তামিমের ঝড়ো ব্যাটিং, হেসেখেলে জিতল বিসিবি রেড দল

তামিমের ঝড়ো ব্যাটিং, হেসেখেলে জিতল বিসিবি রেড দল

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের আগে নিজেদের মধ্যে ভাগ হয়ে এক প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছে টাইগাররা। সাভারের বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (বিকেএসপি) এ বিসিবি রেড ও বিসিবি গ্রিন দল নাম নিয়ে খেলেছে তামিম-মাহমুদউল্লাহরা।

তামিমের অধিনায়কোচিত ইনিংসে ভর করে বড় লক্ষ্য সহজেই পার করেছে বিসিবি রেড দল। আগে ব্যাট করে নির্ধারিত ৪৫ ওভারে ৩ উইকেটে ২৮৪ রান করে বিসিবি গ্রিন। জবাবে ৫ উইকেটে ২৮৮ রান করতে বিসিবি রেড খেলে ৪১ ওভার।

বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই মারমুখী ব্যাটিং করতে থাকেন তামিম ইকবাল। ৮.২ ওভার স্থায়ী তামিম-লিটন উদ্বোধনী জুটিতে আসে ৬২ রান। যার মধ্যে মাত্র ১৫ রান লিটনের।

১৬ বলে ৩ চারে ১৫ রান করে সাকিব আল হাসানের বলে লেগ বিফোর উইকেটের ফাঁদে পড়েন লিটন দাস। তিনে নেমে তামিমকে দারুণ সঙ্গ দেন ইমরুল কায়েস। এই জুটিতে আসে ৬১ রান।

৫৮ বলে ৭ চার ও ৪ ছক্কায় ৮০ রান করে আউট হন তামিম। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের বলে শহিদুল ইসলামকে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি।

চারে নেমে কম যাননি মুশফিকুর রহিম। স্বেচ্ছা অবসরে যাবার আগে ৫৫ বলে খেলেন ৬৪ রানের ইনিংস, যাতে ছিল ৬ টি চার ও ২ টি ছয়ের মার।

৩২ বলে ১ চার ও ২ ছয়ে ৩৩ রান করে মাহমুদউল্লাহ’র দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফেরেন ইমরুল। স্কোয়াডে জায়গা না পাবার দিনে হাসেনি নাজমুল হোসেন শান্ত’র ব্যাটও। ১৮ বলে ৯ রান করে তাইজুলের একমাত্র শিকার শান্ত।

শেষদিকে মেহেদী হাসান, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের ব্যাটে চড়ে ৪ ওভার হাতে রেখেই লক্ষ্যে পৌছে যায় বিসিবি রেড দল। প্রস্তুতি ম্যাচ বলেই কিনা দুইবার ব্যাটিংয়ে নামেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত (২৮ ও ২*)।

বল হাতে মাহমুদউল্লাহ ২ উইকেট নেন, ১ টি করে উইকেট নেন সাকিব আল হাসান, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব ও তাইজুল ইসলাম।

এর আগে বিসিবি গ্রিনের পক্ষে ব্যাট হাতে দারুণ শুরু করেন নাইম শেখ ও সৌম্য সরকার। ৪৩ বলে ৫ চারে ৩৮ রান করে স্বেচ্ছা অবসরে যান নাইম। তিন নম্বরে ব্যাট করতে নামেন সাকিব আল হাসান।

শুরুতে নড়বড়ে থাকলেও দ্রুতই মানিয়ে নেন কোয়ারেন্টাইন কাটিয়ে ফেরা সাকিব। ২ টি বাউন্ডারি আদায় করে নেওয়া সাকিব নিয়মিত স্ট্রাইক রোটেট করেন। ২০ বলে ২ চারে ২৮ রান করে বোল্ড হন মেহেদী হাসানের বলে।

মেহেদী পরে ফেরান মোহাম্মদ মিঠুনকেও। ১০ বলে ৩ রান করে লিটন দাসকে ক্যাচ দেন মিঠুন।

একবার স্বেচ্ছা অবসরে গেলেও পরে আবার ব্যাট করতে নামেন সৌম্য। ৭০ বলে ৪ চার ও ৩ ছক্কায় ৬০ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি।

৬০ এর বেশি রান করেছেন ৫ এ নামা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও ৬ এ নামা আফিফ হোসেন ধ্রুব। দুজনেই সেচ্ছা অবসরে যান। ৫৪ বলে ৬ চার ও ২ ছয়ে ৬২ রান করেন মাহমুদউল্লাহ, সমপরিমাণ বল খেলে ৭ চার ও ৩ ছক্কায় ৬৪ রান করেন আফিফ।

বিসিবি রেড দলের পক্ষে মেহেদী হাসান ছাড়া উইকেটের দেখা পান কেবল শরিফুল ইসলাম। মেহেদী হাসান মিরাজকে ইমরুল কায়েসের ক্যাচ বানিয়ে ফেরান তিনি।

কোয়ারেন্টাইন কাটিয়ে ফেরা মুস্তাফিজুর রহমান ৭ ওভার বল করে কোন উইকেট পাননি, রান দিয়েছেন ৪৮। খরুচে ছিলেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, নাসুম আহমেদরা।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

বিসিবি গ্রিন দল ২৮৪/৩ (৪৫), নাইম ৩৮ (রিটায়ার্ড নট আউট), সৌম্য ৬০*, সাকিব ২৮, মিঠুন ৩, মাহমুদউল্লাহ ৬২ (রিটায়ার্ড নট আউট), আফিফ ৬৪ (রিটায়ার্ড নট আউট), মিরাজ ১৭, বিপ্লব ৩*; মুস্তাফিজ ৭-০-৪৮-০, মেহেদী ৯-০-৪০-২, সৈকত ৮-১-৩৮-০, সাইফউদ্দিন ৯-০-৬৫-০, শরিফুল ৭-০-৪৫-১, নাসুম ৫-০-৪৪-০

বিসিবি রেড দল ২৮৮/৫ (৪১), তামিম ৮০, লিটন ১৫, ইমরুল ৩৩, মুশফিক ৬৪ (রিটায়ার্ড নট আউট), শান্ত ৯, সৈকত ২৮, মেহেদী ২৪ (রিটায়ার্ড নট আউট), সাইফউদ্দিন ২৬*, সৈকত ২*; তাসকিন ৬-০-৪৫-০, সাকিব ৬-০-৪৫-১, মাহমুদউল্লাহ ৫-০-২৯-২, বিপ্লব ৩-০-৩৪-১, সৌম্য ৩-০-২৮-০, শহিদুল ৩-০-২৩-০, মিরাজ ৭-০-৫২-০, তাইজুল ৬-১-২১-১, আফিফ ২-০-৯-০

ফলাফলঃ বিসিবি রেড দল ৫ উইকেটে জয়ী।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

দল ঘোষণার ব্যাখ্যায় যা বললেন প্রধান নির্বাচক

Read Next

নিজে অভিজ্ঞ হলেও তরুণদের নিয়ে আশাবাদী ইসুরু উদানা

Total
4
Share