‘বাংলাদেশ দলকে ১০ বছর সেবা দিব ইন শা আল্লাহ’

'বাংলাদেশ দলকে ১০ বছর সেবা দিব ইন শা আল্লাহ'
Vinkmag ad

বেশ সম্ভাবনা নিয়েই জাতীয় দলে আসেন এনামুল হক বিজয়। অভিষেকের পর থেকে ছিলেন ছন্দেও। ২০১৫ বিশ্বকাপে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে কাঁধে চোট পেয়ে ছিটকে যাওয়ার পরই এলোমেলো বিজয়ের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার। তিন বছর বিরতির দিয়ে বেশ কয়েকবার দলে ডাক পেয়েও সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি। অবশ্য টানা সুযোগ পাননি খুব একটা। ঘরোয়া ক্রিকেটে রানের ফোয়ারা ছুটেই চলে বিজয়ের, উপেক্ষিত বিজয় এবার অল্প সুযোগ পেলেও সেটা কাজে লাগাতে চান।

ডানহাতি এই উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান বলছেন বেশি সুযোগ পেলে জাতীয় দলকে সেবা দিবেন আরও ১০ বছর। ২০১৫ বিশ্বকাপের পর ২০১৮ সালে জাতীয় দলে ডাক পাওয়া বিজয় খেলেছেন ৮ টি ওয়ানডে ম্যাচ। যেখানে নেই কোন ফিফটি, সর্বোচ্চ রানের ইনিংস ৩৫। অথচ চোটে পড়ে ছিটকে যাওয়ার আগ পর্যন্ত দলের নিয়মিত সদস্যই ছিলেন। ২০১২ সালে অভিষেকের পর ২০১৫ বিশ্বকাপের স্কটল্যান্ড ম্যাচের আগে ২৯ ম্যাচেই তার নামের পাশে ছিল ৩৫ এর বেশি গড়ে সমান তিনটি করে ফিফটি ও সেঞ্চুরিতে ৯৫০ রান।

লম্বা বিরতির পর বিজয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কেন ছন্দ হারালেন এমন প্রশ্নে দোষটা নিজের কাঁধেই নিলেন। তবে ইতোমধ্যে নিজের ভুলগুলো ধরতে পেরেছেন, আগে চাপ নিয়েই নিজের কাজটা কঠিন করেছেন। এবার সুযোগ পেলে চাপ কম থাকবে বলে বিশ্বাস এই ব্যাটসম্যানের।

২৮ বছর বয়সী বিজয় আজ (৪ মার্চ) মিরপুরে বলেন, ‘আমি যতটুকু সুযোগ পেয়েছি (ফিরে এসে) ততটুকু যদি মেলে ধরতে পারতাম তাহলে কিন্তু খুব সুন্দর হয়ে যেত, কোন ঝামেলা থাকতোনা। নিজেকে আমি মেলে ধরতে পারিনি, মানে বড় রান পাইনি। প্রত্যাশা অনুযায়ী আরও ভালো খেলতে পারতাম। আমার আরও ভালো করা উচিত ছিল। আমি খেলতে পারিনি মানে পারবোনা যে তা না। আবার সুযোগ আসলে আমি হয়তো নিজেকে মেলে ধরতে পারবো।’

‘চাপ অনুভব করেছি অবশ্যই, এটা সত্যি কথা। একটা জায়গা থেকে আমি চলে গেলাম। দুই-তিন বছর খেললাম না, আবার কামব্যাক করলাম তখন তো একটু চাপ থাকেই। নিজের চাপ, অন্য কেউ দেয় বিষয়টা এমন না। নিজের প্রতি চ্যালেঞ্জ থাকে আরও ভালো করতে হবে। আমি নার্ভাস ছিলাম বা এরকম কিছু । টিম ম্যানেজমেন্টের সবাই খুব সাহায্য করে এটা নিয়ে কোন প্যাড়া নেই। এটা নিয়ে আমি অস্বস্তিতে নেই। আমি নিজেই নিজের উপর একটা চাপ নিয়ে নিয়েছিলাম।’

‘যেহেতু আমি অনেকদিন পর এসেছি জাতীয় দলে স্বাভাবিকভাবেই একটা চাপ ছিল। এটা আমার জন্য একটা শিক্ষাও, এতদিন পর এসে খেলার ক্ষেত্রে মানিয়ে নেওয়া কঠিন। দলে ফেরার পর খারাপ খেলেছি কিন্তু এখন পরিস্থিতি বুঝেছি তাই আশা করি এখন ফিরলে ভালো করবো। আমার কাছে মনে হয় এবার ভালো খেলার সম্ভাবনা বেশি কারণ আমি জানি এখন কি করতে হবে না হবে। চাপ একটু কম থাকবে।’

বাংলাদেশের জার্সিতে খেলেছেন ৪ টেস্ট, ৩৮ ওয়ানডে ও ১৩ টি-টোয়েন্টি। সর্বশেষ টেস্ট ২০১৪ ও সর্বশেষ টি-টোয়েন্টি খেলেছেন ২০১৫ সালে। তবে ওয়ানডে খেলেছে ২০১৯ সালে শ্রীলঙ্কা সফরে। এক বছরের বেশি সময় পর সুযোগ পেয়ে লঙ্কানদের বিপক্ষে ১৪ রানের বেশি করতে পারেননি। এরপর আর জায়গা হয়নি জাতীয় দলের জার্সিতে।

ঘরোয়া মৌসুমে অবশ্য নিয়মিতই হেসেছে বিজয়ের ব্যাট। বাংলাদেশের সংস্কৃতিতে এখন দুই-এক ম্যাচ দেখেই ছুঁড়ে ফেলার রীতি বদলেছে। তবে এ ক্ষেত্রে বিজয় নিশ্চিতভাবেই দুর্ভাগাদের একজন। বেশ লম্বা বিরতি দিয়েই ডাক পান আর দুই-এক ম্যাচ পরই বাদ পড়েন। তবে এসবে অভ্যস্ত এই ব্যাটসম্যান মাথায় গেঁথে নিয়েছেন এবার সুযোগ পেলে সেটাকেই দলে পাকা হওয়ার মঞ্চ বানাবেন।

বিজয় বলেন, ‘যদি নির্বাচকরা মনে করে বিজয়কে নিলে দেশের জন্য ভালো হবে এবং এতদিন ধরে দেশের জন্য প্রস্তুত হয়েছি। আমার ২৭ বছর বয়স তার ১৩-২৪ বছরই দেশের ক্রিকেটের জন্য খেলছি, আমার জন্য খেলছি। আমিতো প্রস্তুত হচ্ছি। আমি যদি এখন এই পারফরম্যান্সকে, অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগাতে পারি তা দেশের জন্যও ভালো আমার জন্যও ভালো।’

‘তারা যদি মনে করে আমাকে নিয়ে নিবে,মেধা আছে আমি কাজে লাগাতে পারবো তারা সুযোগ দিবে। এবার যদি অল্প সুযোগ পাই চেষ্টা করবো অল্পের পুরোটাই কাজে লাগাতে, আর যদি বেশি সুযোগ পাই আমি অবশ্যই বললাম বাংলাদেশ দলকে ১০ বছর সেবা দিব ইন শা আল্লাহ।’

নিজের সীমাবদ্ধতাকে এক পাশে রেখেই ভালো খেলার মন্ত্র শিখেছেন বলেও জানান এই ব্যাটসম্যান, ‘টেকনিক ঠিকই থাকে মাইন্ডের এদিক সেদিক হয়। আপনার যদি মাইন্ড স্ট্রং থাকে আপনি কম স্কিল দিয়েও অনেক বড় তারকা হতে পারবেন। আপনার অনেক শট আছে তবে আপনার মাইন্ড দুর্বল, ফোকাস রাখতে পারছেন না তখন আপনি নিজেকে প্রকাশ করতে পারবেন না। এগুলোকে মানিয়ে নিয়ে যে কোনটা আমি পারি কোনটা আমি পারিনা।’

‘স্টিভ ওয়াহ একটা পুল শট না খেলে ১০ হাজার রান করেছে টেস্ট ক্রিকেটে, হাশিম আমলা পুল খেলেনা, রান করছেনা ১০-১৫ হাজার। তো অনেকের অনেক শট থাকেনা কিন্তু পারফর্ম করতে পারে আবার অনেকের শট থাকেনা কিন্তু অনেক রান করতে পারে। আমি চেষ্টা করবো আমার মধ্যে যে গুণ টা আছে সেটা দিয়েই শত্রুর মোকাবেলা করার।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ব্যাটিং উইকেটে বোলারদের এক দিন

Read Next

দক্ষিণ আফ্রিকার দুই নতুন অধিনায়কের নাম ঘোষণা

Total
12
Share