মুদ্রার এপিঠ ওপিঠ দেখে বিচলিত নন শান্ত

শ্রীলঙ্কাতেও কন্ডিশনই ইস্যু হচ্ছে শান্তদের
Vinkmag ad

টানা ব্যর্থতার পর ১৬৩ রানের দারুণ এক ইনিংস দিয়ে শ্রীলঙ্কা সিরিজ শুরু নাজমুল হোসেন শান্তের। তার প্রতিভা, সামর্থ্য নিয়ে প্রশ্ন, সংশয় ছিল না কখনোই। তবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সুর, লয়, তালে যেন গোলমাল পাকিয়ে ফেলেছেন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। ফলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে অমন ইনিংসে অনেকেই নতুন করে স্বপ্ন দেখা শুরু করে। কিন্তু পরে তিন ইনিংসে দুই ডাক সহ রান ২৬! একই সিরিজে মুদ্রার এপিঠ ওপিঠ দেখেও শান্ত বলছেন বিচলিত নন।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ শুরু করেছেন ৭ টেস্টে মাত্র এক ফিফটি নিয়ে। ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৪ ইনিংসে করতে পারেননি ৪০ রানের বেশি। তবে ক্যান্ডির পাল্লেকেলেতে প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসেই তার ব্যাট থেকে আসে ১৬৩ রানের ইনিংস। ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি তুলে নেয়ার পথে দিয়েছেন টেস্ট মেজাজে ইনিংস ইনিংস বড় করার বার্তা। তবে এরপরের দুই ইনিংসেই ফিরেছেন কোন রান না করে, দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে এসে আবার রানের খাতা খুললেও থেমেছেন ২৬ রানে।

অথচ টেস্ট বাঁচাতে একটা লম্বা সময় ক্রিজে কাটানোর বিকল্প ছিলনা এই ইনিংসে। লঙ্কানদের দেয়া ৪৩৭ রানের পাহাড়সম লক্ষ্য তাড়া করতে গিয়ে চতুর্থদিন ১২ ওভার বাকি থাকতে খেলা শেষ হলেও বাংলাদেশ হারিয়ে বসে ৫ উইকেট, স্কোরবোর্ডে রান ১৭৭। ম্যাচ বাঁচাতে আগামীকাল পঞ্চম দিন ৯৮ ওভার ক্রিজে কাটাতে হবে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের। লঙ্কান স্পিনারদের ভেল্কিতে যা অসম্ভব বলে দেয়া যায় আগেই।

নিশ্চিত হারের দিকে যাওয়া ম্যাচে দুই ইনিংসেই (০ ও ২৬) ব্যর্থ হওয়া বাঁহাতি ব্যাটসম্যান শান্ত বলছেন খুব একটা বিচলিত হচ্ছেন না। সেঞ্চুরি কিংবা শূন্য রান কোনোটাই তাকে বাড়তি খুশি কিংবা কষ্ট দেয় না।

চতুর্থ দিন শেষে ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘যে জিনিসটা আমার কাছে এখন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ- ভালো করার পর আমি যেন খুব বেশি খুশি হয়ে না যাই এবং খারাপ খেললেও খুব বেশি ডাউন হচ্ছি না। ভালো খেলার পর দুইটা ইনিংস খারাপ হয়েছে। আজ ভালো শুরুর পরও ইনিংস লম্বা হয়নি। এই জিনিসগুলো নিয়ে খুব বেশি চিন্তা করছি না। চিন্তা করছি পরবর্তীতে সুযোগ এলে কীভাবে ভালো করতে পারি। হ্যাঁ, আরেকটু ভালো হতে পারত।’

এদিকে দ্বিতীয় টেস্টে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার স্পিন সামলাতেই হাঁসফাঁস করছে টাইগার ব্যাটসম্যানরা। অভিষিক্ত বাঁহাতি স্পিনার প্রবীন জয়াবিক্রমা ও এর আগে এক ম্যাচের অভিজ্ঞতা সম্পন্ন রমেশ মেন্ডিসে নাজেহাল টাইগার ব্যাটিং লাইন আপ।

ইতোমধ্যে দুই ইনিংসে বাংলাদেশের হারানো ১৫ উইকেটের ১৩ টিই এই দুই স্পিনারের। প্রথম ইনিংসে ৬ উইকেট নেয়া জয়াবিক্রমা এখনো পর্যন্ত দ্বিতীয় ইনিংসে নিয়েছেন দুইটি, প্রথম ইনিংসে ২ উইকেট নেয়া মেন্ডিসের শিকার ৩ টি। শান্ত বলছেন আন্তর্জাতিক পর্যায়ে টেস্ট খেলতে এমন স্পিন খেলায় অভ্যস্ত হতে হবে।

বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যানের ভাষ্য, ‘এই চার দিন স্পিন সামলানো একটু কঠিন ছিল। স্পিন একটু বেশি ছিল। টেস্ট ক্রিকেট খেলতে হলে, আন্তর্জাতিক পর্যায়ে খেলতে হলে এই জিনিসগুলা আমাদের আরও ভালোভাবে সামলানো উচিৎ।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

বাটলার, মুস্তাফিজের আলো ছড়ানোর দিনে জিতল রাজস্থান

Read Next

পাঞ্জাবকে হেসেখেলে হারাল দিল্লি

Total
1
Share