শাকিল কাসেমের ‘ক্রিকেট রিভিজিটেড’

শাকিল কাসেমের 'ক্রিকেট রিভিজিটেড'
Vinkmag ad

সাবেক ক্রিকেটারদের ক্রীড়া সাহিত্যে অবদান রাখার সংস্কৃতি বাংলাদেশে এখনো সেভাবে গড়ে ওঠেনি। তবে ইতোমধ্যে বেশ কয়েকজন সাবেক ক্রিকেটার সে পথে হেঁটেছেন। এবার যোগ হল সাবেক ক্রিকেটার শাকিল কাসেমের নাম। ৯০ এর দশকে খেলা ছাড়া শাকিল কাসেম পরবর্তীতে নানা ভূমিকায় কাজ করেছেন ক্রিকেটের সাথে। নিজের পুরোনো লেখা ও একটা লম্বা সময়কালে মাঠে গড়ানো বাংলাদেশ সহ বেশ কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের ভেতর-বাইরের আবহ, ব্যাখা নিয়ে লিখেছেন ‘ক্রিকেট রিভিজিটেড।’

১৯৭৭ সালে এমসিসির বিপক্ষে স্বাধীন বাংলাদেশের হয়ে প্রথম ম্যাচের স্কোয়াডে থাকা শাকিল কাসেম আশির দশকে ঘরোয়া ক্রিকেটের অন্যতম তারকাদের একজন ছিলেন। মূলত ব্যাটসম্যান হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করলেও ক্যারিয়ার শেষ করেছেন একজন বোলার যিনি ব্যাটও করতে পারেন এমন ভূমিকায়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগে প্রথম শ্রেণিতে প্রথম হন শাকিল কাসেম। সূর্যতরুণ (৩৬) ও ওয়ারি ক্রিকেট ক্লাবের (৫১) হয়ে ঢাকা লিগে দুইবার হয়েছেন সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি। খেলোয়াড়ি জীবন শেষে কাজ করেছেন ধারাভষ্যকার, কলাম লেখক, বিসিবির ক্রিকেট পরিচালক ও জাতীয় ক্রিকেট একাডেমির চেয়ারম্যান হিসেবে।

১৫ মার্চ রাজধানীর ঢাকা ক্লাবের স্যামসন সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয় তার লিখিত ‘ক্রিকেট রিভিজিটেড’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠান। বইটি প্রকাশ করে ‘ঐতিহ্য প্রকাশনী’। যেখানে মিলন মেলা বসে এমসিসির বিপক্ষে সেই ঐতিহাসিক ম্যাচে অংশ নেওয়া বাংলাদেশের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারের। মোড়ক উন্মোচন করেন আইসিসি ট্রফিতে বাংলাদেশের হয়ে প্রথম ম্যাচ সেরার পুরষ্কার জেতা সাবেক তারকা ক্রিকেটার সৈয়দ আশরাফুল হক ও এমসিসির বিপক্ষে ম্যাচে ৭৮ রানের ইনিংস খেলা ইউসুফ বাবু।

অনুষ্ঠান শেষে বইয়ের মূল বিষয় সম্পর্কে জানাতে গিয়ে শাকিল কাসেম বলেন,  ‘এটি একটি স্মৃতির সংগ্রহশালা। মূলত আমার যেসব আর্টিকেল আগে লেখা হয়েছে, বিভিন্ন সময়ে সেসবকে একত্রিত করা। ক্রিকেট খেলাটা কিন্তু জয়, পরাজয় কিংবা ড্রয়ে সীমাবদ্ধ না। খেলাটা কীভাবে হল, কেউ হতাশ হচ্ছে কেউ ধ্বংসাত্মক হচ্ছে। একজন ক্রিকেটার কিন্তু এক ধরণের নাটকের মধ্য দিয়ে যায়, তাকে টিভিতে দেখুক আর লেখা পড়ে জানুক। একজন ওপেনারের কথা বলি, সে দলের হয়ে ওপেন করে, নতুন বল দেখে খেলে, ক্রিজে সময় কাটিয়ে দলের জন্য স্কোর করে।’

No description available.

‘শুরুতে সে আগ্রাসী হতে পারেনা, এরপর তাকে আবার রান করাতেও মনযোগ দিতে হয়। কীভাবে সে এই ভূমিকাটা রাখছে এটাই আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। মূলত লেখার মধ্যে এসবই ব্যাখ্যা করা কিংবা তুলে ধরা হয়েছে। অনেক লম্বা একটা সময়ের ক্রিকেট ম্যাচের ব্যাখ্যা, বর্ণনা লেখাগুলোতে আছে। এখানে শুধু বাংলাদেশের খেলা এমন না, ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া, ভারত-পাকিস্তান এ ধরণের অনেকগুলো ম্যাচই আছে।’

ইংরেজি ভাষায় প্রকাশিত বইটিতে তুলে ধরা হয়েছে বাংলাদেশে ক্রিকেটের শুরুর প্রেক্ষাপটও। পাঠক বইটি পড়ে হতাশ হবেনা বলে আশা করছেন ৬৯ বছর বয়সী শাকিল কাসেম। বইটির মূল্য ধরা হয়েছে ৩০০ টাকা।

মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বিসিবি পরিচালক ও গুণী সংগঠক আহমেদ সাজ্জাদুল আলম ববি। সাবেক ক্রিকেটার ও ধারাভাষ্যকার ইশতিয়াক আহমেদ, ঐতিহ্য প্রকাশনীর সত্ত্বাধিকারী আরিফুল ইসলাম নাদিম, সনামধন্য ক্রিকেট কোচ, বিশ্লেষক ও সাংবাদিক জালাল আহমেদ চৌধুরী, গলফার শওক্তুজ্জামান প্রমুখ।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ট্রেভর লি’র চোখে টাইগার শিবিরে ‘অন্যতম সেরা পেশাদার ক্রিকেটার’

Read Next

হোল্ডারের কাছ থেকে দায়িত্ব নিয়ে গর্বিত ব্র্যাথওয়েট

Total
2
Share