যাদের সাহায্য ও পরামর্শে আরও ধারালো হচ্ছেন মিরাজ

যাদের সাহায্য ও পরামর্শে আরও ধারালো হচ্ছেন মিরাজ

মেহেদী হাসান মিরাজের স্পিন ঘূর্ণিতে মিরপুরে প্রথম ওয়ানডেতে কুপোকাত শ্রীলঙ্কান ব্যাটসম্যানরা। তার ৪ উইকেট শিকারের দিনে ৩৩ রানে হেরেছে কুশল পেরেরার দল। সফরকারীদের টপ ও মিডল অর্ডারে ধাক্কাটা দেন এই অফ স্পিনার। ম্যাচ শেষে মিরাজ জানালেন দেশি স্পিন কোচদের সান্নিধ্যে আরও ধারালো হয়ে উঠছেন।

বাংলাদেশ জাতীয় দলে বিদেশি স্পিন কোচরাই বরাবর প্রাধান্য পেয়ে আসছেন। তবে স্পিনাররা নিজেদের সমস্যা সমাধানে দেশি কোচদের কাছেই ছুটে যান সবচেয়ে বেশি। টাইগারদের স্পিন কোচ ড্যানিয়েল ভেট্টোরি সর্বশেষ এক বছর বাংলাদেশ দলের সাথে থেকেও নেই। করোনা প্রভাবে নিউজিল্যান্ডেই আটকে আছেন।

এই সময়টায় দেশি কোচদের দিয়েই কাজ সারছে দেশের ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিসিবি। আর নিজেদের পুরোনো কোচদের পেয়ে তাইজুল ইসলাম, মেহেদী মিরাজরাও দারুণ উপকৃত। পারিবারিক কারণে শ্রীলঙ্কা সিরিজে না থাকলেও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের পর শ্রীলঙ্কা সফরের টেস্ট সিরিজেও দায়িত্ব পালন করেন সোহেল ইসলাম।

গতকাল (২৩ মে) লঙ্কানদের বিপক্ষে ১০ ওভারে ২ মেডেনসহ মাত্র ৩০ রান খরচায় ৪ উইকেট শিকার করা মিরাজও কৃতিত্ব দিলেন দেশি কোচদের। সোহেল ইসলাম ছাড়াও বিসিবির সাবেক কোচ ও বর্তমানে বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (বিকেএসপি) উপদেষ্টা নাজমুল আবেদিন ফাহিমের পরামর্শের কথাও তুলে ধরেন মিরাজ।

ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে মিরাজ বলেন, ‘আমি তো বোলিং করছি নেটে এবং দেশি যে কোচ (সোহেল ইসলাম) আছে তার সঙ্গে যোগাযোগ করছি কিভাবে কি করলে ভালো হয়। এছাড়া ফাহিম (নাজমুল আবেদিন ফাহিম) স্যার তিন-চার দিন আগে আমাকে ফোন দিয়েছিলেন, শ্রীলঙ্কায় টেস্ট খেলার সময় থেকেই বোলিংয়ের বিভিন্ন দিক নিয়ে গাইডলাইন দিচ্ছেন।’

‘আমি চেষ্টা করেছি সেসব মেনে বল করার। আর সোহেল স্যারের সঙ্গে তো এখন সামনে থেকেই কাজ করতে পারছি। আমি মনে করি যে স্যাররা আমাকে ভালো গাইড করেছে। আমার পরিকল্পনা হল সবসময় যা করি তা করার, রান আটকানো। এতে ব্যাটসম্যান ভুল করলে চান্স আসে। আমি চেষ্টা করেছি যেন ডট বল বেশি করতে পারি।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

পরাজয়ের দায় ব্যাটসম্যানদের দিলেন কুশল পেরেরা

Read Next

‘আমি পোলার্ড বা রাসেল না’

Total
21
Share