তরুণদের জন্য মিরাজকে উদাহরণ হিসেবে দাঁড় করালেন সুজন

তরুণদের জন্য মিরাজকে উদাহরণ হিসেবে দাঁড় করালেন সুজন

বাংলাদেশ দলে সিনিয়র ক্রিকেটারদের অবর্তমানে তরুণদের দায়িত্ব নেওয়া নিয়ে সাম্প্রতিক সময়ে প্রশ্ন উঠেছে বেশ ভালোভাবে। অদূর ভবিষ্যতে বাস্তবতা বলছে সিনিয়র ক্রিকেটারদের এক সাথে পাওয়ার সম্ভাবনা খুব কমই। শ্রীলঙ্কা সফরে দলের তরুণদের কাছ থেকে সমান দায়িত্ব নেওয়ার মানসিকতা চান টিম লিডার খালেদ মাহমুদ সুজন। তরুণদের জন্য উদাহরণ হিসেবে দাঁড় করিয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজকে।

টেস্ট ক্রিকেটে ব্যর্থতার বৃত্তেই ঘুরপাক খাচ্ছে বাংলাদেশ। ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে হতে হয়েছে হোয়াইট ওয়াশ। নিউজিল্যান্ড সফরে টেস্ট না থাকলেও ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টি তে ধবল ধোলাই হয়েছে দেশে টাইগাররা।

হতাশাজনক পারফরম্যান্সকে সঙ্গী করেই আজ (১২ এপ্রিল) শ্রীলঙ্কার বিমানে চড়েছে বাংলাদেশ। মুমিনুল হকের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ দলের সাথে টিম লিডার হিসেবে গিয়েছেন বিসিবি পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন। যাওয়ার আগে বিমানবন্দরে গণমাধ্যমের সাথে কথা বলেন সুজন।

লম্বা সময় জাতীয় দলকে প্রতিনিধিত্ব করেও দলকে ধারাবাহিক পারফরম্যান্স দিতে না পারা তরুণদের জন্য বার্তা কি থাকবে এমন প্রশ্ন রাখা হয় তার কাছে। জবাবে তিনি বলেন তার চোখে তরুণ, অভিজ্ঞ সবারই দলে সমান দায়িত্ব।

সুজন জানান, ‘আমি তরুণ বলিনা, আমার কাছে সবাই সমান আসলে। যদিও তামিম, মুশফিক মুমিনুলের অভিজ্ঞতা অনেক। তারপরও দায়িত্ব সবার সমান। জাতীয় দলের জার্সি গায়ে দিয়ে আপনি যখন নামবেন তখন দায়িত্বটা সবারই সমান। ভালো খেলার দায়িত্ব সবারই।’

২০১৬ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে অভিষেকেই দারুণ পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ। দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজে সেবার শিকার করেন ১৯ উইকেট। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জয় পাওয়া ঢাকা টেস্টেই তুলে নেন ১২ উইকেট।

মিরাজের উদাহরণ টেনে খালেদ মাহদুম সুজন তরুণদের উদ্দেশে বলেন, ‘এর আগে আমরা দেখেছি ইংল্যান্ডের বিপক্ষে মিরাজের অনবদ্য পারফরম্যান্স। আমার মনে হয় এটা সবারই মনে রাখতে হবে। এ ক্ষেত্রে উদাহরণ হতে পারে মিরাজ, তরুণ বয়সেই মিরাজ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশকে টেস্ট জিতিয়েছে। আমাদের সব ক্রিকেটারের মধ্যেই এই সামর্থ্য আছে। এই জিনিসটা মাথায় নিয়েই খেলতে হবে, পজিটিভ, আক্রমনাত্মক ক্রিকেট।’

দুই বছর আগে দলের ক্রিকেটারদের যে মানসিকতায় দেখেছেন সেরকমই এখন থেকে দেখতে চান জাতীয় দলের সাবেক এই অধিনায়ক, ‘আমি সবসময় পজিটিভ ক্রিকেট খেলার কথা বলি, অ্যাটিচিউড অনেক গুরুত্বপূর্ণ। যে অ্যাটিচিউড আমি দেখেছি দুই বছর আগে। সেরকমটা দেখতে চাই, মাঠে লড়াই করবে, ফল কি হবে পরে দেখা যাবে। কিন্তু আমরা লড়াই করতে চাই।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

চট্টগ্রাম টেস্টের ভুল শ্রীলঙ্কায় করতে চায়না বাংলাদেশ

Read Next

নতুন অধিনায়কে আজ শুরু মুস্তাফিজদের আইপিএল মিশন

Total
9
Share