‘ডিমোরালাইজড সৌম্য’ শৈশবের গুরুর সান্নিধ্যে

'ডিমোরালাইজড সৌম্য' শৈশবের গুরুর সান্নিধ্যে

খারাপ সময়ে ক্রিকেটারদের শৈশব কোচের সান্নিধ্যে যাওয়ার ঘটনা নিয়মিত ব্যাপারই। বাংলাদেশ ক্রিকেটে সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মুমিনুল হকদের আস্থার জায়গা নাজমুল আবেদিন ফাহিম, মোহাম্মদ সালাউদ্দিনরা। এবার সে পথে হাঁটলেন সৌম্য সরকারও, মিরপুরে কাজ করছেন বয়সভিত্তিকে কোচ হিসেবে পাওয়া মিজানুর রহমান বাবুলের সাথে। ইতোমধ্যে নিজের সমস্যা ধরতে পেরে সমাধানের চেষ্টাও করছেন এই বাঁহাতি।

টেস্ট দলে বিবেচিত না হওয়াতে শ্রীলঙ্কা সফরের ২১ সদস্যের প্রাথমিক স্কোয়াডে জায়গা মিলেনি সৌম্যের। রঙিন পোশাক আর সাদা বলেও সময়টা ঠিক তার হয়ে কথা বলছেনা। টিম ম্যানেজমেন্টের সিদ্ধান্তে টপ অর্ডার ছেড়ে ৭ নম্বরে অবনমন, সেখান থেকে এক সিরিজের ব্যবধানের আবারও টপ অর্ডারে ফিরে আসা সহ নিজের ভূমিকা বদলে বেশ ভোগান্তিতে এই টাইগার ব্যাটসম্যান।

তিন ফরম্যাট মিলিয়ে সর্বশেষ ৯ ইনিংসে ফিফটি একটি, এর বাইরে ৩০ পেরোনো ইনিংসও আছে কেবল একটি। নিউজিল্যান্ড সফরের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি খেলা ৫১ রানের ইনিংসটিতে নিজের সামর্থ্যের জানান দিতে পারলেও হতে পারছেন না ধারাবাহিক।

জাতীয় দল বর্তমানে শ্রীলঙ্কাতে হলেও গত কয়েকদিন ধরেই মিরপুর একাডেমি মাঠে ঘাম ঝরাতে দেখা যাচ্ছে সৌম্যকে। গতকাল (১২ এপ্রিল) থেকে কাজ করেছেন বয়সভিত্তিক কোচ মিজানুর রহমান বাবুলের সাথে। বিসিবির এই কোচের সাথে সম্পর্কটা ছোটবেলা থেকেই। মাঠে পুরোনো কোচকে পেয়ে সমস্যার সমাধান চাইতে দ্বিধা করলেন না এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

সৌম্যের সাথে কাজ করা প্রসঙ্গে মিজানুর রহমান বাবুল আজ (১৩ এপ্রিল) মিরপুরে সাংবাদিকদের বলেন, ‘আসলে গতকাল আমি এখান থেকে যাচ্ছিলাম, সৌম্যের সাথে দেখা। বলল যে স্যার আমার সাথে একটু কাজ করেন। সৌম্যদের যে ব্যাচটা অনূর্ধ্ব-১৭ থেকে আমি ওদের কোচ ছিলাম। দিনশেষে ওরা মনে করে যে পুরোনো স্যারদের কাছে ফিরে যাই। স্যাররাতো শুরু থেকে আমাদের দেখেছে, এখন কি অবস্থায় আছি…।’

‘সে আস্থা থেকে হয়তো বলছে স্যার একটু দেখেন। গতকাল কিছুক্ষণ ছিলাম, আজকে আসলাম। সৌম্য অনেকদিন রান করতে পারছেনা কিছুটাতো ডিমোরালাইজড। যেহেতু আমাদের দিয়ে হাতেখড়ি, কিছু দায় দায়িত্ব থাকে তাদের উপর। আমরা যদি কিছুটা হলেও তাদের ফর্মে ফিরিয়ে আনতে পারি সেটা আমাদের জন্যও ভালো লাগবে, ওদের জন্যও। নিউজিল্যান্ডে খেলা দেখলাম, ভালো খেলেনি। আমার কাছে যেটা মনে হয়েছে অল্প কিছু টেকনিক্যাল সমস্যাতো হয়েছেই।’

‘কিন্তু ওরা যদি নিজে থেকে না আসে আমরা কিন্তু যাইনা। যেহেতু এখন জাতীয় দলে খেলে ওদের কোচ আছে। নিজে থেকেই বলেছে, আমারও মন চেয়েছে সে সূত্র ধরেই কাজ করলাম। গতকালকে এসেছি, আজকেও আসলাম। আমারও ভালো লাগে কাজ করতে যারা এরকম কিছুটা সমস্যার মধ্যে আছে। আমার অবদান যদি তাকে ভালো জায়গায় নিয়ে যেতে পারে আমারও ভালো লাগবে।’

ব্যাটিংয়ে ক্ষেত্রে সমস্যাটা সৌম্যের ভারসাম্য তৈরিতে বলে মনে করেন মিজানুর রহমান বাবুল। জাতীয় দলের কোচদের সাথে কাজ করতে গিয়ে ঠিকঠাক সমন্বয় না হওয়াকেও দায়ী করছেন বিসিবির এই কোচ।

তার মতে, ‘সৌম্য বুঝতে পেরেছে যে ওর ব্যালেন্সিংয়ে কিছুটা সমস্যা ছিল। ওটা নিয়েই কাজ করা হচ্ছে, অন্য সব ঠিকঠাক আছে। হয় কি একেক কোচের একেকরকম থিম থাকে। যারা আসছে কিংবা কাজ করছে তারা তারা হয়তো আরো কিভাবে তার উন্নতি করা যায় সে চিন্তায় করেছে। কিন্তু হয়তো ওটাই তার জন্য খারাপ হয়েছে। কোচরা আসলে খারাপ চায়না ভালোই চায়, কিন্তু ও হয়তো সেটা ভালোভাবে নিতে পারেনি।’

‘ওর সেটাপ টা নড়ে গেছে। ও নিতে পারেনি, কোচও…মানে আমার কাছে মনে হয় সমন্বয় হয়নি ঠিকমত। আর বেশি যে টেকনিক্যালি সমস্যা হয়েছে তাও না, অল্প কিছু। ও নিজে নিজেও বুঝতে পারছিল সমস্যাটা কোথায়। আমার মনে হয় আবার ঠিক হয়ে যাবে শীঘ্রয়ই।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

মার্চ মাসে আইসিসির সেরা খেলোয়াড় ভুবনেশ্বর ও লি

Read Next

ক্রিকেট ছেড়ে অন্য কাজে অনেকেই, নিজে ভালো থাকলেও মন কাঁদে রাব্বির

Total
5
Share