একাদশ সাজাতে হিমশিম খাওয়া সিলেটই চালকের আসনে

একাদশ সাজাতে হিমশিম খাওয়া সিলেটই চালকের আসনে
Vinkmag ad

বঙ্গবন্ধু ২২তম জাতীয় লিগে করোনার থাবা শুরু থেকেই। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে সিলেট বিভাগ। কক্সবাজার শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের অ্যাকাডেমি গ্রাউন্ডে দ্বিতীয় রাউন্ডের একাদশ সাজাতেই হিমশিম খেতে হয় দলটিকে। অলক কপালি, এবাদ হোসেন, খালেদ আহমেদ সহ ৫ জন আইসোলেশনে। ফলে অবশিষ্ট ১১ জনের সবাই মাঠে নেমেছেন। ফিল্ডিং করার সময় পানি নিয়ে যাওয়ার মত কোন খেলোয়াড়ও নেই। অথচ এমন জোড়া তালি দিয়ে একাদশ সাজানো সিলেটই তৃতীয় দিন শেষে চালকের আসনে।

জাকির হাসানের সেঞ্চুরির পর রাহাতুল ফেরদৌসের ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে প্রথম ইনিংসে সিলেট বিভাগের ৯০ রানের লিড। নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে আসাদউল্লাহ গালিবের অপরাজিত ৭৪ রানে তৃতীয় দিন শেষে স্কোরবোর্ডে ৬ উইকেটে ১৮৩। ইতোমধ্যে লিড দাঁড়িয়েছে ২৭৩ রানের।

প্রথম ইনিংসে সিলেটের করা ৩৭০ রানের জবাবে দ্বিতীয় দিন শেষে ঢাকা বিভাগের স্কোরবোর্ডে ৬ উইকেটে ২৩৯ রান। আজ (৩১ মার্চ) তৃতীয়দিন সেঞ্চুরির দেখা পান ৮৯ রানে অপরাজিত থাকা শুভাগত হোম। ৩৪ রানে অপরাজিত থাকা আরাফাত সানি জুনিয়র থেমেছেন ৩৭ রানে। আগেরদিন তিন উইকেট নেওয়া বাঁহাতি স্পিনার রাহাতুল ফেরদৌস আজ ঢাকা বিভাগের বাকি চার উইকেটের সবকটিই তুলে নেন। বোল্ড হওয়া শুভাগত ফিরেছেন ১৩৩ বলে ১৩ চার ২ ছক্কায় ১১৪ রান করে।

ঢাকাকে ২৮০ রানে আঁটকে দেওয়ার পথে রাহাতুলের বোলিং ফিগার ২২.১-৩-৭৫-৭। প্রথম শ্রেণির অভিষেক হওয়া যুব বিশ্বকাপজয়ী দলের বাঁহাতি পেসার তানজিম হাসান সাকিবের শিকার ২ উইকেট, একটি শিকার রুয়েল মিয়ার।

৯০ রানে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করা সিলেট ৫৮ রানেই হারিয়েছে ৪ উইকেট। ওপেনার সায়েম আলমের ব্যাট থেকে আসে ৩১ রান। প্রথম ইনিংসের সেঞ্চুরিয়ান জাকির হাসান ৩৩ রান করে ফিরে গেলে ১২২ রানেই ৫ উইকেট হারায় সিলেট। ক্রিজে এসে কোন রান না করেই ফিরে যায় রাহাতুল ফেরদৌস।

৬ উইকেটে ১২২ রান থেকে ৬১ রানের অবিচ্ছেদ্য জুটিতে দিন শেষ করে আসাদুল্লাহ আল গালিব ও তানজিম হাসান সাকিব। ৩ ঘন্টার বেশি সময় ক্রিজে কাটিয়ে ১৩৭ বলে ৭ চার ১ ছক্কায় গালিব অপরাজিত ৭৪ রানে। ৬২ বলে ৩ চারে সাকিব অপরাজিত ২৪ রানে। ঢাকার হয়ে দুইটি করে উইকেট নেনে শুভাগত হোম ও সাইফ হাসান। একটি করে শিকার সুমন খান ও তাইবুর পারভেজের।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (৩য় দিন শেষে):

সিলেট ১ম ইনিংসে ৩৭০/১০ (১১৪.৪), সায়েম ১১, শাহনাজ ০, অমিত ১৩, জাকির ১৫৯, জাকের ৬৭, গালিব ৬৭, রাহাতুল ৫, এনামুল ১৪, সাকিব ১১, রাহি ১৯, রুয়েল ১*; সুমন ১৭-২-৫৫-২, শাকিল ১৬-২-৫৬-১, অপু ৩৫-৩-১২২-১, শুভাগত ২৯-৪-৮৬-৪, তাইবুর ১১.৪০-৩১-২

ঢাকা ১ম ইনিংসে ২৮০/১০ (৭৯.১), জয়রাজ ৪১, মজিদ ০, সাইফ ৪২, অঙ্কন ২, তাইবুর ৩, শুভাগত ১১৪, নাদিফ ১৬, আরাফাত সানি জুনিয়র ৩৭, সুমন ৬*, অপু ০, শাকিল ২; রুয়েল ১৫-২-৪৪-১, সাকিব ১৬-১-৬৩-২, রাহাতুল ২২.১-৩-৭৫-৭

সিলেট ২য় ইনিংসে ১৮৩/৬ (৬৪.৪), সায়েম ৩১, শাহনাজ ১, অমিত ১১, জাকির ৩৩, জাকের ২, গালিব ৭৪*, রাহাতুল ০, সাকিব ২৪*; সুমন ১২-৫-২৯-১, তাইবুর ৭-০-১৮-১, শুভাগত ১২.৪-১-৩৯-২, সাইফ ১২-৪-১৯-২

২য় ইনিংসে ৪ উইকেট হাতে রেখে সিলেট ২৭৩ রানে এগিয়ে।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

কনওয়ে-নাইমের ক্যারিয়ার সেরা রেটিং, র‍্যাংকিংয়ে সৌম্য’র উন্নতি

Read Next

মুগ্ধ’র পেসে বিপর্যস্ত খুলনা, জয় দেখছে রংপুর

Total
1
Share