আইসিসি প্লেয়ার অব দ্য মান্থ: মনোনীত হলেন যারা

আইসিসি প্লেয়ার অব দ্য মান্থ- মনোনীত হলেন যারা

দ্য ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) সম্প্রতি চালু করেছে প্লেয়ার অব দ্য মান্থ প্রথা। পুরুষ ও নারীদের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পারফরম্যান্সের বিচারে আইসিসি বেছে নেয় মাসের সেরা ক্রিকেটার। তিন ফরম্যাটই আসে বিবেচনায়।

২০২১ সালের মার্চ মাসের জন্য মনোনীতদের তালিকা প্রকাশ করেছে আইসিসি।

পুরুষ বিভাগের মনোনয়ন তালিকায় রয়েছেন- রাশিদ খান (আফগানিস্তান), ভুবনেশ্বর কুমার (ভারত) এবং শন উইলিয়ামস (জিম্বাবুয়ে)।

নারী বিভাগের মনোনয়ন তালিকায় রয়েছেন- রাজেশ্বরী গায়কোয়াড় (ভারত), পুনম রাউত (ভারত) এবং লিজেল লি (দক্ষিণ আফ্রিকা)।

MONTH-16x9-NOM - Announce
Photo: ICC

www.icc-cricket.com/awards -এ লিংকে গিয়ে ভক্তরা তাদের পছন্দমত খেলোয়াড়দের ভোট দিতে পারবে।

পুরুষ বিভাগে মনোনয়ন পাওয়া আফগান লেগ স্পিনার রাশিদ খান জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২য় টেস্টে ১১ উইকেট নিয়ে দলের জয়ে মুখ্য ভূমিকা রাখেন। এছাড়াও একই দলের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে ৩-০ ব্যবধানে জয় পাওয়া ৩ ম্যাচে ৬ উইকেট নিয়েছিলেন রাশিদ।

ভারতের পেসার ভুবনেশ্বর কুমার ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ৪.৬৫ ইকোনমিতে ৬ উইকেট নিয়েছিলেন। এছাড়াও একই দলের বিপক্ষে ৫ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে ৬.৩৮ ইকোনমিতে ৪ উইকেটও নিয়েছেন তিনি।

জিম্বাবুয়ের শন উইলিয়ামস আফগানিস্তানের বিপক্ষে ২ ম্যাচের টেস্ট সিরিজে ২৬৪ রানের পাশাপাশি ২ উইকেটিও নিয়েছিলেন। এছাড়াও একই দলের বিপক্ষে ৩ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে ১২৮.৫৭ স্ট্রাইক রেটে ৪৫ রান করেছিলেন।

অন্যদিকে নারীদের মনোনয়ন তালিকায় স্থান পাওয়া ভারতের রাজেশ্বরী গায়কোয়াড় দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সীমিত ওভারের ২টি সিরিজেই সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রহ করেছিলেন। ৫ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ৩.৫৬ ইকোনমিতে ৮ উইকেটের পাশাপাশি ৩ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে ৪.৭৫ ইকোনমিতে ৪টি উইকেটও নিয়েছিলেন।

দক্ষিণ আফ্রিকার লিজেল লি ভারতের বিপক্ষে ৪ ম্যাচ খেলে ১টি সেঞ্চুরি ও ২টি সেঞ্চুরি আদায় করে নেন। এছাড়াও নারী ওয়ানডে ব্যাটিং ক্রিকেটে শীর্ষস্থান দখল করেন তিনি।

পুনম রাউত দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের ৫ ম্যাচে ৮৭.৬৬ গড় ও ৭১.৬৬ স্ট্রাইক রেটে ২৬৩ রান করেছিলেন। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজে ভারতের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহ করেছিলেন তিনি। লির মতই ২টি অর্ধশতক এবং ১টি শতক হাঁকিয়েছিলেন।

আইসিসি প্লেয়ার অব দ্য মান্থ এর ভোটিং প্রসেসঃ

দুই ক্যাটাগরিতে (নারী ও পুরুষ) মনোনীতরা শর্টলিস্টেড হন এক মাসে অন ফিল্ডে তাদের পারফরম্যান্স ও মাসে তাদের অর্জন দিয়ে।

মনোনীতরা আইসিসির স্বাধীন ভোটিং অ্যাকাডেমি ও বিশ্বজুড়ে সমর্থকদের ভোট পান। সর্বোচ্চ ভোট পাওয়া ক্রিকেটার হন আইসিসি ক্রিকেটার অব দ্য মান্থ। ভোটিং অ্যাকাডেমি তাদের ভোট দেন ই-মেইলের মাধ্যমে, ভোটের ৯০ শতাংশ নির্ধারিত হয় তাদের ভোটের মাধ্যমে। বাকি ১০ শতাংশ থাকে সমর্থকদের আওতায়।

আইসিসি প্রতি মাসের দ্বিতীয় সোমবার বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করে তাদের ডিজিটাল চ্যানেলে।

আইসিসি ভোটিং অ্যাকাডেমিঃ

আফগানিস্তান- হামিদ কাইয়ুমি ও জাভেদ হাকিম, অস্ট্রেলিয়া- অ্যাডাম কলিন্স ও লিসা স্থালেকার, বাংলাদেশ- তারেক মাহমুদ ও মোহাম্মদ ইসাম, ইংল্যান্ড- কালিকা মেহতা ও ক্লেয়ার টেইলর, আয়ারল্যান্ড- ইয়ান চালেন্ডার ও ইসোবেল জয়েস, ভারত- মনা পার্থস্বারথী ও ভিভিএস লক্ষণ, নিউজিল্যান্ড- মার্ক গিন্টি ও জন রাইট, পাকিস্তান- সোহেল ইমরান ও রমিজ রাজা, দক্ষিণ আফ্রিকা- ফিরদোস মুন্ডা ও মাখায়া এনটিনি, শ্রীলঙ্কা- চাম্পিকা ফার্নান্দো ও রাসেল আরনল্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজ- ইয়ান বিশপ ও অ্যান্ডি রবার্টস, জিম্বাবুয়ে- ট্রিস্টান হোম ও পুমেলেলো এম্বাঙ্গুয়া, অন্যান্য- একেএস সাতিশ ও প্রিস্টন মমসেন।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

মাঠে নামার আগে সতীর্থদের যে বার্তা দিলেন কোহলি

Read Next

ইনজেকশনেই সমাধানের পথ খুঁজছেন শফিউল

Total
32
Share