সাকিবকে ৪ ম্যাচ নিষিদ্ধ করার সুপারিশ

মেজাজ হারিয়ে আম্পায়ারের ওপর তেড়ে গেলেন সাকিব

শুক্রবার মিরপুরে আবাহনী-মোহামেডান ম্যাচে সাকিব আল হাসানের বিতর্কিত কান্ড এখন আলোচনার শীর্ষে। উত্তেজনা হারিয়ে ম্যাচে আম্পায়ার, প্রতিপক্ষ কোচের সাথে বাজে আচরণ করেন সাকিব। ক্রিকেটীয় আচরণের পরিপন্থী ঘটনা ঘটানো সাকিব যে শাস্তি পাচ্ছেন এটা অনুমিতই ছিল। শাস্তির মাত্রাটা কেমন হবে সেটা নিয়েই চলছিল আলোচনা।

ম্যাচ শেষে গতকাল ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিস (সিসিডিএম) চেয়ারম্যান কাজী ইনাম গণমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন ম্যাচ অফিসিয়ালদের (রেফারি ও আম্পায়ার) দেওয়ার রিপোর্টের ভিত্তিতেই পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের দলীয় সূত্র থেকে ক্রিকেট৯৭ জানতে পেরেছে সুপারিশ এসেছে ম্যাচ অফিসিয়ালদের পক্ষ থেকে। লেভেল ৩ এর কোড অব কন্ডাক্ট ভঙ্গ করা সাকিবকে ৪ ম্যাচ নিষিদ্ধ করার সুপারিশ করা হয়েছে। যদিও এই রিপোর্ট আমলে এনে চূড়ান্ত  ও আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসবে সিসিডিএমের তরফ থেকে।

উল্ললখ্য, ঘটনার সূত্রপাত আবাহনী ইনিংসের ৫ম ওভারে। মোহামেডানের দেওয়া ১৪৬ রানের লক্ষ্য তাড়ায় নেমে ৯ রানে ৩ উইকেট নেই আবাহনীর। ইনিংসের ৫ম ওভারে বল হাতে নিয়ে মুশফিকুর রহিমের বিপক্ষে এলবিডব্লিউউর আবেদন সাকিবের। পরিষ্কার আউট মনে হলেও আম্পায়ার ইমরান পারভেজ নাকচ করে দেন। তাতে অসন্তোষ প্রকাশ করে সাকিব লাথি মেরে ভাঙেন স্টাম্প, বাগ বিতন্ডায় জড়ান আম্পায়ারের সাথে।

পরের ওভারে আরও বড় বিতর্ক, ৬ষ্ঠ ওভারের ৫ম বল শেষে বৃষ্টির সম্ভাবনায় আম্পায়ার খেলা বন্ধের সিদ্ধান্ত নেন। কিন্তু তাতে কোনো কারণে আবারও অসন্তোষ সাকিবের। এবার এক প্রান্তের তিনটি স্টাম্প উপড়ে ফেলেন, আম্পায়ারের সাথে বাগ বিতন্ডা হয় আরেক দফা। আবাহনী কোচ খালেদ মাহমুদ সুজনের সাথে কথা কাটাকাটিও হয়। যদিও পরে সুজনের কাছে ক্ষমা চেয়ে নেন সাকিব, আবাহনী ড্রেসিং রুমে এসে দুঃখ প্রকাশও করে। ক্ষমা চেয়ে নিজের ফেসবুকেও দেন স্ট্যাটাস।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by cricket97 (@cricket97bd)

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

সাকিবের মত ক্রিকেটার দরকার আছে কিনা প্রশ্ন স্থালেকারের

Read Next

তিন ম্যাচ নিষিদ্ধ সাকিব, সঙ্গে আর্থিক জরিমানা

Total
2
Share