ক্যান্ডি টেস্ট ড্র হওয়াটাকে ভালো বলছেন টাইগার অধিনায়ক

ক্যান্ডি টেস্ট ড্র হওয়াটাকে ভালো বলছেন টাইগার অধিনায়ক
Vinkmag ad

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ৬ষ্ঠ ম্যাচে এসে পয়েন্ট পেল বাংলাদেশ। আগের ৫ ম্যাচে হারের পর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ক্যান্ডি টেস্টে ড্র করলো মুমিনুল হকের দল। ড্র হওয়া ম্যাচে দুই দলের অর্জন ২০ পয়েন্ট করে। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ৫ ম্যাচ সহ এর আগের ৬ ম্যাচে জয় ছিল একটি, সেটিও ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। সর্বশেষ ঘরের মাঠে ধবলধোলাই হতে হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে। টানা ব্যর্থতার পর স্বস্তির ড্রয়ে আত্মবিশ্বাস বাড়ছে বললেন অধিনায়ক মুমিনুল।

ক্যান্ডির পাল্লেকেলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে রাজত্ব করেছে দুই দলের ব্যাটসম্যানরা। এক ডাবল সেঞ্চুরি সহ চার সেঞ্চুরির ম্যাচে উইকেট পড়েছে মাত্র ১৭ টি। বোলারদের পাশে থাকা টাইগার কাপ্তান মুমিনুল হক বলছেন এমন উইকেটে ড্র হওয়াটাই ভালো ব্যাপার।

ম্যাচ শেষে ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘ভালো উইকেট ছিল। বোলারদের তেমন কিছু ছিল না। আমার মনে হয় এটা মেনে নেওয়াই ভাল। ড্র হওয়াটাই ভাল হয়েছে। বোলিং যদি বলেন, এই উইকেটে বোলারদের যে কিছু ছিল তা বলা কঠিন। বোলাররা চেষ্টা করেছে । উইকেট ব্যাটিং সহায়ক ছিল। আমার মনে হয় সবাই চেষ্টা করেছে। স্পিনার, পেস বোলার যে যখনই আসছে।’

সাদা পোশাকে টানা ব্যর্থতার পর ড্র হওয়া এই ম্যাচে ব্যাটসম্যানদের পাশাপাশি বোলারদের নিয়েও সন্তুষ্ট মুমিনুল। বিশেষ করে পেসার তাসকিন আহমেদকে নিয়ে প্রকাশ করলেন উচ্ছ্বাস। এক ইনিংস বল করার সুযোগ পেয়ে টাইগার পেসারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ৩০ ওভার বল করেছেন, নিয়েছেন ৩ উইকেট। ব্যাট হাতে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছে নাজমুল হোসেন শান্ত, মুমিনুল হক। তামিমের জোড়া ফিফটির সাথে এক ইনিংস ব্যাট করতে নেমে ফিফটি তুলে নেন মুশফিকুর রহিম, লিটন দাসও।

দলগত পারফরম্যান্স নিয়ে অধিনায়ক মুমিনুল বলেন, ‘আমরা গত হোম সিরিজ-অ্যাওয়ে সিরিজে ওইরকম রেজাল্ট করতে পারিনি। একটা হোম সিরিজ হারার পর বিদেশে টেস্ট ড্র করতে পারা আমার কাছে মনে হয় ভাল একটা দিক। সেকেন্ডে টেস্টে অবশ্যই সবার ভেতরে আত্মবিশ্বাস দেবে। সবাই দলগতভাবে খেলেছে। বাংলাদেশ যখনই দলগতভাবে খেলতে পারে তখনই ভাল অবস্থায় থাকে।’

‘ব্যাটিংয়ের কথা যদি বলেন আমাদের টোন সেট করে দিয়েছেন তামিম ভাই। উনার ৯০ রানের ইনিংসটা খুব গুরুত্বপূর্ণ ছিল। আর শান্ত আউটস্টান্ডিং ব্যাট করেছে। আমি সবচেয়ে বেশি খুশি যে দল হিসেবে সবাই ভাল করেছে, দলীয় পারফরম্যান্স ছিল। লিটন, মুশফিক ভাই সবাই। বোলিংয়ে তাসকিন আউটস্ট্যান্ডিং চেষ্টা চালিয়েছে। ও অনেক চেষ্টা করেছে।’

২৯ এপ্রিল থেকে একই ভেন্যুতে শুরু হবে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট। ব্যাটিংকে নিজেদের মূল শক্তি উল্লেখ করে টাইগার অধিনায়ক জানালেন উন্নতি করতে তিন বিভাগেই।

তার মতে, ‘উন্নতির তো শেষ নেই। আমার কাছে মনে হয় তিনটা বিভাগেই মনে হয় উন্নতির জায়গা আছে। নির্দিষ্ট করে বললে ব্যাটিংও উন্নতি করতে হবে। স্পিনাররাও ভাল করেছে। হয়ত পেস বোলিং আরও উন্নতি করতে হবে নতুন বলে। আমার কাছে মনে হয় ব্যাটিং আমাদের মূল শক্তি। কাজেই ব্যাটিং উন্নতি করতে হবে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

‘তাসকিনকে দেখে মনে হয়নি ৬ টেস্ট খেলেছে’

Read Next

কোহলিকে পেছনে ফেলে বাবরের বিশ্বরেকর্ড

Total
1
Share