পাজরের যে চোটে ২ মাস ভুগেছিলেন শচীন

পাজরের যে চোটে ২ মাস ভুগেছিলেন শচীন

২০০৭ সালে ওয়ানডেতে পাকিস্তানের শোয়েব আখতারকে মোকাবেলা করতে যেয়ে পাজরের খাচায় চোট পেয়েছিলেন শচীন টেন্ডুলকার।

২০০৭ সালে পাকিস্তানের ভারত সফরে এই চোট পেয়েছিলেন শচীন। তবে এই চোট স্বত্তেও শচীন খেলা চালিয়ে গিয়েছিলেন, এমনকি অস্ট্রেলিয়া সফরেও গিয়েছিলেন। অবশ্য অসহনীয় ব্যাথা অনুভব করছিলেন মাস্টার ব্লাস্টার।

টেন্ডুলকার বুঝতেই পারেননি এই ইনজুরি সম্পর্কে। তবে তার কাশতে গেলে ব্যাথা লাগছিল, ঘুমাতে গেলে পেটে ব্যাথা লাগত। এমনটা চলে প্রায় ২ মাস।

আনঅ্যাকাডেমিতে এক সেশনে শচীন বলেন, ‘আমার পাজরের খাচায় লেগেছিল ২০০৭ সালে। আমরা পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলছিলাম ভারতে। প্রথম ওভারে শোয়েব আখতারের বলে লেগেছিল, সেটা খুব কষ্টদায়ক ছিল। ১/১.৫/২ মাস ধরে আমি কাশতে গেলে ব্যাথা পেতাম, ঘুমাতে গেলে পেটে ব্যাথা পেতাম।’

শচীন যোগ করেন, ‘তবে আমি খেলা চালিয়ে গিয়েছিলাম ঐ অবস্থাতেই। আমি নিজের জন্য একটা আলাদা চেস্ট গার্ড ডিজাইন করেছিলাম। আমি বাকি ৪ ওয়ানডে ও টেস্ট সিরিজ খেলেছি। অস্ট্রেলিয়ায় যাবার আগে যা যা ক্রিকেট হয়েছে আমি খেলেছি।’

পাকিস্তানের বিপক্ষে ৩ টেস্ট, ৫ ওয়ানডে শেষে সেবছর ভারত অস্ট্রেলিয়া সফরে যায় ৪ টেস্ট ও ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজ (৩য় দল শ্রীলঙ্কা) খেলে। শচীন দুই স্কোয়াডেরই অংশ ছিলেন।

অস্ট্রেলিয়ায় যেয়ে শচীন গ্রোয়েন ইনজুরিতে পড়েন। তখন তার পুর্নাঙ্গ শরীরে স্ক্যান করা হয়। এরপরেই চিকিৎসকরা তার ভেঙে যাওয়া পাজরের সম্পর্কে জানান।

‘আমি অস্ট্রেলিয়াতে যেয়ে পুরো সিরিজ খেলি, সিরিজের শেষের দিকে আমার গ্রোয়েন ইনজুরি হয়। আমি ভারতে ফিরে আসি, গোটা শরীরে স্ক্যান করা হয়। তখন চিকিৎসক আমাকে জানান এটা সম্পর্কে’, শচীন বলেন।

‘আমি চিকিৎসককে আমার পাজর নিয়ে কিছু জিজ্ঞাসা করিনি, আমি আমার গ্রোয়েন নিয়ে চিন্তিত ছিলাম, কারণ আইপিএল শুরু হচ্ছিল। তবে আমি সঠিক সময়ে ফিট হতে পারিনি, প্রথম ৭ ম্যাচ খেলতে পারিনি।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

কিউইদের বিপক্ষে সিরিজ থেকে ছিটকে গেলেন আর্চার

Read Next

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়ার স্কোয়াড ঘোষণা

Total
1
Share