অবসর নিয়ে তামিমের ভাবনা কি?

মুশফিকদের হয়ে ব্যাট করলেন তামিম

নিঃসন্দেহে বাংলাদেশের ইতিহাসের সেরা ওপেনার তামিম ইকবাল। তামিমের ব্যাটে ভর করে বাংলাদেশ জিতেছে বহু ম্যাচ। এখন পর্যন্ত তিন ফরম্যাটেই বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তামিমই। তবে এবার তামিমের ভাবনায় এলো যেকোন এক ফরম্যাট থেকে ‘অবসর’। দেশের জার্সিতে আরও ৫-৬ বছর খেলতে চান বলেই এক ফরম্যাট কমিয়ে অন্যগুলো আরও দীর্ঘায়িত করতে চান তামিম। তবে নির্দিষ্ট কোন সময়সীমাও স্থির করেননি। যখনই তামিম বুঝবেন যে, এই ফরম্যাটে দেওয়ার মতো আর কিছুই নেয় তখনই জানাবেন বিদায়।

ক্রিকেটবিষয়ক জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম ক্রিকবাজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তামিম ইকবাল বলেছেন তার ভাবনার কথা। দেশের জন্য সেরাটা দিতেই তিন ফরম্যাটের একটি থেকে বিদায় নিতে চান তিনি। তবে এখনই সবকিছু প্রকাশ করতে চাচ্ছেন না বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের এই অধিনায়ক।

‘অবশ্যই ২০২১ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আমার ভাবনায় আছে, এটাতো আর মাত্র ৬ মাস পরেই। আমি ৩৬ বা ৩৭ বছর বয়সী নই, তবে কেন হবে না?’

‘আমি জানি যে আমি কোন ফরম্যাটটি খেলতে চাই এবং কোন ফরম্যাটটি আমি খুব তাড়াতাড়ি ছেড়ে দিতে চাই, তবে আপাতত সমস্তকিছু প্রকাশ করতে চাই না।’

‘যখন আমি অনুভব করব যে আমাকে এই দুটি ফরম্যাট আরও দীর্ঘায়িত করতে হবে, তখন আমি নিজেকে চাপ দেব না। বার্তাটি খুব স্পষ্ট, আমি যতদূর সম্ভব বাংলাদেশের হয়ে খেলতে চাই এবং আমি চাই দেশের জন্য আমার সেরাটা দিতে। আমি অন্য দুটি ফরম্যাটে আমার সেরাটা দিতে পারি তা নিশ্চিত করার জন্য একটি ফরম্যাট ছেড়ে যেতে চাই। এছাড়া এমন নয় যে আমি টেস্ট ক্রিকেটে আমি ক্লান্ত হয়ে পড়েছি বা টি-টোয়েন্টিতে আমি ক্লান্ত হয়ে পড়েছি, তাই আমি চলে যাচ্ছি। এটা নিশ্চিত করা এই যে অন্য দুটি ফরম্যাটে আমার সেরাটা যেন দিতে পারি।’

‘আমি যদি আরও ৫-৬ বছর খেলতে চাই, তাহলে তিন ফরম্যাটেই টেনে নেয়া খুব কঠিন হবে। সাধারণত আপনি যদি বিশ্বজুড়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটারদের দেখেন তবে আপনি দেখতে পাবেন যে তারা একসাথে সব ফরম্যাট থেকে অবসর গ্রহণ করে না। তারা যেকোনো একটি ফরম্যাটকে বিদায় জানায় আর বাকি দুই ফরম্যাট খেলে, তারপর অবসর নেয়।’

তিন ফরম্যাটের কোনটিতে খেলা ছাড়বেন সেটা পরিস্কার করেননি তামিম ইকবাল।

‘আমি যা বলতে চাই তা হল আমার কাছে যদি এখন মনে হয় বা ছয় মাস বা বছর বা দু’বছর পর… যদি আমার মনে হয় যে আমাকে একটি ফরম্যাট ছেড়ে দিতে হবে তবে আমি একটি ফরম্যাট ছেড়ে দেব।’

‘ওয়ানডে, টেস্ট বা টি-টোয়েন্টির যেকোনোটাই হতে পারে। আমি যে দুইটি ফরম্যাটে দলের হয়ে ভূমিকা রাখতে পারব সেই দুটি ফরম্যাটে খেলে যাব। আর যে ফরম্যাটটিতে আমি মনে করব কিছুই দেওয়ার মতো নেই, সেই ফরম্যাটকে বিদায় জানাব।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

প্রথম টেস্টের পুনরাবৃত্তি, শূন্য জয়ে সিরিজ ড্র

Read Next

দিল্লি ও চেন্নাই শিবিরে করোনার হানা

Total
1
Share