সামর্থ্য নিয়ে বিশ্বাসের ফলই পেলেন শান্ত

সামর্থ্য নিয়ে বিশ্বাসের ফলই পেলেন শান্ত

নাজমুল হোসেন শান্তর সামর্থ্য নিয়ে সংশয় ছিলনা কখনোই। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) যেসব খেলোয়াড়ের পেছনে সবচেয়ে বেশি সময় বিনিয়োগ করেছে তাদেরই একজন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে শুরুটা হয়েছে বেশ মলিন, তিন ফরম্যাটে সুযোগ পেয়েও মেলে ধরতে পারছিলেন না নিজেকে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ক্যান্ডি টেস্টের প্রথমদিনেই সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে শান্ত জানালেন নিজেকে প্রমাণ করার কিছু নেই, নিজের প্রতি থাকা বিশ্বাসের ফলই পেলেন।

শান্তর অপরাজিত ১২৬ রানের সাথে তামিম ইকবালের ৯০ ও অধিনায়ক মুমিনুল হকের অপরাজিত ৬৪ রানে ভর করে প্রথম দিনে ২ উইকেটে বাংলাদেশের স্কোরবোর্ডে ৩০২ রান।

গত বছর পাকিস্তান ও জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে শান্ত আভাস দিয়েছিলেন নিজের ছন্দে ফেরার। তবে সর্বশেষ ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজে আবারও মলিন পারফরম্যান্স এই তরুণের। ৪ ইনিংস ব্যাট করে করতে পারেননি ৪০ রানের বেশি।

আজ (২১ এপ্রিল) লঙ্কা দ্বীপে ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরিটি হাঁকিয়েছেন বেশ ঠান্ডা মাথায়। ২৩৫ বলে ছুঁয়েছেন তিন অঙ্ক, দিন শেষ করেছেন ২৮৮ বলে ১৪ চার ১ ছক্কায় ১২৬ রানে। যেখানে স্পষ্ট বাড়তি কোন তাড়াহুড়ো ছিলনা, দিনের ৯০ ওভারের ৮৮ ওভারই ক্রিজে ছিলেন এই বাঁহাতি।

দিন শেষে ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে শান্ত নিজের ইনিংস প্রসঙ্গে বলেন,

‘আমার কাছে মনে হয় যে নিজেকে প্রমাণ করার কিছু নাই। আমার বিশ্বাস ছিল আমি রান করতে পারব। কারণ শেষ পাঁচ-ছয় মাস অনেক পরিশ্রম করেছি। হ্যা, রেজাল্ট আসেনি। কিন্তু ওই বিশ্বাসটা ছিল যে বড় রান করতে পারবো। এখানে প্রমাণের কিছু নেই।’

ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই বিদায় নেয় ওপেনার সাইফ হাসান (০)। এরপর ক্রিজে এসে তামিম ইকবালের সাথে ১৪৪ রানের জুটি। তামিম ৯০ রানে ফিরলেও পরে মুমিনুলকে নিয়ে অবিচ্ছেদ্য ১৫০ রানের জুটি গড়ার পথে শান্ত তুলে নেন সেঞ্চুরি।

তামিমের সাথে জুটি কি কথা হয়েছে জানাতে গিয়ে ২২ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান বলেন,

‘তামিম ভাই খুব ভালো ব্যাট করছিল। ওটা আমাকে হেল্প করছি। উনি দ্রুত রান করছিল। তাই আমি সময় নিতে পেরেছি। সারাদিনে আমি অমন কিছু চিন্তা করি নাই। আমি শুধু চিন্তা করেছি বল দেখবো, খেলবো। আমি বলের ম্যারিট অনুযায়ী খেলার চেষ্টা করেছি। ইনিংসটা খুব গোছানো ছিল, তাড়াহুড়ো করি নাই। এটা খুব গুরুত্বপূর্ণ ছিল।’

‘আমি যখন উইকেটে গেছি তামিম ভাই একটা কথা বলছিল উইকেট ভালো। ওই অনুযায়ী ব্যাটিং করো। ওটাই মাথায় ছিল। বল দেখছি, খেলছি। উইকেট নিয়ে বেশি চিন্তা করি নাই। যদিও নতুন বলে একটু সুইং করতেছিল। কিন্তু ইতিবাচক ছিলাম, ওটাই কাজে দিয়েছে।’

দ্বিতীয় দিন নিজের ইনিংসকে কোথায় দেখতে চান প্রশ্নের জবাবে শান্ত বলেন,

‘আমি যেটা বললাম প্রথম সেশনে ব্যাটিংটা খুবই। প্রথম সেশনটা কীভাবে ভালো ব্যাট করা যায়। সারাদিন ইতিবাচক থাকা। শুধু বল দেখবো, খেলবো। যত লম্বা করা যায়।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

১ সেঞ্চুরি, ২ ফিফটিতে প্রথম দিন বাংলাদেশের

Read Next

বেয়ারস্টোর ব্যাটে হায়দ্রাবাদের প্রথম জয়

Total
9
Share