কোলকাতাকে হারিয়ে ব্যাঙ্গালোরের জয়ের হ্যাটট্রিক

কোলকাতাকে হারিয়ে ব্যাঙ্গালোরের জয়ের হ্যাটট্রিক

ছন্দে ফেরা হল না কোলকাতার; জয়ের হ্যাট-ট্রিক করল কোহলির ব্যাঙ্গালোর। ম্যাক্সওয়েল-ডি ভিলিয়ার্সের ব্যাটিং ঝড়ে রানের পাহাড় গড়ে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর (আরসিবি)। বোলারদের পর ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় ম্যাচ হারল কোলকাতা নাইট রাইডার্স (কেকেআর)। মরগান, রাসেল, সাকিব ব্যাটে রান পেলেও, বড় করতে পারেননি ইনিংস। ৩৮ রানে কেকেআরকে হারাল আরসিবি।

এবারের আইপিএল আসরে টানা ৩ জয় রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের। কোলকাতাকে আজ হারিয়ে কোহলির দল উঠে আসল পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে।

চেন্নাইয়ের এমএ চিদাম্বরম স্টেডিয়ামে টসে জিতে আগে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয় রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে দুই উইকেট বরুণ চক্রবর্তীর দখলে। ভিরাট কোহলি ও রজত পাতিদারকে দ্রুতই ফেরালেন তিনি। বরুণের করা দ্বিতীয় বলে বড় শট খেলতে গিয়ে মিসটাইম কোহলির; অবিশ্বাস্য ক্যাচ নিলেন রাহুল ত্রিপাঠি। ওভারের শেষ বলে বোল্ড হয়ে গেলেন পাতিদার।

শুরুতে দুই উইকেট হারিয়ে বিপাকে পড়া আরসিবিকে টেনে তুলেন দেবদূত পাডিকাল ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। তবে তাঁদের ৮৬ রানের পার্টনারশিপ ভেঙে কোলকাতাকে ব্রেকথ্রু এনে দেন প্রসিধ কৃষ্ণা। ২ বাউন্ডারির সাহায্যে ২৮ বলে ২৫ রান করে ক্রিজ ছাড়েন পাডিকাল।

কোলকাতার বোলারদের পাত্তা না দিয়ে চিপকে চার, ছয়ের বন্যা বইয়ে দেন ম্যাক্সওয়েল। তবে ৪৯ বলে ৭৮ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলে প্যাট কামিন্সের বলে আউট হয়ে সাজঘরে ফিরে যান গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। ৯টি চার ও তিনটি ছক্কা আসে তাঁর ব্যাট থেকে। এরপর বাকিটা সময় এবি ডি শো চলে।

২০ ওভারে শেষে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর ৪ উইকেটে ২০৪ রান তুলল স্কোরবোর্ডে। ডি ভিলিয়ার্স ৩৪ বলে ৭৬ রান করে অপরাজিত রইলেন। তাঁর সঙ্গে ৪ বলে ১১ রানে অপরাজিত কাইল জেমিসন।

কেকেআরের হয়ে বল হাতে বরুণ চক্রবর্তী ৩৯ রান খরচে দখলে নেন ২ উইকেট। এছাড়া প্যাট কামিন্স ও প্রসিধ কৃষ্ণা শিকার করেন ১টি করে উইকেট।

২০৫ রানের লক্ষ্য তাড়ায় কাইল জেমিসনকে দ্বিতীয় ওভারে পরপর দুটি ছয় মারার পর তিন নম্বর ছয় মারতে গিয়ে আউট শুবমান গিল। তাঁর ২১ রানের ইনিংসে ছিল ২ চার ও ২ ছয়।

এরপর নিতিশ রানা ও রাহুল ত্রিপাঠির মধ্যে ৩৪ রানের পার্টনারশিপ হয়। তবে দ্রুতই বিদায় নেন এ দুজন। ২৫ রান করেন রাহুল। দুটি চার ও একটি ছয়ের সাহায্যে ১৮ রান করে আউট হন রানা। মাত্র ২ রান করে আউট হন দিনেশ কার্তিক। ২৯ রান করে সাজঘরে ফিরে যান কেকেআর অধিনায়ক এউইন মরগান।

কিন্তু ২৬ রান করে আউট হয়ে সঙ্গী আন্দ্রে রাসেলের কাজ আরও কঠিন করে দেন সাকিব আল হাসান। অন্যদিকে ২০ বলে ৩১ রান করে আউট হন রাসেল। তিনটি চার ও দুটি চার আসে তাঁর ব্যাট থেকে। নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৬৬ রান তুলতে সক্ষম হয় কেকেআর।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by cricket97 (@cricket97bd)

আরসিবির হয়ে ৩ উইকেট নেন কাইল জেমিসন। ২টি করে উইকেট নিয়েছেন যুজবেন্দ্র চাহাল ও হারশাল প্যাটেল। ১ উইকেট নেন ওয়াশিংটন সুন্দর।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরঃ ২০৪/৪ (২০ ওভার) কোহলি ৫, পাডিকাল ২৫, ম্যাক্সওয়েল ৭৮, ডি ভিলিয়ার্স ৭৬*, জেমিসন ১১; বরুণ ২/৩৯, কামিন্স ১/৩৪, প্রসিধ ১/৩১

কোলকাতা নাইট রাইডার্সঃ ১৬৬/৮ (২০ ওভার) গিল ২১, রানা ১৮, ত্রিপাঠি ২৫, মরগান ২৯,  কার্তিক ২, সাকিব ২৬, রাসেল ৩১, কামিন্স ৬; জেমিসন ৩/৪১, ওয়াশিংটন ১/৩৩, চাহাল ২/৩৪, হারশাল ২/১৭

ফলাফলঃ রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর ৩৮ রানে জয়ী

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে কেবল কোলকাতায় খেলবে পাকিস্তান

Read Next

বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজে ম্যাচ অফিসিয়াল ও ধারাভাষ্যকার যারা

Total
3
Share