পাকিস্তান বলছে ‘হবে’, ভারত বলছে ‘ভিত্তিহীন’

পাকিস্তান বলছে 'হবে', ভারত বলছে 'ভিত্তিহীন'

ভারত-পাকিস্তানের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক সিরিজের সম্ভাবনা নিয়ে গনমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনকে সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন বললেন ভারতীয় ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থার (বিসিসিআই) সহ সভাপতি রাজীব শুক্লা।

শুক্লা বলেন এ বিষয় দুই দেশের বোর্ডের মধ্যে কোনরকম আলোচনা হয়নি।

‘দুই বোর্ডের মধ্যে এমন কোন আলোচনাই এখনও হয়নি,’ হিন্দি পত্রিকা ডেইলি জাগরণকে বলেন শুক্লা।

‘আমাদের অবস্থান গত ১০ বছরের মত একই আছে। সরকার থেকে কোন অনুমতি না পাওয়া পর্যন্ত আমরা পাকিস্তানের সাথে কোন ধরণের দ্বিপাক্ষিক সিরিজ আয়োজন করতে পারবো না,’ শুক্লা জানান।

উল্লেখ্য, কিছুদিন পূর্বে গুঞ্জন উঠে এ বছরের একটি নির্দিষ্ট সময় ভারত-পাকিস্তানের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক সিরিজ অনুষ্ঠিত হবে।

সূত্রের বর্ণনানুযায়ী, এমন ব্লকবাস্টার সিরিজ আয়োজনের জন্য পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডকে (পিসিবি) প্রস্তুত হতে বলা হয়েছে।

পিসিবির একজন অফিসিয়াল ডেইলি জাংকে (পাকিস্তানি পত্রিকা) জানিয়েছিলেন,

‘আমাদেরকে প্রস্তুত হতে বলা হয়েছে’

সূত্র জানিয়েছিল, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের টানা সূচি সত্ত্বেও দুই দলই ৬ দিনের সময় নিয়ে সিরিজ খেলবে।

২০১৯ এর বিশ্বকাপে দুই দল শেষবার পরস্পরের মুখোমুখি হয়েছিল। ২০১২-১৩ তে শেষবার দুই দল দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলেছিল। ভারতে সংক্ষিপ্ত ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে গিয়েছিল পাকিস্তান দল।

পিসিবি আশা করছে ২০২৩ এশিয়া কাপ আয়োজনের সুবাদে পাকিস্তান সফর করবে ভারত। পিসিবির চেয়ারম্যান এহসান মানির মতে ভারতের আগমন পাকিস্তানের ক্রিকেটের জন্য বড় চমক হবে। এছাড়াও ২০২১ সালের সংস্করণে মহাদেশীয় টুর্নামেন্টটি তাক লাগাবে বলে অভিমত দিয়েছেন এহসান মানি।

জাং পত্রিকাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মানি বলেন, ‘শ্রীলঙ্কায় এ বছরের এশিয়া কাপ ধরে রাখা সম্ভব হচ্ছে না। জুনে খুবই কম সময় রয়েছে। তবে ঐ সময়ে পাকিস্তান সুপার লিগের বাকি ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়াও ভারত তখন বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে মুখোমুখি হবে। ইংল্যান্ডে ফাইনালের আগে তারা দুই সপ্তাহের কোয়ারেন্টাইনে থাকবে। তাই ভারত বেশ ব্যস্ত থাকবে।’

‘এশিয়া কাপের মধ্য দিয়ে সহযোগী দেশগুলোও উপকৃত হবে। দলগুলোর মূল একাদশ নিয়েই আমরা টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে চাই।’

সম্প্রতি কয়েক মাসের মধ্যে আন্তর্জাতিক দলগুলো পাকিস্তান সফর করেছে। তবে গত ২০ বছরে পাকিস্তানে আসেনি অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ড। ২০০৯ সালে শ্রীলঙ্কা দলের উপর আক্রমণের পর এতদিন কোন আন্তর্জাতিক দলের আগমন ঘটেনি পাকিস্তানে।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

টি-টোয়েন্টিতেও একই হাল বাংলাদেশের

Read Next

ডেভন কনওয়েকে ফেরানোর পথ খুঁজছে বাংলাদেশ

Total
7
Share