স্পিন কোচ নিয়োগে বিসিবির শর্ট লিস্ট প্রস্তুত

করোনা পজিটিভ হয়ে আইসোলেশনে আকরাম খান

টাইগারদের স্পিন কোচ হিসেবে ড্যানিয়েল ভেট্টোরি যে আর থাকছেন না তা জানা কথাই। ইতোমধ্যে তার অবর্তমানে দেশি কোচ সোহেল ইসলাম দায়িত্ব পালন করেছেন সাম্প্রতিক সময়ে। জিম্বাবুয়ে সিরিজের আগেই নতুন স্পিন কোচ নিয়োগ দিতে চায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বেশ কয়েকজন বিদেশির সংক্ষিপ্ত তালিকাও করা শেষ, যাদের মধ্যে আছেন ভারতীয়, পাকিস্তানি ও শ্রীলঙ্কান। এমনকি ক্রিকেটারদের সুপারিশ আমলে নিয়ে বিসিবি কোচ সোহেল ইসলামকেও তালিকায় রাখা হচ্ছে।

স্পিন কোচের তালিকায় শ্রীলঙ্কান রঙ্গনা হেরাথকে বিবেচনায় রাখার বিষয়টি একটি জাতীয় দৈনিকের প্রতিবেদনে তুলে ধরা হয়। তবে বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান সরাসরি কারও নাম নেননি। সে ক্ষেত্রে দিয়েছেন যুক্তিও।

আজ (৩১ মে) মিরপুরে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘স্পিন কোচ এশিয়া থেকে আসবে তিন জন তার মধ্যে শ্রীলঙ্কান একজন আরেক জন ভারতের আর একজন পাকিস্তানের। আমরা চেষ্টা করছি কথা বলতে এবং হয়তোবা কয়েকদিনের মধ্যে তারা এসে পৌঁছাবে। সেক্ষেত্রে আমরা দুই তিন দিনের মধ্যে সিনিয়র ক্রিকেটারদের পরামর্শটা নিই ওদের কথা বার্তা আমরা নিই কোচিং স্টাফ আছে, হেড কোচ আছে তাদের সঙ্গে আলোচনা করি আমরাও চিন্তা ভাবনা করি।’

‘এটা কোনো কিছু এখনো নিশ্চিত হয় নি। পছন্দ অপছন্দের বিয়যটা প্লেয়ারদের মধ্যে রয়ে গেছে এখনো আমাদের কোনো কিছু নিশ্চিত হয় নি। সত্যি কথা বলতে কি স্পিন কোচের ব্যাপারে আমাদের সোহেলকেও অনেক প্লেয়ার চাচ্ছে। তাই আমরা সবকিছু বিবেচনা করে এই সিদ্ধান্ত নেবো। যেটা সমস্যা সেটা হল আমরা আগে বলে দিলে যারা আগ্রহ দেখায় তাদের সমস্যা হয়। তাদের নিয়ে আগ্রহী অন্য কোন দল আগ্রহ হারিয়ে ফেলে তাই আমাদের বলতে নিষেধ করা হয়েছে।’

ভেট্টোরির সাথে চুক্তিতে যাওয়ার কোনো আগ্রহ না থাকলেও নতুন কাউকে নিয়োগের ক্ষেত্রে লম্বা সময়ের কথাই ভাবছে বিসিবি। তবে ২-৩ সিরিজ থাকবেন পর্যবেক্ষণে।

আকরাম খান বলেন, ‘যে পরিস্থিতি তাতে তাকে (ভেট্টরি) এখন পাওয়া কঠিন। আর এ কারণেই তার ব্যাপারে আমরা আগ্রহ দেখাচ্ছিনা। আমরা বেশিরভাগ লং টার্ম চিন্তা করবো। তার মধ্যে কিছু ব্যাপার আছে। তালিকায় কিছু কোচ আছে যাদের আমরা ২-৩ টা সিরিজের জন্য নিয়ে দেখবো। যদি ভালো করে তবে আমরা কন্টিনিউ করবো।’

বর্তমান ব্যাটিং কোচ জন লুইসের জায়গাতেও নতুন কাউকে নিয়ে ভাবছে বিসিবি। সে তালিকায় টাইগারদের সাবেক প্রধান কোচ জেমি সিডন্সের নাম আছে বলেও শোনা যাচ্ছে। এ ক্ষেত্রেও আকরাম খান সরাসরি নাম বলতে চাননি।

বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান বলেন, ‘আমাদের ব্যাটিং কোচ এখনো জন লুইস আছে ওর ব্যাপারটা অনেকে আগ্রহ দেখাচ্ছে আবার অনেকে আগ্রহ দেখাচ্ছে না। প্রথমে ওর সিদ্ধান্তটা আমরা নেব ওকে আমরা রাখব কি রাখব না। যদি আমরা না রাখি আমাদের দুই তিন জন শর্ট লিস্টেড আছে। এরমধ্যে এক জন আছেন যিনি আগেও বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করেছেন। এটা মনে হয় আরও তিন চার দিন সময় লাগবে এর মধ্যেই আমরা ফাইনাল করে ফেলবো।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

বিকেএসপিতে বৃষ্টিতে পন্ড দুই ম্যাচ

Read Next

জয় দিয়ে শুরু করল শেখ জামাল

Total
14
Share