সব ভালো দিয়ে শেষ করতে চায় বাংলাদেশ

সব ভালো দিয়ে শেষ করতে চায় বাংলাদেশ

এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিশ্চিত করা বাংলাদেশ আগামীকাল (২৮ মে) মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মাঠে নামবে হোয়াইট ওয়াশের মিশনে। প্রথমবারের মত শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ জেতা বাংলাদেশ তৃতীয় ম্যাচ জিতলেই ১৫তম বার প্রতিপক্ষকে হোয়াইট ওয়াশের স্বাদ দিতে পারবে। বাংলাদেশের হোয়াইট ওয়াশ লক্ষ্যের বিপরীতে লঙ্কানরা চায় অন্তত একটি জয় নিয়ে বাড়ি ফিরতে।

লঙ্কানদের অপেক্ষাকৃত অনভিজ্ঞ দলটি বাংলাদেশের সামনে দাঁড়াতে না পারলেও ব্যাটে-বলে নিখুঁত পারফরম্যান্সের খোঁজে বাংলাদেশ শিবির। বিশেষ করে দুই ম্যাচেই ব্যাটিং বিভাগ বেশ ভুগিয়েছে টাইগারদের। অভিজ্ঞ মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ব্যাটে দুই ম্যাচেই বিপর্যয় কাটিয়েছে বাংলাদেশ। তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে তিন বিভাগেই নিজেদের সেরা খেলাটা উপহার দিতে চায় স্বাগতিকরা।

প্রথম ওয়ানডেতে ৯৯ রানে ৪ ও দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ৭৪ রানে ৪ উইকেট হারানো বাংলাদেশ পথ খুঁজে পেয়েছিল মুশফিক-রিয়াদের ১০৯ ও ৮৭ রানের জুটিতে। প্রথম ওয়ানডেতে মুশফিকের ৮৪ রানের সাথে রিয়াদের ৫৪ ও অধিনায়ক তামিম ইকবালের ৫২। দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মুশফিকের ১২৫ রানের সাথে রিয়াদের ৪১ রানে জয়ের জন্য যথেষ্ট এমন পুঁজি পায় টাইগাররা।

১ ম্যাচ হাতে রেখে সিরিজ নিশ্চিত করা বাংলাদেশ শেষ ম্যাচ জিতে ব্যবধানটা ৩-০ করার দিকেই তাকিয়ে। আজ (২৭ মে) মিরপুরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ জানালেন সে লক্ষ্যের কথাই। সাথে দলের টপ অর্ডারের ঘুরে দাঁড়ানো ও মিডল, লোয়ার মিডলের ব্যাটসমায়নদের ফিনিশিং ভূমিকা পালনের ব্যাপারেও আশাবাদী এই অভিজ্ঞ ক্রিকেটার।

তিনি বলেন,

‘অবশ্যই ইন শা আল্লাহ। ৩-০ (সিরিজ জয়ের ব্যবধান) অবশ্যই টার্গেট। আমার মনে হয় সব মিলিয়ে ব্যাটিং-বোলিং হোক আমরা সেরা ক্রিকেটটা এখনো খেলতে পারিনি। তো এটা আমাদের নিজেদের মধ্যে কথা হয়েছে। তো আই হোপ ইন শা আল্লাহ আমাদের সেরা ক্রিকেটটা খেলার চেষ্টা করব। আমরা ব্যক্তিগত ভাবে মনে করি যে টপ অর্ডারের কলাপস বা মিডল অর্ডার লেট মিডল অর্ডার, স্লগ ওভারে প্রথম ম্যাচে তুলতে পারিনি। ওই জিনিসগুলো নিয়ে আমার মনে হয় আমাদের আরেকটু ভাল পারফর্ম করা উচিত। এবং আমরা সেদিকেই তাকিয়ে।’

সাথে ওয়ার্ল্ড কাপ সুপার লিগের ম্যাচ বলে সিরিজের প্রতিটি ম্যাচেই থাকছে ১০ পয়েন্ট করে অর্জনের সুযোগ। যা বিশ্বকাপ বাছাইয়ে বাংলাদেশকে নির্ভার রাখতে সাহায্য করবে। ইতোমধ্যে ৮ ম্যাচে ৫০ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার সবার উপরে থাকা বাংলাদেশ এখন বাকিদের সাথে ব্যবধান বাড়িয়ে নেয়ার সুবর্ণ সুযোগ পাচ্ছে।

সিরিজের শেষ ম্যাচের আগে রিয়াদের কন্ঠেও সেই তাড়না,

‘অবশ্যই প্রতিটি ম্যাচই গুরুত্বপূর্ণ। যেহেতু বিশ্বকাপে কোয়ালিফাইংয়ের একটা বিষয় থাকে তো প্রতিটি ম্যাচই আমাদের জন্য সমান গুরুত্বপূর্ণ এবং যেহেতু আরেকটা সুযোগ আছে ১০ পয়েন্ট পাওয়ার তো কেন নয়? আমি যেটা বললাম আমরা আমাদের সেরা পারফরম্যান্সটা দিতে পারিনি। তো আমরা ওটাই দেওয়ার চেষ্টা করব ও ম্যাচটা জিতে ১০টা পয়েন্ট নেয়ার চেষ্ট করব।’

সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ দলের বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে তামিমের সাথে ওপেন করতে নামা লিটন দাসের টানা ব্যর্থতা। সর্বশেষ ৮ ম্যাচে তার নেই ৩০ রানের কোনো ইনিংসও। চলমান সিরিজের দুই ম্যাচে করেছেন ০ ও ২৫। তার একাদশ থেকে বাদ পড়ার সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে। বিশেষ করে শেষ ম্যাচের স্কোয়াডে বাঁহাতি ওপেনার নাইম শেখকে অন্তর্ভূক্ত করাতেই বেড়েছে সেই সম্ভাবনা। বাংলাদেশ একাদশে আরেকটি পরিবর্তেন সুযোগ থাকছে।

দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ব্যাট করার সময় বাউন্সারের আঘাতে ছিটকে যাওয়া অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের সিটি স্ক্যান রিপোর্ট ভালো আসলেও শারীরিকভাবে পুরোপুরি ফিট হচ্ছেন কিনা সে জন্য করতে হবে অপেক্ষা। সূত্র মতে সাইফউদ্দিনকে টিম ম্যানেজমেন্ট খেলাতে চাইলেও বিসিবির মেডিকেল বিভাগের পরামর্শ তাকে যেন বিশ্রাম দেয়া হয়।

এদিকে লঙ্কান একাদশেও পরিবর্তন আসার সম্ভাবনা রয়েছে। দলটির টপ অর্ডারের ভরাডুবি হয়েছে সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে। প্রথম ম্যাচে ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা ৭৪ রানের ইনিংস খেললেও দ্বিতীয় ম্যাচে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ২৪ রান আসে ধানুশকা গুনাথিলাকার ব্যাট থেকে। একাদশে ঢুকতে পারেন প্রথম দুই ম্যাচে সুযোগ না পাওয়া উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান নিরোশান ডিকওয়েলা।

আজ (২৭ মে) অনুশীলন শেষে মিরপুর একাডেমি মাঠে সফরকারী দলের কোচ মিকি আর্থার এমনটা আভাস দিয়ে বলেন,

‘ডিকওয়েলাকে টপ অর্ডারের জন্য বিবেচনা করা হতে পারে। অধিনায়ক (কুশল পেরেরা) উইকেট কিপিংটা সামলাচ্ছেন। আমাদের অন্য বিকল্পগুলোর দিকেও খানিক তাকাতে হবে। ডিকওয়েলার খেলার সম্ভাবনা আছে আগামীকাল।’

এদিকে নিয়মিত ওয়ানডে অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে, দীনেশ চান্দিমাল, অ্যাঞ্জেলা ম্যাথুসদের মত অভিজ্ঞদের ছাড়াই বাংলাদেশে আসা শ্রীলঙ্কা বাংলাদেশের কাছ থেকে প্রত্যাশিত প্রতিদ্বন্দ্বিতা পাচ্ছে বলছেন কোচ মিকি আর্থার। তার মতে সাকিব, তামিম, মুশফিক, মাহমুদউল্লাহদের মত অভিজ্ঞরাই পার্থক্য গড়ে দিচ্ছে।

তিনি বলেন,

‘সাকিব, তামিম ও মুশফিক ২০০ এর বেশি ম্যাচ খেলেছে। মাহমুদউল্লাহও ২০০ ম্যাচ খেলার দ্বারপ্রান্তে। মুস্তাফিজ ও মেহেদী (হাসান মিরাজ) নিজেদের কন্ডিশনে এখন দারুণ ইউনিট। আমরা বাংলাদেশের সাথে বেশ কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতা আশা করছি। আর তারা সেটাই আমাদের দিয়েছে।’

নিজেদের ফিল্ডিং, বোলিং নিয়ে কোনো অতৃপ্তি নেই লঙ্কান কোচের। ব্যাটিংয়ে ব্যর্থ হওয়া সফরকারীরা শেষ ম্যাচে ঘুরে দাঁড়াবে আশা মিকি আর্থারের। ওয়ার্ল্ড কাপ সুপার লিগের অংশ বলে প্রতি ম্যাচের গুরুত্ব বোঝেন আর্থারও। অন্তত বাংলাদেশ থেকে একটি জয় নিয়ে ফিরতে চান।

তিনি বলেন,

‘প্রতিটি (ওয়ার্ল্ড কাপ সুপার লিগের) ম্যাচেই থাকছে ১০ পয়েন্ট অর্জনের সুযোগ। আমরা এখানকার অধায়্যটা শেষ করতে চাই আগামীকাল একটি ভালো, পরিশ্রমী ও শৃঙ্খলাবদ্ধ পারফরম্যান্সের মাধ্যমে। আমরা অন্তত একটা জয় নিয়ে বাড়ি ফিরতে চাই।’

‘আমরা ফিল্ডিং ও বোলিংটা ভালোই করছি। ফিল্ডিং করার সময় আমাদের মানসিকতা দুর্দান্ত। শুধু ব্যাটিংটা আমাদের ঠিকঠাক হচ্ছে না। আমরা আমাদের স্বাধীনভাবে খেলতে হবে এবং নিজের সামর্থ্যের উপর বিশ্বাস রাখতে হবে।’

ঘূর্ণিঝড় ইয়াশের প্রভাবে সিরিজের শেষ দুই ম্যাচ পন্ড হওয়ার শঙ্কা থাকলেও দ্বিতীয় ম্যাচ দফায় দফায় বৃষ্টির পরও ডার্ক ওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে শেষ হয়। তবে আগামীকাল শেষ ম্যাচের আগে আবহাওয়া পূর্বাভাস বলছে খেলা শুরুর আগে কিছুটা ঝড়ো বাতাস ও হাল্কা বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে সময়ের সাথে সাথেই আকাশ ঝকঝকে হয়ে যাবে বলা হচ্ছে।

ম্যাচে বাংলাদেশ অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান দাঁড়িয়ে একটি মাইলফলকের সামনে। মাত্র একটি উইকেট পেলেই মাশরাফি বিন মর্তুজাকে (২৬৯) টপকে বাংলাদেশের হয়ে ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারির তালিকায় সবার উপরে উঠে যাবেন। ২ উইকেট পেলে সব মিলিয়ে ওয়ানডেতে কোনো বাংলাদেশির সর্বোচ্চ উইকেটও হয়ে যাবে সাকিবের। এশিয়া একাদশের হয়ে মাশরাফি নিয়েছেন এক উইকেট, ফলে ওয়ানডেতে তার বর্তমান উইকেট সংখ্যা ২৭০, সাকিবের ২৬৯।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

লোয়ার মিডলে সফল রিয়াদ অভিজ্ঞতা ভাগ করেন ব্যর্থদের সাথেও

Read Next

৭ দিনে ডিপিএলের ৩০ ম্যাচ

Total
1
Share