মুশফিক-সৈকতের জোড়া ফিফটিতে জয়ে ফিরল আবাহনী

মুশফিক-সৈকতের জোড়া ফিফটিতে জয়ে ফিরল আবাহনী

এক ম্যাচ বিরতি দিয়ে জয়ের ধারায় ফিরল আবাহনী লিমিটেড। মুশফিকুর রহিম ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের জোড়া ফিফটিতে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের বিপক্ষে ৭ উইকেটের সহজ জয় পেল তারা। বৃথা গেল সৌম্য সরকারের ফিফটি।

মিরপুরে মঙ্গলবার টস হেরে ব্যাট করতে নেমে সৌম্য সরকারের ৬৭ রানের ইনিংসের সাথে শেখ মেহেদী হাসানের ৪৩ রানে ভর করে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের সংগ্রহ ৮ উইকেটে ১৫০। বড় সংগ্রহের পথে হেঁটেও মিডল ও লোয়ার মিডল অর্ডারের ব্যর্থতায় বেশি দূর যেতে পারেনি দলটি। জবাবে মুশফিক-সৈকতের শত রানের অবিচ্ছেদ্য জুটিই আবাহনীকে এনে দেয় লিগের চতুর্থ জয়।

আবাহনীর টপ অর্ডারে কেবল নাইম শেখ রানের দেখা পান। তবে এই বাঁহাতি ওপেনার ২৮ রানের ইনিংস খেলার পথে বল খরচ করেন ৩৩ টি। লিটন দাসের অবর্তমানে ইনিংস শুরু করা আরেক ওপেনার মুনিম শাহরিয়ার থেমেছেন ১০ রানে।

নাজমুল হোসেন শান্ত আগের ম্যাচে রান পেলেও এদিন ফিরেছেন ৫ রানে। ৪৮ রানে ৩ উইকেট হারানো আবাহনীকে এরপর আর কোনো বিপদে পড়তে দেননি মুশফিক-সৈকতের অবিচ্ছেদ্য ৫৮ বলে ১০৫ রানের জুটি। বেশ সাবলীল খেলে ১২ বল আগেই ৭ উইকেটের জয় নিশ্চিত করে দুজনে।

স্পিনার সঞ্জিত সাহার করা ১৮তম ওভারের দ্বিতীয় বলে ছক্কা হাঁকিয়ে ফিফটিতে পৌঁছান সৈকত। ২৬ বলে ফিফটি ছুঁয়ে সৈকত অপরাজিত ছিলেন ২৮ বলে ৪ চার ৩ ছক্কায় ৫০ রানে। একই ওভারের শেষ বলে জয় সূচক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ফিফটিতে পৌঁছান মুশফিকও। মুশফিক শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন ৩৫ বলে ৪ চার ১ ছক্কায় ৫৩ রানে।

এর আগে ৯ ওভার স্থায়ী উদ্বোধনী জুটিতে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের দুই ওপেনার সৌম্য সরকার ও শেখ মেহেদী হাসান তুলে ফেলে ৭৮ রান। ৩২ বলে ৭ চার ১ ছক্কায় ৪৩ রান করে আমিনুল ইসলাব বিপ্লবের বলে মেহেদী ফিরলে ভাঙে জুটি।

এরপর রান আউটে কাটা পড়েন মুমিনুল হক (১২)। তবে এক পাশ আগলে রেখে রানের চাকা সচল রাখার কাজটা করেছেন সৌম্য। ১৫তম ওভারের প্রথম বলে শহিদুল ইসলামকে ছক্কা হাঁকিয়ে ৩৬ বলে ছুঁয়েছেন ফিফটি। পরের বলে দারুণ এক শর্টে ডিপ এক্সট্রা কাভার দিয়ে হাঁকান চার।

অন্য প্রান্তে তাকে যোগ্য সঙ্গ দিতে পারেনি ইয়াসির আলি রাব্বি (৯), মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (৫), জাকির হাসান (১)। ৬ রানের ব্যবধানে ৩ উইকেট হারিয়ে ৫ উইকেটে ১৩৫ রানে পরিণত হয় গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স। শেষদিকে খেই হারিয়ে সৌম্যও রান তুলতে পারেননি সেভাবে। ফিফটির পর ১৪ বল খেলে যোগ করেছেন মাত্র ১৫ রান।

শেষ ওভারে সৌম্য সহ উইকেট হারিয়েছে দুইটি। শেষ ৪ ওভারে এসেছে কেবল ২০ রান। আগের ম্যাচেও ফিফটি হাঁকানো সৌম্য থেমেছেন ৫০ বলে ৬ চার ২ ছক্কায় ৬৭ রানে। গাজী গ্রুপ থামে ৮ উইকেটে ১৫০ রানে। সর্বোচ্চ দুইটি করে উইকেট আমিনুল ইসলাম বিপ্লব ও শহিদুল ইসলামের।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স ১৫০/৮ (২০), মেহেদী ৪৩, সৌম্য ৬৭, মুমিনুল ১২, রাব্বি ৯, মাহমুদউল্লাহ ৫, জাকির ১, আরিফুল ৫, আকবর ১*, মুগ্ধ ০; সাইফউদ্দিন ৪-০-২৪-১, সাকিব ৪-০-৩৩-১, শহিদুল ৪-০-৪১-২, বিপ্লব ৪-০-১৯-২

আবাহনী লিমিটেড ১৫৩/৩ (১৮), নাইম ১০, মুনিম ২৮, শান্ত ৫, মুশফিক ৫৩*, মোসাদ্দেক ৫০*; নাসুম ৪-০-৩২-১, মেহেদী ৩-০-১২-১, সঞ্জিত ৪-০-৩২-১

ফলাফলঃ আবাহনী লিমিটেড ৭ উইকেটে জয়ী

ম্যাচসেরাঃ মুশফিকুর রহিম (আবাহনী লিমিটেড)।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

হেরাথের নাম প্রকাশ হওয়ায় বিব্রত বিসিবি

Read Next

রনির ব্যাটে চড়ে প্রাইম ব্যাংকের আরও এক জয়

Total
5
Share