যেভাবে কর্তন হবে প্রিমিয়ার লিগে মুশফিক, রিয়াদদের পারিশ্রমিক

ডিপিএলের আনুষ্ঠানিকতা শুরু, বায়ো-বাবল পাঁচ তারকা হোটেলে

গত বছর মাত্র এক রাউন্ড মাঠে গড়ানোর পর স্থগিত হয় ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ (ডিপিএল)। প্রায় এক বছরের বেশি সময় পর আগামীকাল (৩১ মে) থেকে ফের চালু হচ্ছে আসরটি। পরিস্থিতি বিবেচনায় গত বছরের একমাত্র রাউন্ড বাদ দিয়ে এবার মাঠে গড়াবে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে। সামগ্রিক দিক বিবেচনায় নিয়ে ক্লাবগুলো খেলোয়ারদের সাথে পারিশ্রমিক ইস্যুতেও সমঝোতা করছে। সে ক্ষেত্রে চুক্তির অর্থ কর্তনের প্রক্রিয়াটাও বাতলে দিয়েছে ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিস (সিসিডিএম)।

সাধারণত খেলোয়াড়দের দলবদল প্লেয়ার বাই চয়েজের মাধ্যমে হলে খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিক ইস্যুতে কোনো সমস্যা হলে সেটি সিসিডিএম দেখে। তবে খেলোয়াড়দের ইচ্ছেতেই গত বছর সরাসরি চুক্তিতে দলবদল হয়েছে। ফলে এ ক্ষেত্রে পারিশ্রমিক ইস্যুতে সিসিডিএমের কিছু করার না থাকলেও নিজেদের জায়গা থেকে ক্লাবগুলোকে পরামর্শ দিয়েছে কিভাবে পারিশ্রমিক কমাবে।

করোনা প্রভাবে একটা সময় স্থগিত হওয়া দেশের অন্যতম জনপ্রিয় এই ঘরোয়া টুর্নামেন্টের ভবিষ্যত অন্ধকারই ছিল। তবে ক্রিকেটাররা পারিশ্রমিক কম নিয়ে হলেও মাঠে খেলা গড়ানোর পক্ষে ছিল। অবশেষে সব বাঁধা পেছনে ফেলে আগামীকাল থেকে শুরু হচ্ছে মর্যাদাপূর্ণ আসরটি। গতবছরের চুক্তি অনুসারে অনেক ক্রিকেটারই পারিশ্রমিক সমঝোতা করতে করবে।

ক্রিকেটারদের খুব বেশি ক্ষতি হোক এমনটা চায়না সিসিডিএম। যে কারণে ক্লাবগুলোকে পরামর্শ দিয়েছে যেন ১০ লাখ টাকার কম পারিশ্রমিক এমন ক্রিকেটারদের কোনো কর্তন না করা হয়। ১০ লাখের বেশি পারিশ্রমিক এমন ক্রিকেটারদের ক্ষেত্রেও কর্তন ২০ শতাংশ যেন না ছাড়ায়।

আজ (৩০ মে) মিরপুরে ডিপিএলের টাইটেল স্পন্সর ঘোষণা অনুষ্ঠানে সিসিডিএম চেয়ারম্যান কাজী ইনাম গণমাধ্যমকে বলেন, ‘এবারের যে টুর্নামেন্ট হচ্ছে, এটা কিন্তু প্লেয়ার্স বাই চয়েজ না। ক্লাব ক্রিকেটারদের সঙ্গে সরাসরি যোগযোগ করে দলে নিয়েছে। তার আগে কিন্তু দুই বছর প্লেয়ার্স বাই চয়েজে টুর্নামেন্ট হয়েছে। যেখানে বিসিবি নিশ্চিত করতো ক্রিকেটাররা কে কোন ক্যাটাগরিতে থাকবে। সেখানে যদি ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক নিয়ে সমস্যা তৈরি হতো তাহলে বিসিবি তা মীমাংসা করতো।’

‘কিন্তু ক্রিকেটারদের আবেদন ছিল তারা সরাসরি ক্লাবের সঙ্গে যুক্ত হতে চায় গত বছর সেটাই হয়েছে। আমরা এবার ক্লাবগুলোকে যে পরামর্শ ও অনুরোধ করেছি তা হল যাদের পারিশ্রমিক ১০ লাখের নিচে তাদের যেন কোনো অর্থ কাটা না হয়। আর যাদের ১০ লাখের ওপরে তাদের যদি কোনো কারণে পারিশ্রমিক কমাতে হয় সেটা যেন ২০ শতাংশের ওপরে না যায়।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

রহস্যজনক চোটে ডিপিএলও শেষ হাসান মাহমুদের

Read Next

রাত পোহালেই শুরু ডিপিএল

Total
3
Share