ট্রেভর লি’র চোখে টাইগার শিবিরে ‘অন্যতম সেরা পেশাদার ক্রিকেটার’

ট্রেভর লি'র চোখে টাইগার শিবিরে 'অন্যতম সেরা পেশাদার ক্রিকেটার'
Vinkmag ad

বাংলাদেশ দলের হেড অব ফিজিক্যাল পারফরম্যান্স হিসেবে যোগ দিয়েছেন এক বছর আগেই, তবে কাজ করার সুযোগ কমই পেয়েছেন নিকোলাস ট্রেভর লি। যতটুকু কাজ করেছেন তাতেই অবশ্য শিষ্যদের নিয়ে উচ্ছ্বসিত এই ইংলিশ। বর্তমানে নিউজিল্যান্ডে অবস্থান করা বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটারদের অন্য অনেক দলে চেয়ে আলাদা করেই মূল্যায়ণ করলেন। বিশেষ করে মুশফিকুর রহিমের ভূয়সী প্রশংসা করলেন।

এমনিতে দেশের ক্রিকেটের সবচেয়ে পরিশ্রমী খেলোয়ায়ড় নিশ্চিতভাবেই মুশফিক। এই উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান নিয়ম মেনে ঘন্টার পর ঘন্টা নেটে অনুশীলন, জিম বেশ কয়েক বছর ধরেই খবরের শিরোনাম। তরুণ ক্রিকেটাররাও ফিটনেস, পরিশ্রমের ক্ষেত্রে তাকেই অনুপ্রেরণা মানেন।

এবার বিষয়টি নজরে পড়েছে দলের হেড অব ফিজিক্যাল পারফরম্যান্স নিক লিরও। কিউইদের বিপক্ষে সিরিজ সামনে রেখে কুইন্সটাউনে অনুশীলন করছে বাংলাদেশ। আজ (১৫ মার্চ) অনুশীলন শেষে শিষ্যদের ফিটনেস ইস্যুতে কথা বলেন ট্রেনার নিক লি।

বিসিবির পাঠানো এক ভিডিও বার্তায় নিক লি বাংলাদেশ ও মুশফিক প্রসঙ্গে বলেন, ‘অন্য যে দলগুলোর সঙ্গে কাজ করেছি, এ দলটির কার্যক্ষমতা অতুলনীয়। আমার দেখা অন্যতম সেরা পেশাদার ক্রিকেটার এই দলে রয়েছে। মুশফিকুর রহিম তরুণদের সবচেয়ে বড় অনুপ্রেরণা।’

‘তারা মুশফিককে অনুসরণ করা শুরু করেছে। দলের প্রত্যেককে যে কাজ দেওয়া হচ্ছে, সেটা পালন করার চেষ্টা করছে। এ সময়ে তাদের কী করা উচিত সেটা তারা বুঝতে পারছে। এ কারণে নিজেদের ফিট রাখতে অক্লান্ত পরিশ্রম করছে।’

‘আমার মনে হয় ক্রিকেটাররা বুঝতে শুরু করেছে যে এই সময়ের ক্রিকেটে শারীরিকভাবে ফিট থাকা কতোটা গুরুত্বপূর্ণ। প্রচুর ভ্রমণ এবং অল্প সময়ের ব্যবধানে খেলতে হয় এখন। ভালো পারফরম্যান্সের জন্য আপনাার ফিট থাকা দরকার।’

দলের বর্তমান ফিটনেস অবস্থা সম্পর্কে এই ইংলিশম্যান বলেন, ‘ক্রাইস্টচার্চে দুই সপ্তাহের কোয়ারেন্টিনের সময় সবাইকে হালকা ব্যায়াম করতে দেওয়া হয়েছিল। প্রথম সপ্তাহে সবাই রুমের মধ্যে হালকা, ব্যায়াম, সাইক্লিং করেছে। এরপর থেকে জিম ব্যবহার শুরু করেছে । পরের ধাপে রানিং আর স্কিল অনুশীলন শুরু হয়েছে। এভাবে আগানোতে সবার ফিটনেসের অবস্থা বেশ ভালো।’

সামগ্রিকভাবে ফিটনেস সম্পর্কে নিক লি তুলে ধরেছেন নিজস্ব দর্শনও, ‘ফিটনেস খুবই মজার ও উপভোগের বিষয়। ফিটনেস পাওয়া শুরু করলে উপভোগও শুরু হয়। ফিটনেসের শুরুতে কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। এ সময় অনেকে ইনজুরিতেও পড়তে পারে। তবে পরে সেটা উপভোগের বিষয় হতে পারে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

সাদা পোশাকে ফেরা নিয়ে ভাবছেন না আদিল রশিদ

Read Next

শাকিল কাসেমের ‘ক্রিকেট রিভিজিটেড’

Total
5
Share