টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের বাস্তব অবস্থান অনুধাবন করলেন পাপন

পাল্লেকেলেতে ৬ উইকেটের তৃতীয় দিন

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ঘরের মাঠে টেস্ট সিরিজ হারের পর বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন গণমাধ্যমে ক্ষোভ ঝেড়েছেন। শুধু এবার নয়, এর আগে আফগানিস্তানের বিপক্ষে হার ও ভারতে গোলাপি বল টেস্টে অধিনায়ক, টিম ম্যানেজমেন্টের বেশ কিছু সিদ্ধান্তও মনে ধরেনি তার। তবে এবার টেস্টে দলের পারফরম্যান্স নিয়ে উলটো সুর পাপনের কণ্ঠে। তার মতে বাংলাদেশে টেস্টে দুর্বল, দুর্বলতা কাটিয়ে উঠতে বিভিন্ন পরিকল্পনা নিলেও কোভিড পরিস্থিতির কারণে সেসব বাস্তবায়ন সম্ভব হচ্ছে না।

বিসিবি সভাপতি মনে করেন দলের জয়ে খুব বেশি খুশি হওয়ার যেমন প্রয়োজন নেই তেমনি দলের হারেও খুব বেশি কষ্ট পাওয়ার কিছু নেই। এমন কিছুতে দলের পারফরম্যান্সে প্রভাব পড়ে বলছেন দেশের ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থার প্রধান।

আজ (২৪ এপ্রিল) রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ নেয়া শেষে গণমাধ্যমের সাথে আলাপে টাইগারদের টেস্ট পারফরম্যান্স মুল্যায়ণে পাপন বলেন, ‘(সাম্প্রতিক সময়ে টেস্টে) হারার পেছনে আমি আগেও বলেছি অনেকগুলো কারণ আছে। অবশ্যই স্ট্র্যাটেজিক জিনিসগুলো আমাদের মতো করে হয়নি, মানে আমরা যেরকম করে খেলে আসছি আগে, সেরকম ছিল না। স্ট্র্যাটেজির অবশ্যই প্রবলেম ছিল এবং একটা কমিউনিকেশন গ্যাপ ছিল।’

‘তারপরও আমি বলব ওয়েস্ট ইন্ডিজের কথা…, আফগানিস্তান নিয়ে কোনো কথাই বলতে চাই না, ওটা আমি আপনাদের সঙ্গে একমত। ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে যদি দেখেন, আমরা ওদের দেশে গিয়ে ওদের সঙ্গে ওডিআই-টি-টোয়েন্টি জিতে আসলাম, ত্রিদেশীয় কাপ ওদের সঙ্গে খেলে কাপ জিতলাম, বিশ্বকাপে ইতিহাসের সর্বোচ্চ রান চেজ করে জিতে আসলাম, এখানেও আমরা ওয়ানডেতে ৩-০ জিতলাম। টেস্টে গিয়ে আমরা হেরে গেলাম। টেস্টে আমরা অবশ্যই দুর্বল। আমরা তো কখনো বলিনি আমরা টেস্টে ভালো, হওয়ার কথা ছিল।’

‘২০১৯ এ আপনাদের যেটা বলেছি, এখন আমরা টেস্টে মনোযোগ দিবো। অবশ্যই এখন আমাদের লক্ষ্য কীভাবে টেস্টে ভালো করা যায়। গত প্রায় দেড় বছর কোভিডের জন্য উলোট পালট হয়ে গেল। যা যা প্রোগ্রাম করেছি, কিছুই করতে পারি নাই। কিন্তু আমি হতাশ না। আমাদের যা পটেনশিয়াল আছে, অবশ্যই আমাদের ভালো না করার কোনো কারণ নাই। কোভিড সিচুয়েশনটা একটু ভালো হলে আমরা ভালো করব।’

দলের জয় পরাজয়ে বাড়তি প্রতিক্রিয়া দলের পারফরম্যান্সে প্রভাব ফেলে উল্লেখ করে বোর্ড সভাপতি আরও যোগ করেন, ‘এটা খুব কঠিন, কিছু করতে পারতেছি না। যা যা প্ল্যান ছিল ডেভেলপমেন্টের, সেটা তো হচ্ছে না কোভিডের না। এটা অনেকেরই হচ্ছে, শুধু একা বাংলাদেশের না। আমি যেটা আপনাদের বলছি, জেতার পর বেশি খুশি হওয়ার কিছু নাই, হেরে গেলে বেশি কষ্ট পাওয়ার কিছু নাই। হারলে তো কষ্ট লাগবেই, আমরা চাই বাংলাদেশ সবগুলো ম্যাচে জিতুক, কিন্তু আমরা এত বেশি বলি, অনেক সময় এটা টিমের ওপর প্রভাব ফেলে।’

‘আপনাদেরকে আমি একটা জিনিস নিশ্চিত করে বলতে পারি যে আমি মনে প্রানে বিশ্বাস করি। আমরা এমন কোনো দল নাই, যাদের হারাতে পারি না, তাই বলে আমরা কিন্তু বেস্ট দল না। কেউ যদি মনে করে আমরা মনে করছি আমরা বেস্ট দল, না, প্রশ্নই উঠে না। কিন্তু আমাদের সে পটেনশিয়াল আছে, সেটা ধারাবাহিক করাটাই বড় চ্যালেঞ্জ।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

আজ মুখোমুখি সাকিবের কোলকাতা ও মুস্তাফিজের রাজস্থান

Read Next

সেরা পাঁচ দলের একটি হওয়ার দিন আর বেশি দূরে নয়ঃ পাপন

Total
1
Share