পারিশ্রমিক ইস্যুতে ছাড় দিতেও রাজি ক্রিকেটাররা

প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব
Vinkmag ad

করোনার ভয়াল থাবায় অর্থের টানাপোড়নের কত শত গল্প আমাদের আশেপাশে ছড়িয়ে আছে। প্রভাব পড়েছে ক্রীড়াঙ্গনেও, দেশের ঘরোয়া ক্রিকেটই যাদের রুটি রুজির মূল উৎস তাদের পাড়ি দিতে হয়েছে সংগ্রামের বন্ধুর পথ। মহামারী করোনা পাশ কাটিয়ে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে ক্রিকেট ক্যালেন্ডার, খুব শীঘ্রয়ই মাঠে গড়াচ্ছে দেশের নিয়মিত ঘরোয়া টুর্নামেন্টগুলো। স্থগিত হওয়া ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের (ডিপিএল) আসর আয়োজনে সচেষ্ট বিসিবি। পারিশ্রমিক ইস্যুতে ছাড় দিতে রাজি ক্রিকেটাররাও।

ক্রিকেটারদের আয়ের বড় একটা অংশ আসে ডিপিএল থেকে। বছরে এই একটা টুর্নামেন্টেই মোটা অঙ্ক উপার্জনের সুযোগ জাতীয় দলের বাইরের ক্রিকেটারদের জন্য। তবে করোনা মহামারীর কারণে গত বছর টুর্নামেন্টটি মাত্র এক রাউন্ড মাঠে গড়িয়েই স্থগিত হয়। এরপর কেটে যাচ্ছে এক বছর, তবে আলোর মুখ দেখেনি ডিপিএল (ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ)। দেশের ঘরোয়া ক্রিকেট চালু করতে যাওয়া বিসিবি অবশ্য ক্রিকেটারদের কথা ভেবেই ডিপিএল নিয়ে বেশ সক্রিয় ভূমিকা পালন করছে।

ইতোমধ্যে বোর্ডের সাথে আলোচনা শুরু হয়েছে ক্লাবগুলোর। ক্রিকেটাররা এতটাই খারাপ পরিস্থিতিতে পড়েছেন যে পারিশ্রমিক ইস্যুতে ছাড় দিতেও রাজি আছেন। তারা চান খেলা দ্রুতই মাঠে গড়াক। ক্লাবের সাথে সরাসরি চুক্তিবদ্ধ হওয়া ক্রিকেটাররা পারিশ্রমিক কম নিয়ে হলেও শেষ করতে চান ঝুলে থাকা টুর্নামেন্টটি। দফায় দফায় বৈঠক চলা বোর্ড-ক্লাব আগামী শনিবার-রবিবার আবারও বসবেন আলোচনার টেবিলে। সেদিনই আসতে পারে ডিপিএল ইস্যুতে নানা প্রশ্নের জবাব।

গতকাল (৯ মার্চ) ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিসের (সিসিডিএম) সভাপতি কাজী ইনাম আহমেদ রাজধানীর ধানমন্ডিতে তার কার্যালয়ে অভ্যন্তরীণ বৈঠক সারেন। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি জানান খেলোয়াড়দের কথা বিবেচনা করেই ডিপিএল আয়োজন করতে বদ্ধ পরিকর তারা।

কাজী ইনাম বলেন, ‘আমরা ভাবছি যেকোনভাবে টুর্নামেন্টটা আবারও চালু করতে আর খেলোয়াড়দের পেমেন্টটা ক্লাবের কাছে থেকে নিয়ে দিতে। তো সেই কারণে আমাদের অভ্যন্তরীণ বৈঠক হয়েছিল, গত সপ্তাহে আমাদের আরও একটা মিটিং হয়েছিল বোর্ডের আরও কয়েকজন পরিচালক ছিল।’

আর্থিক সংকটে পড়ে ক্রিকেটাররা ছাড় দিয়ে হলেও খেলতে চান উল্লেখ করে কাজী ইনাম যোগ করেন, ‘আমার মূল লক্ষ্য থাকবে খেলোয়াড়েরা যেন সবচেয়ে বেশি লাভবান হয়। খেলোয়াড়েরা কিন্তু আমাকে আগে থেকেই বলেছিল ইনাম ভাই আপনারা যে করে হোক একটা টুর্নামেন্ট আয়োজন করেন। আমাদের যদি কিছু ছাড় (পারিশ্রমিক) দিতে হয়ে সেটাও আমরা করতে পারি।’

ক্রিকেটারদের চাওয়াতেই গত আসরে ছিলনা প্লেয়ার বাই চয়েজ পদ্ধতি। ক্লাবের সাথে সরাসরি চুক্তিতে পারিশ্রমিক ঠিক করে নিয়েছিল ক্রিকেটাররা। যে কারণে পারিশ্রমিক ইস্যুতে বোর্ড ক্লাবের সাথে মধ্যস্থতা করতে পিছুপা হবে।

কাজী ইনামের ভাষ্যমতে, ‘এই ব্যাপারে ক্লাবগুলোর সঙ্গে কথা বলে আমি নিশ্চিতভাবে জানাতে পারবো। আমাদের যে মূল চুক্তি ছিল আমরা সেগুলোর বেশিরভাগই সম্পন্ন করেছি। কিন্তু এবার প্লেয়ার বাই চয়েজ ছিল না। ক্রিকেটারদের অনুরোধের কারণেই এবার ক্লাবগুলোর সঙ্গে সরাসরি চুক্তি করে ক্রিকেটাররা। তাই এই আলোচনা অধিকাংশই নির্ভর করবে ক্লাব এবং খেলোয়াড়দের উপরে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে ডিপিএল, থাকবে জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা

Read Next

নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটকে তামিমের ধন্যবাদ

Total
8
Share