বড় পরাজয়ে সিরিজ হারল বাংলাদেশ

অভিষিক্ত জয়াবিক্রমার স্পিনে নাজেহাল বাংলাদেশ

বলা চলে পরাজয় নিশ্চিত ছিল আগেই, আলোক স্বল্পতায় আগেরদিন আগেভাগেই খেলা শেষ না হলে ম্যাচ হয়তো পঞ্চম দিনেও গড়াতো না। ৪৩৭ রানের পাহাড়সম লক্ষ্য তাড়ায় নেমে চতুর্থদিন ৫ উইকেট হারানো বাংলাদেশ পঞ্চম দিন কতক্ষণ টিকে সেটাই ছিল দেখার। লঙ্কান স্পিনারদের তোপে এক সেশনও টিকতে না পেরে টাইগারদের হারতে হয়েছে ২০৯ রানের বড় ব্যবধানে।

দুই ইনিংস মিলেও শ্রীলঙ্কার প্রথম ইনিংসের চেয়ে ১৫ রান কম করেছে বাংলাদেশ। ফলো অন করানোর সুযোগ পেয়েও তা না করানোয় ইনিংস ব্যবধানে হারানোর লজ্জা থেকে বাংলাদেশকে মুক্তি দিয়েছে শ্রীলঙ্কা।

ম্যাচে রেকর্ড গড়া বোলিং ফিগার অভিষিক্ত তরুণ বাঁহাতি স্পিনার প্রবীন জয়াবিক্রমার। ১৭৮ রানে নিয়েছেন ১১ উইকেট, যা অভিষেকে কোন বাঁহাতি স্পিনারের সেরা বোলিং ফিগার। গত ৯৮ বছরে যেকোনো বাঁহাতির জন্যও সেরা বোলিং ফিগার। প্রথম ইনিংসে ৯২ রান খরচায় ৬ উইকেতটের পর দ্বিতীয় ইনিংসে নিলেন ৮৬ রানে ৫ উইকেট।

৫ উইকেটে ১৭৭ রান নিয়ে দিন শুরু করেছিল বাংলাদেশ। ম্যাচ বাঁচাতে আজ সারাদিন ব্যাট করতে হত সফরকারীদের। জিততে হলে করতে হত ২৬০ রান। প্রথম ইনিংসের ৬ উইকেটের পর অভিষিক্ত লঙ্কান স্পিনার জয়াবিক্রমার দ্বিতীয় ইনিংসেও ৫ উইকেট শিকারে বাংলাদেশ টিকেছে ২৩ ওভার, স্কোরবোর্ডে যোগ করেছে ৫০ রান।

১৪ রানে অপরাজিত থেকে আগেরদিন শেষ করা লিটন দাস আজ ফিরেছেন দিনের তৃতীয় ওভারেই। জয়াবিক্রমার বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়ে ১৭ রানেই ধরতে হয়েছে সাজঘরের পথ। এরপর মেহেদী হাসান মিরাজ ও তাইজুল ইসলাম জুটিতে ক্রিজে ১০ ওভার কাটিয়ে শ্রীলঙ্কার জইয়ের অপেক্ষাটা কেবল দীর্ঘ করেছিল।

ধনঞ্জয়া ডি সিলভার প্রথম শিকার হয়ে তাইজুল ফিরেছেন উইকেট রক্ষক ডিকওয়েলাকে ক্যাচ দিয়ে। ৩০ বল খেলে ক্রিজে টিকে থাকার ইঙ্গিত দিয়েও ফিরেছেন ২ রান করে। তাইজুলের বিদায়ের পর গুটিয়ে যাওয়ার পথে বাংলাদেশ সময় নিয়েছিল ৯.৪ ওভার। জয়াবিক্রমার সাথে রমেশ মেন্ডিস তাসকিন (৭), আবু জায়েদ রাহিকে (০) ফিরিয়েছেন দ্রুতই।

৪ রান নিয়ে দিন শুরু করা মিরাজ আউট হয়েছেন শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে। ইনিংসে জয়াবিক্রমার পঞ্চম শিকার শিকার হওয়ার আগে খেলেছেন দ্বিতীয় ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৩৯ রানের ইনিংস। ৮৬ বলে ৪ চারে ইনিংসটি সাজান মিরাজ।

ইনিংসে ম্যাচ সেরা জয়াবিক্রমার ৫ উইকেটের সাথে ২৮ ওভারে ১০৩ রান খরচায় রমেশ মেন্ডিসের শিকার ৪ উইকেট। ধনঞ্জয়া ডি সিলভা একমাত্র উইকেটটি পেয়েছেন ৭ ওভারে ১৯ রান খরচায়।

প্রথম টেস্ট ড্রয়ের পর দ্বিতীয় টেস্ট জয়ের মাধ্যমে ১-০ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নিল স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে এখনো জয় অধরা থেকে গেল বাংলাদেশের।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

শ্রীলঙ্কা ১ম ইনিংসে ৪৯৩/৭ (১৫৯.২ ওভারে ইনিংস ঘোষণা), করুনারত্নে ১১৮, থিরিমান্নে ১৪০, ওশাদা ৮১, ম্যাথুস ৫, ধনঞ্জয়া ২, নিসাঙ্কা ৩০, ডিকওয়েলা ৭৭*, রমেশ ৩৩; তাসকিন ৩৪.২-৭-১২৭-৪, শরিফুল ২৯-৬-৯১-১, তাইজুল ৩৮-৭-৮৩-১।

বাংলাদেশ ১ম ইনিংসে ২৫১/১০ (৮৩), তামিম ৯২, সাইফ ২৫, শান্ত ০, মুমিনুল ৪৯, মুশফিক ৪০, লিটন ৮, মিরাজ ১৬, তাইজুল ৯, তাসকিন ০, শরিফুল ০, রাহি ০*; লাকমল ১০-০-৩০-২, রমেশ ৩১-৭-৮৬-২, জয়াবিক্রমা ৩২-৭-৯২-৬

শ্রীলঙ্কা ২য় ইনিংসে ১৯৪/৯ (৪২.২ ওভারে ইনিংস ঘোষণা), থিরিমান্নে ২, করুনারত্নে ৬৬, ওশাদা ১, ম্যাথুস ১২, ধনঞ্জয়া ৪১, নিসাঙ্কা ২৪, ডিকওয়েলা ২৪, রমেশ ৮, লাকমল ১২, জয়াবিক্রমা ৩*; মিরাজ ১৪-৩-৬৬-২, তাইজুল ১৯.২-২-৭২-৫, সাইফ ৪-০-২২-১

বাংলাদেশ ২য় ইনিংসে ২২৭/১০ (৭১), তামিম ২৪, সাইফ ৩৪, শান্ত ২৬, মুমিনুল ৩২, মুশফিক ৪০, লিটন ১৭, মিরাজ ৩৯, তাইজুল ২, তাসকিন ৭, শরিফুল ০*, রাহি ০; রমেশ ২৮-২-১০৩-৪, জয়াবিক্রমা ৩২-১০-৮৬-৫, ধনঞ্জয়া ৭-১-১৯-১

ফলাফলঃ শ্রীলঙ্কা ২০৯ রানে জয়ী

ম্যাচসেরাঃ প্রবীন জয়াবিক্রমা (শ্রীলঙ্কা)

সিরিজসেরাঃ দিমুথ করুনারত্নে (শ্রীলঙ্কা)।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

পাঞ্জাবকে হেসেখেলে হারাল দিল্লি

Read Next

স্থগিত হল আজকের কোলকাতা-ব্যাঙ্গালোর ম্যাচ

Total
4
Share