গুঞ্জনের আগুনে পানি ঢাললেন বিসিবি সভাপতি

সাকিব পাপন

বেশ কিছুদিন ধরেই ক্রিকেট পাড়া সরগরম সাকিব আল হাসান ইস্যুতে। ১৮ ফেব্রুয়ারি আইপিএল নিলামে ২ কোটি ভারতীয় রুপি ভিত্তিমূল্যে থাকা সাকিব আল হাসানকে ৩ কোটি ২০ লাখ রুপিতে দলে নেয় কোলকাতা নাইট রাইডার্স।

শুরুতে সাকিব আরো বেশি দাম পেতে পারতেন কিনা এই নিয়ে চলছিল আলোচনা। তবে পরদিন সাকিব আইপিএল খেলার জন্য শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট খেলবেন না- খবর প্রকাশিত হলে আলোচনা মোড় নেয় ভিন্ন খাতে। অনেকে প্রশ্ন তোলেন সাকিবের নিবেদন নিয়ে।

সাকিব কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ পড়বেন, বা লাল বলের চুক্তিতে থাকবেন না এমন গুঞ্জন পাখা মেলে। বিসিবি সভাপতির বোর্ডে এসে সভা করায় তা আরো আলোচনার খোরাক তৈরি করে দেয়। সভা শেষে সাকিব ইস্যুতেই প্রশ্ন আসে বেশি বিসিবি সভাপতির কাছে।

গুঞ্জনের আগুনে পানি ঢেলে বোর্ড সভাপতি জানান, ‘না, সাকিবের চুক্তি নিয়ে কোন আলাপ আলোচনা হয়নি।’

তবে তাতেই সাকিব ইস্যুতে আগ্রহ কমে যাবার কথা নয়, কমেওনি। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে সাকিব না খেলে আইপিএল খেলছে, এটা ক্রিকেটারের কাছে বোর্ডের জিম্মি থাকার ইঙ্গিত কিনা জানতে চাওয়া হয় বিসিবি সভাপতির কাছে।

‘এটা একেবারে অস্বীকার করার পথ নেই (ক্রিকেটারদের কাছে জিম্মি হয়ে যাচ্ছে কিনা প্রশ্নে)। এটা এর আগেও যে হয়নি তা না। তবে এখন একটা ব্যাপারে আমাদের মাইন্ড ইজ ভেরি ক্লিয়ার। আমরা কাউকে জোর করে কোথাও পাঠাবো না, যারা খেলতে চায় না তারা খেলবে না। আমরা চাই সবাই খেলুক। তবে কারো যদি ন্যাশনাল টিমের চাইতে অন্য কোথাও খেলতে ভাল লাগে তাহলে তারা যেতে পারে, কোন বাঁধা নেই। এই বার্তাটা সবার জন্য, কেবল সাকিব আল হাসানের জন্য না।’

ক্রিকেটারদের চুক্তিতে নতুন কিছু টার্মস অ্যান্ড কন্ডিশন আনতে চলেছে বিসিবি। যেখানে সবকিছু স্পষ্ট করে দেওয়া থাকবে বলে জানান বিসিবি সভাপতি।

‘আমরা আজ এই ব্যাপারেও আলোচনা করেছি, আমরা ওদের (জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের সাথে) সাথে একটা কন্ট্র্যাক্ট তৈরি করব। আমরা এখনো এবার কোন কন্ট্র্যাক্ট করিনি তো। কন্ট্র্যাক্ট শেষ হয়ে যে, এরপর আমরা নতুন কন্ট্র্যাক্টে যাইনি। এই কন্ট্র্যাক্টে আরো নতুন কিছু জিনিস যুক্ত হবে। ওখানে পরিস্কারভাবে লেখা থাকবে, যে কে কোন ফরম্যাট খেলতে চায়, তাদেরকে বলতে হবে। এবং এটাও জানতে হবে তাদের যদি ঐ সময়ে অন্য কোন খেলা থাকে তাহলে সেখানে খেলবে নাকি দেশের হয়ে খেলবে। এই কন্ট্র্য্যাক্টে যারা সই করবে তাদের তো আমরা তখন যেতে দিব না। এখন ব্যাপার টা ওপেন। আগে এটা ছিল ইনডিভিজুয়ালের ওপরে, এখন আমরা কাগজে কলমে লিখিত নিয়ে নিব। কারো বলার কিছু থাকবে না, যে দিল না, জোর করে যাচ্ছে-এসব বলার কিছু থাকবে না। ইটস অবভিয়াস, যে খেলবে না, সে খেলবে না।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

বিসিবির সাথে ইভ্যালির ‘ফ্রিকুয়েন্সি’ এর মিল

Read Next

বিসিবি সভাপতির শরণাপন্ন মুস্তাফিজ

Total
13
Share