আমি খেলেছি, টেস্ট করেছি, দেখেছিঃ রাজ্জাক

আমি খেলেছি, টেস্ট করেছি, দেখেছিঃ রাজ্জাক

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে পুরো সিরিজ জুড়ে বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের ছিল না দেখার মতো কোন পারফরম্যান্স। নিউজিল্যান্ডে বাংলাদেশের প্রাপ্তির খাতা একেবারেই শূন্য। এবারের সফরের ওয়ানডে সিরিজে বাংলাদেশ হয়েছে হোয়াইটওয়াশ। নিজের দেশের ক্রিকেটারদের এমন অসহায় আত্মসমর্পণ দেখে হতাশ বাংলাদেশ জাতীয় দলের প্রাক্তন ক্রিকেটার ও নতুন নির্বাচক আব্দুর রাজ্জাক। তবে কিউই কন্ডিশনে খেলিয়ে বাংলাদেশকে তিনি মানদণ্ডে ফেলতে চাইছেন না।

নিউজিল্যান্ডের মাঠে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের পথচলার পুরোটাই হতাশায় ভরা। দলের পরাজয়ে সমর্থকদের সঙ্গে হতাশ হয়েছেন রাজ্জাকও। তবে চরম হতাশার মাঝেও দ্বিতীয় ম্যাচে ইতিবাচক দিক খুঁজে পেয়েছেন আব্দুর রাজ্জাক। তবে রাজ্জাকের মতে শেষ হওয়া ওয়ানডে সিরিজে বেশ কিছু জায়গায় পরিকল্পনার সঠিক প্রয়োগ করতে পারেনি টাইগাররা।

‘দেখুন, এখানে হতাশ তো হবোই। যারা ক্রিকেটের সঙ্গে রিলেটেড বা দেশের যে মানুষ ক্রিকেট ভালোবাসে বাংলাদেশ দল খারাপ করলে সবার খারাপ লাগে। কিন্তু আপনাকে ইতিবাচক দিকগুলোও দেখতে হবে। যেমন বাংলাদেশ দ্বিতীয় ম্যাচে ব্যাটিং ভালো করেছে, বোলিংটাও মোটামুটি হয়েছে। কিছু কিছু জায়গায় পরিকল্পনার প্রয়োগটা যথাযথভাবে হয়নি। এজন্যে হয়তো এমন হয়েছে। আর সাব-কন্টিনেন্টের দলগুলোর জন্য নিউজিল্যান্ডে গিয়ে ম্যাচ জেতা, দ্বিতীয় ম্যাচে যেটা বড় সুযোগ তৈরি হয়েছিল।’

নিউজিল্যান্ডের উইকেটে স্বাভাবিক ক্রিকেট খেলা যে কোনো বিদেশি দলের জন্য কঠিন। উইকেট কিংবা কন্ডিশন কোনটাই উপমহাদেশের সঙ্গে মিলবে না। বরাবরই নিউজিল্যান্ডের মাঠে কঠিন পরীক্ষা দিতে হয় বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের। বাউন্সি উইকেটে পেস দিয়ে আক্রমণ করেই ধ্বংসস্তূপ বানিয়ে দেন ট্রেন্ট বোল্ট, টিম সাউদি, নিশামরা। বাংলাদেশের বিরুদ্ধে এবারের সিরিজেও এর ব্যতিক্রম কিছু ঘটেনি। ডানেডিন থেকে ওয়েলিংটন সবত্রই সুইং, বাউন্সে কুপোকাত করে নতুন বলেই বাংলাদেশের টপ অর্ডার শেষ করে দেয় ট্রেন্ট বোল্ট, জিমি নিশামরা। যা কাটিয়ে উঠতে না পেরে অল্পতেই গুটিয়ে যায় তামিম ইকবালের দল।

আব্দুর রাজ্জাক খেলোয়াড়ি জীবনে নিজেও নিউজিল্যান্ডের মাঠে খেলেছেন। তিনি ভালো ভাবেই জানেন সেখানকার উইকেট আর কন্ডিশনের ব্যাপারে। রাজ্জাক আজ ভারতীয় দলের উদাহরণ সামনে এনেছেন নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশন প্রমাণ করেন। তাই বাংলাদেশ ক্রিকেটকে তিনি মানদণ্ডে ফেলতে চান না,

‘কেউ মানুক বা না মানুক, সাব-কন্টিনেট দলগুলোর জন্য নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশন কঠিন। আমি খেলেছি, আমি টেস্ট করেছি পরিস্থিতিটা, আমি দেখেছি। আপনি দেখুন ভারত এমনি সময়ে খেলছে বিশ্বের সেরা দল হিসেবে, কিন্তু যখন নিউজিল্যান্ডে যাচ্ছে তখন সম্পূর্ণ ভিন্ন এক ভারত। তাই এটাকে মানদণ্ডে দাঁড় করানোর কোন অপশন নেই আমাদের কাছে। এটা দেখে যে আমি দেশের ক্রিকেটের বর্তমান অবস্থা বিচার করা ঠিক হবে না।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

সাকিবের আইপিএল খেলাতে খারাপ কিছু দেখেন না সুজন

Read Next

মুস্তাফিজ তো ঠিকই বলেছেঃ সুজন

Total
2
Share