সিনিয়রদের ডেকে যে বার্তা দিয়েছেন লঙ্কান প্রধান নির্বাচক

সিনিয়রদের ডেকে যে বার্তা দিয়েছেন লঙ্কান প্রধান নির্বাচক
Vinkmag ad

বাংলাদেশের বিপক্ষে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের আগে সিনিয়র ক্রিকেটারদের বাদ বা বিশ্রাম দিয়েছে শ্রীলঙ্কার নয়া নির্বাচক প্যানেল। প্রমোদ্য বিক্রমাসিংহের নেতৃত্বাধীন নির্বাচক প্যানেল বাদ পড়াদের নিয়ে এক সভা করেছেন।

উল্লেখ্য নতুন নির্বাচকরা সাদা বলের ক্রিকেটে বাদ দিয়েছেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস, দিমুথ করুনারত্নে, দীনেশ চান্দিমাল, থিসারা পেরেরা (অবসর নিয়েছেন), নুয়ান প্রদীপ, সুরাঙ্গা লাকমালদের।

সানডে টাইমস পত্রিকার সঙ্গে আলাপে প্রমোদ্য বিক্রমাসিংহে জানান সিনিয়রদের সঙ্গে সভায় কি আলাপ হয়েছে। সিনিয়রদের বাইরে রেখেই ২০২৩ বিশ্বকাপের জন্য প্রস্তুত হচ্ছে শ্রীলঙ্কা।

সভায় ব্যক্তিগত কারণে আসেননি অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস, যোগাযোগ ঠিকঠাক না হওয়ায় সভায় আসেননি দিমুথ করুনারত্নে। নির্বাচকরা দীনেশ চান্দিমাল, নুয়ান প্রদীপদের জানিয়ে দিয়েছে কেনো তাদেরকে বাংলাদেশ ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে রাখা হয়নি।

বিক্রমাসিংহে জানান, ‘আমরা দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা করছি। বিশেষ করে ২০২৩ বিশ্বকাপের জন্য। আমরা সাদা বলের ক্রিকেটে খুব ভাল করছি না এবং আমাদের উদ্দেশ্য কাউকে খুশি করা না। বরং শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটকে আবারো দারুণ অবস্থানে নিয়ে যাওয়া। তাই আমি তাদের (বাদ পড়া সিনিয়রদের) বলেছি দুঃখ না পেতে।’

সানডে টাইমসের মতে সাবেক লঙ্কান দলপতি দীনেশ চান্দিমাল নিজের পক্ষে যুক্তি দিয়ে তর্ক করেন । তিনি বলেন তাদের বয়স ৩০ এর আশেপাশে, এখনো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে তাদের অনেক কিছু দেবার আছে, এই সিদ্ধান্ত অমূলক।

এই বিষয়ে প্রমোদ্য বিক্রমাসিংহে বলেন, ‘হ্যা, এটা সত্য যে মাহেলা জয়াবর্ধনে, কুমার সাঙ্গাকারা, তিলকারত্নে দিলশানের মত ক্রিকেটাররা লম্বা সময় ধরে ক্রিকেট খেলেছেন। তবে তারা তাদের মেরিট দিয়েই টিকে ছিলেন। প্রত্যেকবার তারা যখন খেলতে নেমেছেন, তারা পারফর্ম করেছেন। তবে এখনকার সিনিয়রদের ক্ষেত্রে আমরা কি সেটা দেখতে পাই? আমি জানি এটা কোন জনপ্রিয় সিদ্ধান্ত নয়, তবে ভবিষ্যতের কথা ভাবলে এটাই সঠিক সিদ্ধান্ত।’

তবে এখন বাদ পড়লেও প্রধান নির্বাচক চান্দিমালদের জানিয়ে দিয়েছেন তারা যদি ফিটনেস লেভেল ধরে রাখতে পারেন এবং ঘরোয়া লিগে ভালো পারফর্ম করতে পারেন তাহলে তারা আবার শ্রীলঙ্কা দলে ফিরে আসতে পারবেন।

প্রমোদ্য বলেন, ‘আমরা যদি ভাবি আমাদের টপ অর্ডার মজবুত করতে হবে তাহলে আমরা এখনো দলে দিমুথ করুনারত্নেকে ডাকতে পারি। বা মিডল অর্ডারের জন্য দীনেশ চান্দিমাল ও অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসকে ফেরাতে পারি। তবে এমনটা করতে হলে তাদের একটা নির্ধারিত পরিমাণ পারফরম্যান্স ও ফিটনেস নিয়ে তরুণদের সঙ্গে লড়াই করতে হবে। আমরা এখন আর ওয়ানডেতে ৩০০ এর কম স্কোর চেজ করি না। আমরা দেখি ৩৫০ এর মত স্কোর চেজ করতে হয় তার জন্য আমাদের ফিট, শক্ত ও আগ্রাসী ক্রিকেটার দরকার।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

জুলাইয়ে কোহলিরা থাকবে ইংল্যান্ডে, শ্রীলঙ্কায় খেলবে ভারত

Read Next

বাংলাদেশ সফরের জন্য শ্রীলঙ্কার ১৮ সদস্যের স্কোয়াড

Total
12
Share