হতাশ ডোমিঙ্গোকে ‘এক্সাইটেড’ করেছে যা

হতাশ ডোমিঙ্গোকে 'এক্সাইটেড' করেছে যা

কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোর অধীনে ব্যর্থতার বৃত্তে থাকা বাংলাদেশ দলে তার ভবিষ্যত নিয়ে চলছে আলোচনা। শ্রীলঙ্কা সফরকে তার অগ্নি পরীক্ষা হিসেবেও দেখা হচ্ছিল। লঙ্কানদের বিপক্ষে সিরিজ হারের পর তাকে বরখাস্ত করা হবে বলেও গুঞ্জন উঠেছে। তবে আজ (৪ মে) শ্রীলঙ্কা থেকে দেশে ফেরার পর ডোমিঙ্গো বলছেন এসব নিয়ে খুব একটা চিন্তিত নন। দলের মাঝে উন্নতি দেখতে পাচ্ছেন, ভবিষ্যতে সাফল্য পাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

তবে দল খারাপ সময়ের মধ্য দিয়ে গেলে, কাঙ্ক্ষিত সাফল্য না আসলে যে সমালোচনা হওয়া যৌক্তিক সেটা অস্বীকার করলেন না টাইগারদের প্রধান কোচ। অতীত ভুলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের জন্য সেরা প্রস্তুতি নিতে চান টাইগার কোচ।

ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে হোয়াইট ওয়াশড হওয়ার পরই সমালোচনার ঝড় উঠে। এর আগেও বলার মত সাফল্যের দেখা পাননি রাসেল ডোমিঙ্গো। নিউজিল্যান্ড সফরেও ব্যর্থতার ষোলকলা পূর্ণ করে তার শিষ্যরা। ফলে শ্রীলঙ্কা সফরকে তার শেষ অ্যাসাইনমেন্ট হিসেবেও দেখেছে অনেকে। ব্যর্থ হয়েছেন এ দফায়ও। গুঞ্জন আছে এই দক্ষিণ আফ্রিকানকে আর টেনে নিতে চায়না বিসিবি।

আজ (৪ মে) দুপুরে দেশে ফিরে বিমানবন্দরে ডোমিঙ্গো অবশ্য সাংবাদিকদের জানালেন বাংলাদেশ যাত্রা এখানেই থামছে এমনটা ভাবছেন না। ২০১৯ সালে নিয়োগ পাওয়া এই কোচ ভবিষ্যতে সাফল্য এনে দেয়ার ব্যাপারে আশাবাদী। বাংলাদেশের সাথে কাজ করাটা উপভোগও করছেন।

তিনি বলেন, ‘না, না, না কোনো কনসার্ন না। আমি এখানে কাজ করাটা উপভোগ করছি, এখানকার সেটাপে কাজ করাতা উপভোগ করছি। কিন্তু অবশ্যই আপনাকে আপনার কাজটা শেষ করতে হবে। আমি মনে করি বাংলাদেশে দলের অধীনে ঘরোয়া ক্রিকেট ও খেলোয়াড়দের কাজের সুযোগ সুবিধার দিকে কিছুটা নজর দিতে হবে।’

‘আমি সেই দিকগুলো ঘুরে দেখবো বলে মনে করি। আর অবশ্যই কিছু কঠিন সময় গিয়েছে আমাদের, আমি খেলোয়াড়দের সাথে যোগাযোগ বাড়ানো নিয়ে কাজ করছি। আর সাফল্য পাওয়ার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী।’

এদিকে হারের পর দল পর্যবেক্ষণে থাকাটাকে স্বাভাবিকভাবেই দেখছেন এই প্রোটিয়া, ‘দল অবশ্যই সবসময় পর্যবেক্ষণে ছিল। বিশেষ করে হেরে আসা সিরিজগুলোতে। এটা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সহজাত বিষয়। দল যখন বাজে সময় পার করবে তখন অনেক প্রশ্নই উঠবে। এখন আসন্ন শ্রীলঙ্কা সিরিজের আগে আমাদের ভালোভাবে প্রস্তুত হতে হবে এবং মানসিকভাবে শক্ত হতে হবে। অতীতে যা হয়েছে সব ভুলে গিয়ে শিক্ষা নিতে হবে। আমরা ভবিষ্যতের দিকে নজর দিতে এগোচ্ছি।’

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশ কেবল একটি ড্রয়ের মুখ দেখেছে। এর বাইরে বাকি ৬ ম্যাচেই পরাজয় সঙ্গী হয়েছে মুমিনুল হকের দলের। রাসেল ডোমিঙ্গো সর্বোপরি ফলাফলেও হতাশ হলেও শিষ্যদের মাঝে দেখেছেন উন্নতির ছাপ।

তিনি বলেন, ‘খুবই হতাশ। আমি যেটা বলতে চাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টেস্টটা আমরা আসলে খুব ভালো ক্রিকেট খেলেছি। শেষদিনে আমাদের কিছু বাজে সিদ্ধান্ত, সম্ভবত কিছু ভুলও ছিল, যা আমাদের হারতে বাধ্য করে। দ্বিতীয় টেস্টটাও ক্লোজ হয়েছিল। শ্রীলঙ্কাতে প্রথম টেস্টটা ভালো খেলেছি। আমি কিছুটা উন্নতি দেখতে পারছি। সুতরাং এটা আমাকে কিছুটা এক্সাইটেড করছে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

দেশে ফিরেই ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে তামিম-মুশফিকরা

Read Next

আইপিএল পুনরায় শুরুর কথা ভাবছে বিসিসিআই

Total
3
Share