‘আইসিসি ভারতকে অনুমতি দিচ্ছে যা খুশি তা বানানোর’

'আইসিসি ভারতকে অনুমতি দিচ্ছে যা খুশি তা বানানোর'

আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামের অভিষেকটাই হল এক প্রকার কেলেঙ্কারি দিয়ে। মাত্র ১২ ঘন্টায় শেষে হয়েছে ভারত-ইংল্যান্ড তৃতীয় টেস্ট। এরপরই পিচ নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে চারদিকে। ইংল্যান্ড অধিনায়ক তো শরণাপন্ন হন ম্যাচ রেফারিরও। এদিকে সাবেক ইংলিশ অধিনায়ক মাইকেল ভন বলছেন এভাবে ভারতকে পালিয়ে যাওয়ার সুযোগ দিয়ে আইসিসি দন্তহীন হয়ে পড়ার পথে।

দুইদিনের কম সময়ে শেষ হওয়া ম্যাচে প্রথম দিন থেকেই আধিপত্য বিস্তার করে স্পিনাররা। উইকেটে টার্ন ও ধুলোর ছড়াছড়ি প্রথম দিন থেকেই। যে পিচে হাত ঘুরিয়ে মাত্র ৮ রান খরচায় ৫ উইকেট তুলে নেন ইংলিশ দলপতি জো রুটও।

তবে কাজের কাজ যা করার করে দিয়েছেন ভারতীয় দুই স্পিনার আক্সার প্যাটেল ও রবিচন্দ্রন অশ্বিন। উইকেটে দুজনের বিছিয়ে দেওয়া স্পিন মায়াজালে ১০ উইকেটে হারতে হয়েছে ইংল্যান্ডকে। প্রথম ইনিংসে ১১২ রানের পর দ্বিতীয় ইনিংসে অল আউট ৮১ রানে।

উইকেট নিয়ে শুরু থেকে সোচ্চার ইংলিশ সাবেক কাপ্তান মাইকেল ভন দ্য টেলিগ্রাফে লিখতে গিয়ে বেশ কড়া সুরেই কথা বলেছেন। তার মতে বিশ্ব ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি ভারতকে ইচ্ছেমত পিচ বানানোর অনুমতি দিচ্ছে।

ভন লিখেন, ‘ভারতের মত শক্তিশালী দলগুলোকে যত বেশি পালিয়ে যাওয়ার সুযোগ দেওয়া হবে, ততই আইসিসিকে দন্তহীন দেখাবে। গভর্নিং বডি ভারতকে অনুমতি দিচ্ছে যা খুশি তা বানানোর। আর এটা টেস্ট ক্রিকেট, যা খুব আঘাত পাচ্ছে।’

পাঁচ দিনের ম্যাচ দুইদিনে শেষ হওয়াতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে ব্রডকাস্টার। তাদের হয়ে কথা বললেন ২০০৩ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত ইংল্যান্ডকে নেতৃত্ব দেওয়া মাইকেল ভন।

তার মতে, ‘জিনিসগুলো পরিবর্তনের জন্য ব্রডকাস্টার অর্থ ফেরত চাইতে পারে। খেলোয়াড়েরা ভালো না খেলায় খেলা দ্রুত শেষ হলে তারা মেনে নেয় কিন্তু যখন স্বাগতিক দল ইচ্ছে করে বাজে পিচ তৈরি করে তখন ব্যাপারটা আলাদা। এখনো তিনদিন ফাকা পড়ে আছে কিন্তু তাদের প্রোডাকশন ব্যয় ঠিকই দিতে হচ্ছে। তারা নিশ্চিতভাবেই খুশি না এবং ভবিষ্যতে টেস্টের সম্প্রচার স্বত্ব কেনার আগে দুইবার ভাববে।’

আহমেদাবাদ টেস্টে ভারতকে সরাসরি জয়ী বলতেও আপত্তি ভনের, ‘ভারত তৃতীয় টেস্ট জিতেছে, কিন্তু এটি অগভীর একটি জয়। প্রকৃতপক্ষে এমন ম্যাচে আসলে কোন বিজয়ী থাকেনা। তবুও ভারত তাদের দক্ষতা দেখিয়েছে। আমরা ন্যায্য বলবনা যদি এমনটা অস্বীকার করি যে এ ধরণের কন্ডিশনে তাদের স্কিল ইংল্যান্ডের চেয়ে ভালো। তবে খেলাটির কল্যাণের দিকে নজর দেওয়া উচিত এবং একজন সাবেক ক্রিকেটার হিসেবে এটা আমাদের দায়িত্ব।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

ক্রিকেটকে বিদায় বললেন ইউসুফ পাঠান

Read Next

চট্টগ্রামে লিড নিল বাংলাদেশ ইমার্জিং দল

Total
2
Share