কোহলিকে পেছনে ফেলে বাবরের বিশ্বরেকর্ড

কোহলিকে পেছনে ফেলে বাবরের বিশ্বরেকর্ড

২০১৬ সালের ৭ সেপ্টেম্বর ম্যানচেস্টারে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি অভিষেক হয় বাবর আজমের। সময়ের পরিক্রমায় সেই বাবর আজম এখন পাকিস্তানের তিন ফরম্যাটের অধিনায়ক। তিন ফরম্যাটেই ব্যাটসম্যানদের র‍্যাংকিংয়ের উপরের দিকে থাকা বাবর ছুটে চলেছেন দুরন্ত গতিতে। প্রায় রোজই গড়ছেন নতুন কোন রেকর্ড।

রেকর্ডের বেলায় সর্বশেষ সংযোজন এসেছে ২৫ এপ্রিল। হারারেতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২৪ রানে জেতা ম্যাচে পাকিস্তান দলপতি খেলেন ৪৬ বলে ৫২ রানের ইনিংস। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ১৮ তম বার ফিফটির দেখা পাবার দিন বাবর ছুয়েছেন ২০০০ রানের মাইলফলক, সেটাও আবার রেকর্ড গড়ে।

৫৪ ম্যাচের ৫২ ইনিংসে ব্যাট করা বাবরের রান এখন ২০৩৫। দুই হাজারি ক্লাবে প্রবেশ করা ১০ ব্যাটসম্যানদের মধ্যে বাবরই দ্রুততম। ইনিংসের বিচারে তো বটেই সময়ের বিবেচনাতেও ভারতীয় দলপতি ভিরাট কোহলিকে পেছনে ফেলেছেন বাবর।

৫৬ ইনিংসে ২০০০ রান পূর্ণ করেছিলেন ভিরাট, অভিষেকের পর থেকে খেলতে হয়েছিল ৮ বছর ২১ দিন। বাবরের খেলতে হয়েছে ৪ বছর ২৩০ দিন।

আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে দ্রুততম ২০০০ রান-

১. বাবর আজম (পাকিস্তান)- ৫২ ইনিংসে
২. ভিরাট কোহলি (ভারত)- ৫৬ ইনিংসে
৩. অ্যারন ফিঞ্চ (অস্ট্রেলিয়া)- ৬২ ইনিংসে
৪. ব্রেন্ডন ম্যাককুলাম (নিউজিল্যান্ড)- ৬৬ ইনিংসে
৫. মার্টিন গাপটিল (নিউজিল্যান্ড)- ৬৮ ইনিংসে

৬. পল স্টারলিং (আয়ারল্যান্ড)- ৭২ ইনিংসে
৭. ডেভিড ওয়ার্নার (অস্ট্রেলিয়া)- ৭৩ ইনিংসে
৮. রোহিত শর্মা (ভারত)- ৭৭ ইনিংসে
৯. এউইন মরগান (ইংল্যান্ড)- ৮৪ ইনিংসে
১০. মোহাম্মদ হাফিজ (পাকিস্তান)- ৮৯ ইনিংসে।

২০১৮ সালের ৪ নভেম্বর দ্রুততম ১০০০ রানের রেকর্ড (২৬ ইনিংসে) গড়েছিলেন বাবর। যা পরবর্তীতে (২০ মার্চ, ২০২১) ভেঙে দেন ইংল্যান্ডের ডেভিড মালান (২৪ ইনিংসে)। ভিরাট কোহলির ১০০০ রান করতে খেলতে হয়েছিল ২৭ ইনিংস।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

ক্যান্ডি টেস্ট ড্র হওয়াটাকে ভালো বলছেন টাইগার অধিনায়ক

Read Next

আসরের প্রথম সুপার ওভারে দিল্লির জয়

Total
10
Share