উন্নতি কিংবা অবনতিতে আম্পায়ারিং কতটা ভূমিকা রাখে। সে সাথে বিসিবির এই পরিচালক জানালেন দেশের ঘরোয়া ক্রিকেটের আম্পায়ারিং নিয়ে পুরোনো অভিযোগগুলোর সমধান হতে পারে প্রযুক্তি।

তিনি বলেন, ‘আসলে এই জিনিসিগুলো অনেক আগে থেকেই ছিল। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও ছোট দল-বড় দলের বৈষম্য দেখা গেছে। এখন ডিআরএসের কারণে অনেকটা স্বচ্ছতা আছে। তো আমার মনে হয় এখন যদি আমরা ঘরোয়া ক্রিকেটেও এই প্রযুক্তিগুলো যুক্ত করি তবে সমস্যা অনেকটা সমাধানের পথ পাবে।’

‘ক্রিকেটটাকে সামনের দিকে এগোতে হলে অবশ্যই আম্পায়ারিংকে বিবেচনায় নিতে হবে। এটা এমন একটা জায়গা যেখান থেকে ক্রিকেট উন্নতি করতে পারে আবার ক্ষতিও হতে পারে। তাই আমার দিক থেকে একজন সাবেক ক্রিকেটার হিসেবে আমি যতটা পারি, একইসঙ্গে ফেয়ার আম্পায়ারিংয়ের সঙ্গে ভালো মানের আম্পায়ার জড়িত। আম্পায়ারদের মানও যেন ভাল হয় সেদিকটা নজরে রাখতে হবে।’

নিজের খেলোয়াড়ি জীবনেও বাজে আম্পায়ারিংয়ের নজির দেখেছেন ঘরোয়া লিগে বলছেন দুর্জয়। তবে তখন প্রযুক্তির সাহায্য নেওয়া সম্ভব না হলেও এখন সে পথে হাঁটার সুযোগ আছে মনে করেন বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট অধিনায়ক।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘একজন পেশাদার খেলোয়াড় হিসেবে কিন্তু আপনি একটা দলেই খেলেন না। হয়ত কোন কোন ক্ষেত্রে কোন খেলায়াড় এক দলেই খেলে। কিন্তু বাংলাদেশের ঐতিহ্যগত ভাবে একটা দলে খেলে না। একটা সময় ছিল বড় দলগুলি সুবিধা পেত।’

‘আমি ব্যাক্তিগত ভাবে জানি, আমি যখন খেলতাম… তখন আবাহনী, মোহামেডান, বিমান এমন বড় দলের বিপক্ষে আমাদের একজন ব্যাটসম্যানকে দুই-তিনবার আউট দিত। কিন্তু সেই সময়টাতো এখন নাই। এখন প্রযুক্তি আসছে। সেই জিনিসগুলোকে যদি আমরা গ্রহণ করি তবে অনেক কিছু থাকবে না।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

৫ম জয়ে ৫ নম্বরে উঠল শেখ জামাল

Read Next

বাজে আম্পায়ারিং ইস্যুতে সময় নিতে চায় তদন্ত কমিটি

Total
41
Share