বৃষ্টির বাগড়া দেবার দিনেও নিউজিল্যান্ডের বড় সংগ্রহ

বৃষ্টির বাগড়া দেবার দিনেও নিউজিল্যান্ডের বড় সংগ্রহ

বৃষ্টি বিঘ্নিত দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে নেপিয়ারের ম্যাকলিন পার্কে আগে ব্যাট করে বড় সংগ্রহ পেল নিউজিল্যান্ড। টস হেরে ব্যাট করে গ্লেন ফিলিপসের হার না মানা ফিফটির সাথে ড্যারিল মিচেলের ক্যামিওতে ১৭.৫ ওভারে ৫ উইকেটে কিউইদের সংগ্রহ ১৭৩ রান। ডাকওয়ার্থ লুইস (ডি/এল) মেথডে বাংলাদেশের জন্য লক্ষ্য দাঁড়িয়েছে ১৬ ওভারে ১৭০। 

আবহাওয়া পূর্বাভাসে বৃষ্টির সম্ভাবনা দেখেই টস জিতে ফিল্ডিং নেয় বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। দুই দলের একাদশেই আসে একটি করে পরিবর্তন। বাংলাদেশ একাদশে মুস্তাফিজুর রহমানের পরিবর্তে জায়গা হয় তাসকিন আহমেদের। অন্যদিকে নিউজিল্যান্ড একাদশে লকি ফার্গুসনের পরিবর্তে সুযোগ হয় অ্যাডাম মিলনের।

ম্যাকলিন পার্কের রানপ্রসবা উইকেটে পাওয়ার প্লেতে নিউজিল্যান্ড তোলে ২ উইকেটে ৫৪ রান। উদ্বোধনী জুটিতে মার্টিন গাপটিল ও ফিন অ্যালেন যোগ করেন ৩৬ রান। হ্যামিল্টনে অভিষেক ম্যাচে খালি হাতে ফেরা অ্যালেন এদিন ঝড়ের আভস দিয়েও ইনিংস লম্বা করতে পারেননি।

তাসকিন আহমেদের করা ইনিংসের চতুর্থ ওভারের প্রথম বলেই হাঁকান ছক্কা। দ্বিতীয় বলেই অবশ্য ফিরতে পারতেন, তাসকিনের গতিতে পরাস্ত হয়ে ৩০ গজের ভেতরে দেওয়া ক্যাচ নিতে পারেননি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তবে ওভারের শেষ বলেই ফিরেছেন টপ এইজ হয়ে। মিড উইকেট থেকে দৌড়ে এসে তুলনামূলক কঠিন ক্যাচটাই নেন নাইম শেখ। অ্যালেন ফেরেন ১৭ রান করে।

তবে রানের চাকা সচল রাখার চেষ্টা গাপটিল ও ডেভন কনওয়ের। তাসকিনের ওভারে নিয়মিত ক্যাচ মিস হলেও তাসকিন নিলেন দুর্দান্ত এক ক্যাচ। মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের করা ৬ষ্ঠ ওভারের শেষ বলে শর্ট ফাইন লেগে এক হাতে অসাধারণ এক ক্যাচ নিয়ে বিস্মিত করে দেন গাপটিলকে। ১৮ বলে ২১ রানেই সাজঘরের পথ ধরতে হয় এই ওপেনারকে।

পরের ওভারের প্রথম বলেই শরিফুল ইসলামের প্রথম আন্তর্জাতিক উইকেট হয়ে ফিরে যান ওয়ানডে সিরিজ থেকেই দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ডেভন কনওয়ে। দুই ওয়ানডেতে ব্যাট করে ৭৬ ও ১২৬, প্রথম টি-টোয়েন্টিতে অপরাজিত ৯২ রান করা কনওয়ে আজ ফিরেছেন ১৫ রানে। ব্যাক অব লেংথের বাড়টি বাউন্সের বলে পুল করতে গিয়ে টপ এজ হয়ে মিড উইকেটে মোহাম্মদ মিঠুনের হাতে ক্যাচ দেন কনওয়ে।

অভিষেক ম্যাচে হ্যামিল্টনে দেশের হয়ে সবচেয়ে খরুচে বোলারের রেকর্ড গড়া শরিফুল এদিন শুরু থেকেই বেশ নিয়ন্ত্রিত বোলিং করেন। ব্যাটসম্যানকে অফ স্টাম্পের খানিক বাইরে দেওয়া গুড লেংথ ডেলিভারিতে বেশ কয়েকবারই করেছেন বিভ্রান্ত। দুই ওভারের প্রথম স্পেলে শরিফুলের বোলিং ফিগার ২-০-১০-১। গতি দিয়ে ভড়কে দিয়েছেন তাসকিন আহমেদও, পুরো সফরেই অন্যরকম এক তাসকিনের দেখা মিলে। নিয়মিত বল করেছেন ১৪০ এর বেশি গতিতে।

৫৫ রানে ৩ উইকেট হারানো কিউইরা উইল ইয়াং ও গ্লেন ফিলিপসের ৩৯ রানের জুটিতে বিপর্যয় কাটায়। শেখ মেহেদী হাসানের করা ১২ তম ওভারের চতুর্থ বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে স্টাম্পিং হন হ্যামিল্টনে অভিষেক ম্যাচেই ফিফটি হাঁকানো ইয়াং (১৪)। তবে অন্য প্রান্তে সাবলীল ফিলিপস, আগে থেকেই পূর্বাভাসে থাকা বৃষ্টি নামার আগেই তার ব্যাটে ১৭ বলে ৩০ রান। স্থানীয় সময় ৭ টা ৫৬ মিনিটে শুরু হওয়া বৃষ্টি থামে দ্রুতই, খেলা মাঠে গড়ায় স্থানীয় সময় ৮ টা ২০ মিনিটে।

বৃষ্টির পর ফিরতি ক্যাচে নিজের দ্বিতীয় শিকার বানিয়ে মার্ক চ্যাপম্যানকে (৭) ফিরিয়েছেন শেখ মেহেদী। তবে ড্যারিল মিচেলকে নিয়ে সহজাত ব্যাটিং করে যান ফিলিপস। ২৭ বলে ৪ চার ২ ছক্কায় ফিফটি ছুঁয়েছেন এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান। সাইফউদ্দিনের করা ১৭ তম ওভারে চড়াও হন মিচেলও, হাঁকিয়েছেন টানা তিন চার। তাসকিনের করা পরের ওভারের প্রথম ৫ বলেই মেরেছেন আরও তিন চার। এরপরই নেপিয়ারের আকাশ থেকে আরেক দফা বৃষ্টি নামে। ততক্ষণে বড় সংগ্রহের পথেই কিউইরা। দ্বিতীয় দফা বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ হওয়ার আগে ২৭ বলে মিচেল-ফিলিপসের ৬২ রানের জুটিতে ১৭.৫ ওভারে ৫ উইকেটে ১৭৩ রান কিউইদের স্কোরবোর্ডে।

বৃষ্টিতে নিউজিল্যান্ডের আর ব্যাট করার সুযোগ হয়নি। ৩১ বলে ৫ চার ২ ছক্কায় ৫৮ রানে ফিলিপস অপরাজিত ছিলেন ৫৮ রানে। মাত্র ১৬ বলে ৬ চারে মিচেল অপরাজিত ৩৪ রানে। বাংলাদেশের পক্ষে ৪৫ রান খরচায় সর্বোচ্চ ২ উইকেট শেখ মেহেদীর। একটি করে ভাগাভাগি করেন সাইফউদ্দিন, তাসকিন ও শরিফুল।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (১ম ইনিংস শেষে):

নিউজিল্যান্ড ১৭৩/৫ (১৭.৫), গাপটিল ২১, অ্যালেন ১৭, কনওয়ে ১৫, ইয়াং ১৪, ফিলিপস ৫৮*, চ্যাপম্যান ৭, মিচেল ৩৪*; সাইফউদ্দিন ৩-০-৩৫-১, তাসকিন ৩.৫-০-৪৯-১, শরিফুল ৩-০-১৬-১, মেহেদী ৪-০-৪৫-২।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

অনেক ভেবে সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন স্মিথ

Read Next

নেপিয়ারে ডিএল নাটক, টার্গেট বিভ্রাট

Total
2
Share