বাটলার, মুস্তাফিজের আলো ছড়ানোর দিনে জিতল রাজস্থান

বাটলার, মুস্তাফিজের আলো ছড়ানোর দিনে জিতল রাজস্থান
Vinkmag ad

দিল্লিতে ব্যাট হাতে তাণ্ডবলীলা দেখিয়ে শুরুটা করেন জস বাটলার; অনবদ্য সেঞ্চুরিতে রাজস্থান গড়ে রানের পাহাড়। এরপর মুস্তাফিজ আর মরিসের দাপুটে বোলিংয়ে সামনে হায়দ্রাবাদের ব্যাটসম্যানদের আত্মসমর্পণ। এদিন ফিজের আলো ছাড়ানো বোলিং দেখল আইপিএল। আর তাতেই রাজস্থান তুলে নেয় ৫৫ রানের বড় জয়। অধিনায়ক বদলেও জয়ে ফেরা হল না হায়দ্রাবাদের।

রাজস্থানের ৩ উইকেটে ২২০ রানের জবাবে হায়দ্রাবাদ তাদের ইনিংস শেষ করে ৮ উইকেটে ১৬৫ রান সংগ্রহ করে। আর তাতেই ৫৫ রানের বড় ব্যবধানে ম্যাচ জিতে রাজস্থান।এই জয়ের ফলে সাত ম্যাচ খেলে ৬ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের ষষ্ঠ স্থানে উঠে এল রাজস্থান রয়্যালস। বিপরীতে সাত ম্যাচ খেলে ২ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার অষ্টম স্থানে অবস্থান করছে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ।

এদিন টস হেরে ব্যাট করতে নেমেছিল রাজস্থান। দিল্লির অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামে একাই সব আলো নিজের দিকে টেনে নেন জস বাটলার। ৬৪ বলে ১২৪ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন ইংলিশ ব্যাটসম্যান জস।

ওপেন করতে নেমে বাটলার ১৯ ওভার পর্যন্ত ব্যাট করলেন। ৫৬ বলে সেঞ্চুরি করে ফেলা জস বাটলার পুরো ইনিংসে ১১টি চার ও ৮টি ছয় মারেন। বাটলার ছাড়াও ব্যাট হাতে অবদান রাখলেন রয়্যালসের অধিনায়ক সাঞ্জু স্যামসন। ৩৩ বলে ৪৮ করে বিজয় শঙ্করের বলে ক্যাচ তুলে ফিরে যান তিনি। বাটলার ও সাঞ্জুর সৌজন্যে রাজস্থান নির্ধারিত ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ২২০ রান তোলে রাজস্থান রয়্যালস।

সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের হয়ে একটি করে উইকেট নেন সন্দ্বীপ শর্মা, রাশিদ খান ও বিজয় শঙ্কর।

২২১ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভালোই করেছিল সানরইজার্স হায়দ্রাবাদ। দুই ওপেনারের ৫৭ রানের পার্টনারশিপ। ২০ বলে ৩১ রান করে মুস্তাফিজের বলে বোল্ড হন মনীশ পান্ডে। ২১ বলে ৩০ রান করেন জনি বেয়ারস্টো। এবারের আসরে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের অধিনায়ক হিসেবে প্রথমবার ব্যাট করতে নেমে ব্যর্থ হলেন কেন উইলিয়ামসন। ২১ বলে মাত্র ২০ রান করেন কেন।

ডেভিড ওয়ার্নারের পরিবর্তে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের প্রথম একাদশে সুযোগ পাওয়া মোহাম্মদ নবী ৫ বলে ১৭ রান করে মুস্তাফিজের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন। ৮ বলে ১০ রান করেন আব্দুল সামাদ। মুস্তাফিজ তাঁর তৃতীয় শিকার বানিয়ে কোন রান করার আগেই রাশিদ খানকে ফিরেয়ে দেন। এদিন মুস্তাফিজদের বোলিংয়ের সামনে জ্বলে উঠতে পারলেন না হায়দ্রাবাদের ব্যাটসম্যানরা। ফলে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৬৫ রান তুলল সানরাইজার্স।

বল হাতে রাজস্থান রয়্যালসের হয়ে ২০ রান খরচায় ৩টি উইকেট নেন মুস্তাফিজুর রহমান। ২৯ রানে ৩ উইকেট নেন ক্রিস মরিস। এছাড়া একটি করে উইকেট নিয়েছেন কার্তিক তিয়াগি ও রাহুল তেওয়াটিয়া।

শতরান ছাড়ানো (১২৪) ইনিংসে ম্যাচের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হন জস বাটলার।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

রাজস্থান রয়্যালসঃ ২২০/৩ (২০ ওভার) বাটলার ১২৪, জয়সওয়াল ১২, স্যামসন ৪৮, পরাগ ১৫*, মিলার ৭*; সন্দ্বীপ ৪-০-৫০-১, রাশিদ ৪-০-২৪-১, খলিল ৪-০-৪১-০, বিজয় ৩-০-৪২-১

সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদঃ ১৬৫/৮ (২০ ওভার) মনীশ ৩১, বেয়ারস্টো ৩০, উইলিয়ামসন ২০, কেদার ১৯, নবী ১৭, সামাদ ১০, ভুবনেশ্বর ১৪*; কার্তিক ৪-০-৩২-১, মুস্তাফিজ ৪-০-২০-৩, মরিস ৪-০-২৯-৩, তেওয়াটিয়া ৪-০-৪৫-১

ফলাফলঃ রাজস্থান রয়্যালস ৫৫ রানে জয়ী

ম্যাচ সেরাঃ জস বাটলার (রাজস্থান রয়্যালস)।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

বিশ্বকাপ ভাবনায় এবারের ডিপিএল টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে

Read Next

মুদ্রার এপিঠ ওপিঠ দেখে বিচলিত নন শান্ত

Total
1
Share