রাব্বির ওয়ানডে মেজাজে ব্যাটিং, ‘৮’ রানের আক্ষেপ

রাব্বির ওয়ানডে মেজাজে ব্যাটিং, '৮' রানের আক্ষেপ

তানজিদ হাসান তামিম ৪১, সাইফ হাসান ৪৯, মাহমুদুল হাসান জয় ৪২; ৪০ এর ঘরেই কাটা পড়েন বাংলাদেশ ইমার্জিং দলের টপ অর্ডারের তিনজন। চার নম্বরে নেমে সেই ধারাবাহিকতা থেকে বের হয়ে আসেন ইয়াসির আলি চৌধুরী রাব্বি। উইকেটের চারপাশে শট খেলে রাব্বি এগিয়ে যাচ্ছিলেন সেঞ্চুরির দিকেও। তবে ৮ রানের আক্ষেপ নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় তাকে।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে উলভসদের ১৫১ রানে অলআউট করে দিয়ে স্বাগতিকরা ১ম দিন শেষ করেছিল ১ উইকেটে ৮১ রান করে।

দ্বিতীয় উইকেটে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে অভিষিক্ত মাহমুদুল হাসান জয়ের সঙ্গে সাইফ হাসানের জুটি থামে ৮৩ রানের মাথায়। দলীয় ১৩৩ রানে বাংলাদেশ ইমার্জিং দলের দ্বিতীয় উইকেটের পতন।

গ্রাহাম হিউমের বলে উইকেটের পেছনে লরকান টাকারকে ক্যাচ দেন সাইফ, তার নামের পাশে রান তখন ৪৯ রান। ফিফটি মিসের আক্ষেপের সঙ্গে যোগ হয় আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত নিয়ে অসন্তোষ। অনফিল্ড আম্পায়ার তানভির আহমেদের দেওয়া সিদ্ধান্তে মোটেও সন্তুষ্ট ছিলেন না সাইফ, মাথা নেড়ে জানান দেন বল তার ব্যাটে লাগেনি। ১২৭ বলে ৪ চার ও ২ ছয়ে ৪৯ রান করেন সাইফ।

পরের ওভারে দলকে একই রানে রেখে বিদায় নেন মাহমুদুল হাসান জয়। ৭৭ বলে ৬ চারে ৪২ রান করা জয়কে এলবিডব্লিউ করে ফেরান গ্যারেথ ডেলানি।

৪র্থ উইকেট জুটিতে ১২২ রান যোগ করেন তৌহিদ হৃদয় ও ইয়াসির আলি চৌধুরী রাব্বি। মারমুখী ঢংয়ে ব্যাট করেছেন রাব্বি।

২৪ বছর বয়সী এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান তুলে নেন প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে নিজের ২৩ তম অর্ধশতক। তবে সেটিকে অল্পের জন্য ৯ম প্রথম শ্রেণির শতকে পরিণত করতে পারেননি তিনি।

১১৫ বলে ৮ চার ও ৫ ছক্কায় ৯২ রান করে আউট হন তিনি। জোনাথন গার্থের বলে লেগ বিফোর উইকেটের ফাঁদে পড়েন তিনি। এর আগে অবশ্য গার্থের বলেই এলবিডব্লিউ হয়ে সাজঘরে ফেরেন তৌহিদ হৃদয়। ৭৪ বলে ২ চারে ৩৬ রান করেন তিনি।

চা বিরতির ঠিক আগে মার্ক অ্যাডায়ারের ১ম শিকার হয়ে সাজঘরে ফিরেছেন শাহাদাত হোসেন দিপু। ৪০ বলে ৩ চারে ২০ রান করে আউট হন তিনি। ১৪ বলে ৩ চারে ১৫ রান নিয়ে অপরাজিত আছেন আকবর আলি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (২য় দিন ২য় সেশন শেষে):

আয়ারল্যান্ড উলভস ১৫১/১০ (৬৭), ম্যাককুলাম ১৯, ল’লর ১৩, ডোহানি ১৪, টেক্টর ০, ক্যাম্ফার ৩৯, টাকার ২০, অ্যাডায়ার ৯, ডেলানি ৪, হিউম ১০, গার্থ ০, চেজ ১৪*; খালেদ ১৫-৫-২০-১, এবাদত ১৪-৪-৩২-২, তানভীর ২৩-৮-৫৫-৫, রিশাদ ৮-১-২০-০, সাইফ ৭-২-১৫-২।

বাংলাদেশ ইমার্জিং দল ২৯৭/৬ (৮১), সাইফ ৪৯, তামিম ৪১, জয় ৪২, রাব্বি ৯২, হৃদয় ৩৬, দিপু ২০, আকবর ১৫*; টেক্টর ২০-৩-৮১-১, হিউম ৮-২-৪৭-১, ডেলানি ১৬-১-৪৯-১, গার্থ ১২-১-৪৮-২, অ্যাডায়ার ১২-৮-১৫-১।

বাংলাদেশ ইমার্জিং দল ৪ উইকেট হাতে রেখে ১ম ইনিংসে ১৪৬ রানে এগিয়ে।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

১০০ ওভার ব্যাটিং, ৪০০ এর বেশি রান- টেস্টে আফগানদের লক্ষ্য

Read Next

ইংলিশ কোচ ও অধিনায়কের বৈঠকঃ প্রসঙ্গ ৩য় টেস্টের উইকেট

Total
4
Share