এমসিসির সভায় আলোচনা হল যেসব নিয়ম নিয়ে

এমসিসির সভায় আলোচনা হল যেসব নিয়ম নিয়ে

এমসিসি (মেরিলিবোন ক্রিকেট ক্লাব) ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট কমিটি (ডব্লিউসিসি) সম্প্রতি কনফারেন্স কলের মাধ্যমে এক সভায় বসেছিল। ২০২১ সালে এটি তাদের প্রথম বৈঠক। ২০২০ সালে বাতিল হওয়া শারীরিক বৈঠকের পরিবর্তে ফোনালাপে এ আলোচনা সভায় বসে।

সভায় কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়ঃ

শর্ট পিচড বোলিংঃ

কমিটি জানতে পেরেছে আধুনিক ক্রিকেটে শর্ট পিচড বোলিংয়ের আইনকানুন নিয়ে এমসিসি বৈশ্বিকভাবে আলোচনা করেছে।

ক্রিকেটের নীতি নির্ধারকের অভিভাবক হিসেবে এমসিসির দায়িত্ব হবে আইনগুলোর নিরাপদ পদ্ধতি প্রয়োগ করা, যাতে করে সকল ধরণের খেলায় আদর্শ হয়ে থাকে। কনকাশন নিয়ে গবেষণায় জানা যায়, বিগত বছরগুলোতে এর পরিমাণ বাড়ছে। এমসিসি এ ব্যাপারে ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করছে।

এছাড়াও এ সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়েও আলোচনায় এসেছে। কনকাশনকে একদমই ভিন্ন ধরণের ইনজুরি হিসেবে উল্লেখ করা হচ্ছে। জুনিয়র ক্রিকেট কিংবা নিচের সারির ব্যাটসম্যানদেরকেও অতিরিক্ত সুরক্ষা প্রদান করা হতে পারে।

আইন পরিবর্তনের আগে ক্লাবগুলোতে এ ব্যাপারে আলোচনা করা হয়েছে। জাতীয় পর্যায়ের পরিচালনা পরিষদগুলোর সাথেও ২০১৭ সালে এমসিসি আলোচনায় বসেছিল।

আইন নিয়ে কমিটি আলোচনা করেছিল এবং সকলেই একমতভাবে বলেছে শর্ট পিচড বোলিং ক্রিকেটেরই একটি অংশ, বিশেষ করে শীর্ষস্থানীয় ক্রিকেটে। ইনজুরির পরিমাণ যাতে কম হয়, এ ব্যাপারে খেলার বিষয়াদি আলোকপাত করা হয়। আলোচনার পর তারা তাদের মতামত প্রকাশ করেছিল। এখান থেকে একটি জরিপ করা হবে যা ২০২১ সালের মার্চ মাসে বিভিন্ন গ্রুপের মধ্যে বিতরণ করা হবে। জুনের মধ্যেই বিভিন্ন অংশীদারদের থেকে কাছ তথ্য সংগ্রহ করা হবে।

ফলাফলের পর বিভিন্ন কমিটি ও সাব কমিটির মধ্যে আলোচনা শুরু হবে। এমসিসি কমিটি দ্বারা চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে ২০২১ সালের ডিসেম্বরে এবং ২০২২ সাল থেকে কার্যকর করা হবে।

ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম (ডিআরএস):

এলবিডব্লিউর ক্ষেত্রে ডিআরএস পদ্ধতিতে আম্পায়ার্স কল নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হয়েছে। একই বল আউট কি আউট না, তা অনফিল্ড আম্পায়ারের মাঠের সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর করতে থাকে। আউট হোক, বাতিল হোক, আম্পায়ার্স কল রাখা যাবে না বলে জানা গেছে।

স্টাম্পে হিটিং জোন আগের মতই থাকবে, আউটের সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে যা ৫০ শতাংশ পর্যন্ত দেখা হয়। অন্যান্য সদস্যরা বর্তমান রিভিউ পদ্ধতিতে সন্তুষ্ট। তারা অন ফিল্ড আম্পায়ারের সিদ্ধান্তকেও বহাল তবিয়তে রাখতে চাচ্ছেন। আম্পায়ারদের ক্ষেত্রে ‘বেনিফিট অফ ডাউট’ -এর সুবিধা বহু বছর ধরে চলমান রয়েছে। তারা মনে করে আম্পায়ার্স কলের ধারণার ব্যাপারেও সমর্থকদের বুঝতে হবে।

কমিটি মনে করে, আইসিসির সব আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ডিআরএসের একই প্রযুক্তি ব্যবহার করা উচিত। সেক্ষেত্রে বিভিন্ন টিভি সম্প্রচারকদের উপর নির্ভরশীলতা কমাতে হবে। টিভি আম্পায়ারকে অবশ্যই নিরপেক্ষভাবে ডিআরএসের সিদ্ধান্ত দিতে হবে।

৩০ গজের বৃত্তে ক্যাচের ক্ষেত্রে সফট সিগনাল পদ্ধতি বেশ ভালোভাবে কাজ করছে। তবে বাউন্ডারিতে ক্যাচ নেয়ার সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে আম্পায়াররা দ্বিধায় ভোগেন। এমন ক্যাচের ক্ষেত্রে টিভি আম্পায়ারকে চাইলে কিছু দিক নির্দেশনা বলতে পারে অন ফিল্ড আম্পায়ার।

বলে লালা প্রয়োগঃ

২০২০ সালে করোনা মহামারীতে ইংল্যান্ড বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যকার টেস্টের মধ্য দিয়ে কিছু নীতিতে পরিবর্তন এনেছিল আইসিসি। এর মধ্যে একটি ছিল বলে লালা প্রয়োগ নিষিদ্ধকরণ। একই নিষেধাজ্ঞা স্থানীয় ও বিভিন্ন বিনোদনমূলক ক্রিকেটেও জারি করা হয়েছিল।

বলে ঘাম ব্যবহার করে খেলাকে নিয়ন্ত্রণে রাখা যায় কীনা, এ নিয়ে গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছিল কমিটি। পরবর্তীতে বলে লালার প্রয়োগকে স্থায়ীভাবে নিষেধ করে কমিটি। অনেকের মতে বলে লালার ব্যবহার নিষিদ্ধকরণ বুদ্ধিমানের মত কাজ হয়নি। পৃথিবী করোনামুক্ত হলে বলে আবারও লালা প্রয়োগ করা যাবে বলে অভিমত তাদের।

আইসিসি এই নিয়ম মেনে খেলাগুলো পরিচালনা করে চলেছে এবং লালা বিহীন ক্রিকেটের বিষয়ে কমিটিও ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করে চলছে। নিয়ম পরিবর্তনের ফলে সুবিধা-অসুবিধা দুটোই দেখা যায় বলে জানিয়েছে কমিটির বিশেষজ্ঞরা।

আইসিসি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ভবিষ্যৎ:

বর্তমানে আইসিসি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের কার্যক্রম নিয়ে সন্তুষ্ট কমিটি। এ বছরের মাঝামাঝিতে প্রথম ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে।

২য় কার্যক্রম নিয়ে আলোচনা করেছে কমিটি। ২০২১ থেকে ২০২৩ এর মধ্যে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ২য় ধাপ অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ৩ বছরে এ কার্যক্রমে কী কী উন্নতি করা যায়, তা নিয়ে বৈঠকে আলোকপাত করা হয়।

সম্ভাব্য বিভিন্ন সুবিধাদি নিয়ে কমিটির সদস্যরা কথা বলেছে এবং এগুলো সঠিকভাবে সম্প্রসারণ করে আগামী মাসে আইসিসিকে প্রদান করবে তারা। এফটিপির আওতায় বিভিন্ন ম্যাচ এবং বাণিজ্যিক ক্ষেত্রে দর্শকদের মাঠের আসার ব্যাপারেও আলোচনা করেছে তারা।

স্বাগতিক দেশের আম্পায়ারদের টেস্ট ক্রিকেট ব্যবহারঃ

করোনার প্রভাবে স্বাগতিক দেশের আম্পায়াররা ম্যাচ পরিচালনার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাচ্ছে। একই সাথে একটি অতিরিক্ত রিভিউও যোগ করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত আম্পায়াররা বেশ ভালো করে চলেছে। কোন ভুল সিদ্ধান্ত হলেও ডিআরএস সেটি নিরসন করে দিচ্ছে।

স্বাগতিক দেশের আম্পায়ারদের অন্যান্য আন্তর্জাতিক ম্যাচগুলোর পরিচালনা করার সুযোগ করে কমিটি। শুধু খরচ বা সফরের ভোগান্তি কমাচ্ছে না, একইসাথে নিজের দেশের আম্পায়ারদের ব্যবহারের ক্ষেত্রে বিশ্বব্যাপী অনুপ্রাণিত হচ্ছে দেশগুলো। সেরা আম্পায়াররা বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে প্রশংসিত হচ্ছে।

মাঠে নিরপেক্ষ আম্পায়ারের যুক্তির ক্ষেত্রে কমিটি জানিয়েছে, একজন নিরপেক্ষ আম্পায়ারের সাথে একজন অনফিল্ড আম্পায়ারকে যেন মাঠে রাখা হয়। আম্পায়ারদের দক্ষতা বাড়ানোর ক্ষেত্রে বিভিন্ন জায়গায় ম্যাচ পরিচালনার সুযোগও থাকছে। টিভি আম্পায়ার ও ম্যাচ রেফারির নিরপেক্ষতাকেও গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে।

টিভি আম্পায়ারদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র রয়েছে। কমিটি পরামর্শ দিয়েছে দক্ষ টিভি আম্পায়ারকে সকল ম্যাচের জন্য একটি নির্দিষ্ট জায়গা ধরে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ ফুটবল এবং আমেরিকায় এনএফএল ও বাস্কেটবলেও এমনটা দেখা যায়।

নারী ক্রিকেটঃ

কমিটি জানতে পেরেছে করোনা মহামারীর পর পুরুষ ক্রিকেটের বিপরীতে নারী ক্রিকেট তূলনামূলকভাবে অনেক কম অনুষ্ঠিত হচ্ছে। কোভিডের পর এখনও অনেক দেশ ম্যাচই খেলতে পারেনি। জানা গেছে কিছু দেশ ম্যাচ খেলার ব্যাপারে এখনও সামর্থ্যবান হতে পারেনি। করোনার পর কোয়ারেন্টাইন সময়কাল, বিভিন্ন দেশে যাতায়াত এবং ম্যাচ আয়োজনে বিপুল অর্থ খরচ করতে হয় দেশসমূহকে। বিভিন্ন দেশ এদিক দিয়ে এখনও অপর্যাপ্ততা দেখা দিয়েছে।

পরবর্তী বৈঠকে নারী ক্রিকেট নিয়ে আরও বিষদ আলোচনা করবে বলে জানিয়েছে কমিটি। ২০২২ সালের মার্চ ও এপ্রিলের মধ্যে বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব অনুষ্ঠিত হবে। নারী ক্রিকেটের অগ্রগতি নিয়েও কমিটি ভীষণ আগ্রহী।

কমিটিতে যারা ছিলেনঃ

মাইক গ্যাটিং (সভাপতি)
জন স্টিফেনসন (এমসিসি সহকারি সচিব-ক্রিকেট)
সুজি বেটস
স্যার অ্যালিস্টার কুক
কুমার ধর্মসেনা
সৌরভ গাঙ্গুলি
টিম মে
ব্রেন্ডন ম্যাককুলাম
রিকি পন্টিং
রমিজ রাজা
কুমার সাঙ্গাকারা
রিকি স্কেরিট
ভিন্স ভ্যান ডার বিল
শেন ওয়ার্ন

পরবর্তী বৈঠক এ বছরের আগস্টে লর্ডসে অনুষ্ঠিত হবে।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

নিউজিল্যান্ড গেটের তালা খুলতে চান তামিম-সৌম্যরা

Read Next

সাকিবের সিদ্ধান্ত নিয়ে ডোমিঙ্গোর ভাষ্য

Total
4
Share