জাতীয় চার নেতাকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করল বিসিএসএ

জাতীয় চার নেতাকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করল বিসিএসএ

স্বাধীনতার সুবর্নজয়ন্তী উদযাপন করল বাংলাদেশ ক্রিকেট সাপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিসিএসএ)। বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বর্ষপূর্তি ও মুজিব বর্ষে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (ডিআইইউ)এর স্থায়ী ক্যাম্পাস মাঠে বিসিএসএ স্বাধীনতা গোল্ড কাপ নামে (২ এপ্রিল, ২০২১ শুক্রবার) দিনব্যাপী এই ক্রিকেট টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়। এই টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করেন বিসিএসএ রেজিস্টার মেম্বারগণ।

জাতীয় চার নেতা- ক্যাপ্টেন (অবঃ) মোহাম্মদ মনসুর আলী (১৯১৯-১৯৭৫), তাজউদ্দিন আহমেদ (১৯২৫-১৯৭৫), সৈয়দ নজরুল ইসলাম (১৯২৫-১৯৭৫) ও আবুল হাসনাত মোহাম্মদ কামরুজ্জামান (১৯২৬-১৯৭৫)- এই চারটি নাম বাংলাদেশের ইতিহাসে উজ্জল নক্ষত্রসম। তাঁদেরকে ছাড়া স্বাধীন বাংলাদেশের ইতিহাস লেখা হয়তো সম্ভব না। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে ১৯৭১ এ স্বাধীন বাংলাদেশের জন্য অপরিসীম ভূমিকা রেখেছেন এই চার নেতা। তাঁদের অবদানের প্রতি শ্রদ্ধাশীল বিসিএসএ স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে তাঁদের স্মরণে আয়োজিত এই ক্রিকেট টুর্নামেন্ট। মাঠের লড়াইয়ে এই স্বাধীনতা গোল্ড কাপে বিসিএসএ মেম্বাররা অংশগ্রহণ করেন।

IMG 20210402 WA0002

ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক এই টুর্নামেন্টে চার ফ্র্যাঞ্চাইজির মালিকানা কিনেছেন বিসিএসএ’র সদস্যরাই। চারটি দল হল- ক্যাপ্টেন (অব) মনসুর আলী একাদশ, তাজউদ্দিন আহমেদ একাদশ, সৈয়দ নজরুল ইসলাম একাদশ, এএইচএম কামরুজ্জামান একাদশ। ক্যাপ্টেন (অব) মনসুর আলী একাদশের মালিকপক্ষে ছিলেন মোহাম্মদ শরফুদ্দিন আহমেদ সাজু, তাজউদ্দিন আহমেদ একাদশে আছেন মনিরুজ্জামান মনির, সৈয়দ নজরুল ইসলাম একাদশে নাজীব কায়সার বিন্দু ও শামসাদ শারমিন এবং এএইচএম কামরুজ্জামান একাদশে তামিম মোহাম্মদ ও তাহসিন জামান নাইম।

চার দলের আইকন প্লেয়ার হিসাবে ছিলেন যথাক্রমে সাদ্দাম হোসেন রুবেল, আরিফুর রহমান, নিশাদ জাহিদ ও তরিকুল ইসলাম।

গত ১৩ মার্চ, রাজধানীর এক রেস্তোরায় বিসিএসএ স্বাধীনতা গোল্ড কাপের ট্রফি উন্মোচন করা হয়। চার দলের মালিকপক্ষ/আইকনদের উপস্থিতিতে ট্রফি উন্মোচন করেন বাংলাদেশ দলের সাবেক অধিনায়ক শাহরিয়ার নাফিস।
সুপার নকআউট ভিত্তিতে চার দল লড়াই এর মাধ্যমে ফাইনাল অনুষ্ঠিত হয়।

ফাইনালে লড়াকু খেলায় তাজউদ্দীন আহমেদ একাদশ ৩ রানে জয় লাভ করে। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে তাজউদ্দীন আহমেদ একাদশ ১৪ ওভারে ১৪৮ রান করে ৬ উইকেটে। সর্বোচ্চ রান করেন হাসান আহমেদ টুটুল, ২০ বলে ২ ছয় ও ৫ চারের মাধ্যমে ৪১ রান করেন তিনি। ব্যাট করতে নেমে সৈয়দ নজরুল ইসলাম একাদশ ১৪ ওভারে ১৪৫ রান করতে সক্ষম হয়। শেষ ওভারে ৮ রান প্রয়োজন হলেও রাজ বাশারের দুর্দান্ত বোলিং দাপটে ৩ রানে জয় তুলে তাজউদ্দীন উদ্দিন আহমেদ একাদশ।

FB IMG 1617371284440
চ্যাম্পিয়ন দলঃ তাজউদ্দিন আহমেদ একাদশ

ফাইনালে ৪২ রান দিয়ে ৪ উইকেট নিয়ে ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়েছেন শাকিল উদ্দিন। ম্যান অব দ্য সিরিজও হয়েছেন শাকিল উদ্দিন।

চার একাদশে যারা খেলেছেন-

ক্যাপ্টেন (অব) মনসুর আলী একাদশ-

সাদ্দাম হোসেন রুবেল (আইকন), রাফসানজানি রানা, ওসমান গনি মিঠু, শরফুদ্দিন আহমেদ সাজু, ইমরান খান, শাফায়েত উদ্দিন রিফাত, ফকরুল ইসলাম জাবের, বজলুল ইমন, ইসমাইল হোসেন আকাশ, আব্দুল্লাহ আল মামুন, আকাশ খান ও রাশিক এহসান প্রান্তিক।

তাজউদ্দিন আহমেদ একাদশ-

আরিফুর রহমান (আইকন), তানজিম উল ইসলাম, সোহেল রানা, সাফায়েত হোসেন নির্ঝর, রাজ বাশার, মাশরাফি ফয়সাল, নাহিদ হাসান, কাজী ইমদাদুল হক কাজল, আব্বাস খান, আমদাদ উল হক, হাসান আহমেদ টুটুল ও মাহমুদুল হাসান শুভ।

সৈয়দ নজরুল ইসলাম একাদশ-

নিশাত জাহিদ (আইকন), মারুফ হোসেন সরকার, আবুল খায়ের, শিরন আলি, তৌহিদুল ইসলাম মোস্তফা, আব্দুল মজিদ, শাকিল উদ্দিন, মাহদির মাহিম, সউদ মিনহাজ, আখলাক হোসেন, স্পর্শ সজীব ও রিপন মইনুদ্দিন।

এএইচএম কামরুজ্জামান একাদশ-

তরিকুল ইসলাম (আইকন), তামিম মোহাম্মদ, তাহসিন জামান নাইম, মোহাম্মদ আলি স্বপন, শফিকুল ইসলাম রানা, আবু তাহের, মোহাম্মদ রিপন, মাহমুদুল হাসান, সাজেদুল ফারহান, তৌহিদুল ইসলাম লিমন, আমান আদনান ও আশরাফ উদ্দিন।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

অ্যান্টিগাতে শেষদিন রানের চূড়া টপকাতে হবে শ্রীলঙ্কাকে

Read Next

জাহানারার ‘গোল্ডেন ডে’ তে রোমাঞ্চিত রুমানা, সালমারা

Total
10
Share