অধিনায়ক হয়েই মোহামেডানের শিরোপা আক্ষেপ দূর করতে চাইলেন সাকিব

অধিনায়ক হয়েই মোহামেডানের শিরোপা আক্ষেপ দূর করতে চান সাকিব

৩১ মে শুরু হতে যাওয়া ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে (ডিপিএল) সাকিব আল হাসান খেলবেন ঐতিহ্যবাহী মোহামেডান লিমিটেডের হয়ে। ১০ বছর পর ডিপিএলে মোহামেডানের হয়ে খেলবেন সাকিব। লিস্ট ‘এ’ মর্যাদা পাওয়ার পর এখনো কোনো শিরোপা ঘরে তুলতে পারেনি মোহামেডান। সাকিব আশা করেন ক্লাবটির নব নির্বাচিত কমিটি এখন থেকে প্রতি বছরই শিরোপা জয়ে বাড়তি নজর দিবে।

সাকিব সর্বশেষ ডিপিএল খেলেছেন ২০১৬ সালে আবাহনীর হয়ে। আবাহনী ছাড়া সাকিব ডিপিএল খেলেছেন বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (বিকেএসপি), ভিক্টোরিয়া স্পোর্টিং ক্লাব, কলাবাগান ক্রীড়া চক্র, মোহামেডান ও লেজেন্ডস অব রুপগঞ্জের হয়ে। ২০০৬-০৭ মৌসুমে প্রথমবার মোহামেডানে নাম লেখান সাকিব। ২০১০-১১ মৌসুমেও খেলেছেন সাদা-কালোদের হয়ে।

এবার পুরোনো ক্লাবে ফিরেছেন অধিনায়ক হয়ে। সাকিবের লক্ষ্য প্রথম রাউন্ড থেকেই শীর্ষে থাকা। এবারের আসর টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে বলে ধারাবাহিকতার গুরুত্ব তুলে ধরেন সাকিব।

আজ (২৯ মে) রাজধানীর ওয়েস্টিন হোটেলে (এই হোটেলে টুর্নামেন্টের বায়ো-বাবলে থাকবে দলটি) মোহামেডানের জার্সি উন্মোচন অনুষ্ঠানে নিজেদের লক্ষ্য নিয়ে কথা বলেন সাকিব।

সাকিব বলেন, ‘লক্ষ্য তো অবশ্যই থাকবে যেন তালিকার ওপরে থাকতে পারি। কিন্তু লিগটা আসলে অনেক বড়। এখানে ম্যাচ বাই ম্যাচ যাওয়াটাই গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের প্রথম লক্ষ্য প্রথম ম্যাচটা যেতা, যেহেতু একের পর এক খেলা এবং টি-টোয়েন্টিতে ধারাবাহিকতাটা ধরে রাখা খুব গুরুত্বপূর্ণ। সো আমরা যদি প্রথম ম্যাচেই ধারাবাহিকতাটা পেয়ে যাই এবং এটা ধরে রাখতে পারলে ভাল হয়।’

‘যেহেতু টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট এখানে বড় দল ছোট দল খুব একটা পার্থক্য রাখে না, দিনে যে ভাল খেলবে সেই জিতবে। তো সেই জায়গা থেকে ধারাবাহিকতা পাওয়া খুব গুরুত্বপূণ। চেষ্টা থাকবে আমরা যেন প্রথম ম্যাচেই ধারাবাহিকতা পেয়ে যাই এবং সেটা ধরে রাখতে পারি।’

ডিপিএল লিস্ট ‘এ’ মর্যাদা পাওয়ার পর কোনো শিরোপা নেই মোহামেডানের যেখানে চির প্রতিদ্বন্দ্বী আবাহনীর শিরোপা তিনটি, বর্তমান চ্যাম্পিয়নও তারা। সাকিব বলছেন এটা মোহামেডানের জন্য হতাশার। তবে বর্তমান কমিটির কাছে সাকিবের প্রত্যাশা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার মত দলই গড়বে মোহামেডান।

এ প্রসঙ্গে দলটির অধিনায়ক বলেন, ‘অবশ্যই মোহামেডানের মতো ক্লাবের জন্য এতা হতাশাজনক ব্যাপার। কিন্তু আমি নিশ্চিত যে কমিটিতে যারা নতুন এসেছেন তারা সাধ্যমতো চেষ্টা করবে এ বছর এবং এখন থেকে প্রতি বছর যেন ট্রফি আনতে পারে, শুধু ক্রিকেটে না অন্য যে খেলাগুলোতে অংশ নেয় সবগুলোতে। শক্তিশালী দল গঠন করবে এবং ট্রফি জেতার ইচ্ছা তাদের থাকবে।’

৩১ মে বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (বিকেএসপি) চার নম্বর মাঠে শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাবের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু হবে মোহামেডানের। ৭ম রাউন্ডে মোকাবেলা করবে চির প্রতিদ্বন্দ্বী আবাহনীকে। ক্লাবের কর্মকর্তা, ভক্ত সমর্থকদের মত সাকিবের বাড়তি উত্তেজনা থাকলেও তার মূল লক্ষ্য ২ পয়েন্ট অর্জন।

তিনি বলেন, ‘আমি নিশ্চিত আমি না শুধু, ক্লাবের যত সমর্থক আছে, কর্মকর্তারা আছে তারা সবাই ওই ম্যাচটি নিয়ে আগ্রহে আছে। কিন্তু ক্রিকেটারদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ হলো প্রতি ম্যাচে ২টি করে পয়েন্ট। সেটা আমি আবাহনীর সাথে খেলছি না পারটেক্সের সাথে সেটা বিষয়টা। আমাদের টার্গেট হল ২টি পয়েন্ট। আমরা এই মানসিকতাটা সবসময় রাখতে চাই।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

দলের স্বার্থে শেষের দিকে ব্যাট করতেও সমস্যা নেই সাকিবের

Read Next

সিপিএলে খেলা হবে না সাকিবের

Total
3
Share