বোনার যখন গলার কাটা

বোনার যখন গলার কাটা

ওয়েস্ট ইন্ডিজ, বাংলাদেশ, ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সাফল্য অনুসারের ঢাকা টেস্টের প্রথম দিনের তিন সেশনকে পর্যায়ক্রমে সাজালে এমনই হচ্ছে। অবিশ্বাস্যভাবে চট্টগ্রাম টেস্ট জেতা ক্যারিবিয়ানরা মিরপুরে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে প্রথম দিন শেষে করেছে ৫ উইকেটে ২২৩ রান তুলে। ক্রিজে টিকেও ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট, জন ক্যাম্পবেল, জার্মেইন ব্ল্যাকউডরা ইনিংস লম্বা করতে না পারলেও সেঞ্চুরির পথে ছুটছেন এনক্রুমাহ বোনার।

সাগরিকায় ক্যারিবিয়ানদের কাছে হারের পরও স্পিন নির্ভরতা থেকে বের হতে পারেনি বাংলাদেশ। একাদশে তিন স্বীকৃত স্পিনারের বিপরীতে মাত্র একজন পেসার। আগের ম্যাচে আবু জায়েদ রাহির একাদশে না থাকাটা বিস্ময়কর হলেও এই ম্যাচে মুস্তাফিজুর রহমানের পরিবর্তে সুযোগ হয়েছে এই ডানহাতির। তবে মুস্তাফিজের বাদ পড়াটাও এ ম্যাচে কম আশ্চর্যের নয়। অন্তত সারাদিনে পেসারদের সাফল্য কিছুটা হলেও আক্ষেপে পোড়ানোর কথা।

প্রথম সেশনে ১ উইকেটে ৮৪, দ্বিতীয় সেশন শেষে ৪ উইকেটে ১৪৬ ও দিনশেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্কোরবোর্ডে ৫ উইকেটে ২২৩। চট্টগ্রামে অভিষেক ম্যাচেই দলের জয়ে ৮৬ রানের ইনিংস খেলা এনক্রুমাহ বোনার অপরাজিত আছেন ৭৪ রানে, তাকে সঙ্গ দেওয়া জশুয়া ডা সিলভা ২০ রানে।

শুরু থেকেই টাইগার স্পিনারদের বেশ সাবলীলভাবেই খেলেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব্যাটসম্যানরা। যা ধরে রাখে দিনের শেষ পর্যন্ত। স্পিন নির্ভর উইকেট হলেও প্রথম দিন খুব একটা সহায়তা না পাওয়াটা স্বাভাবিক। কিন্তু এর বাইরে দারুণ কোন দক্ষতা দেখিয়ে প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানকে বিভ্রান্তিতে ফেলার মত ধারাবাহিক বল করতে পারেনি তাইজুল ইসলাম, নাইম হাসান , মেহেদী হাসান মিরাজরা।

দিনের প্রথম ওভারটি করেন রাহি, উইকেট না পেলেও প্রথম সেশনে বেশ নিয়ন্ত্রিত বল করেছেন ডানহাতি এই পেসার। অফ স্টাম্পের বাইরে ফেলে ছোটখাটো ইনসুইংয়ে কিছুটা হলেও ভুগিয়েছেন ক্যারিবিয়ান দুই বাঁহাতি ওপেনার ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট ও জন ক্যাম্পবেলকে। তবে দুজনেই স্পিন সামলেছেন দারুণভাবে।

১৪.২ ওভারেই স্কোরবোর্ডে ৫০ রান তুলে ফেলে ব্র্যাথওয়েট-ক্যাম্পবেল জুটি। তাইজুলের বলে ক্যাম্পবেল এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়লে ভাঙে দুজনের ৬৬ রানের জুটি। ২১তম ওভারের চতুর্থ বলে তাইজুলকে সুইপ খেলতে গিয়ে টাইমিংয়ে গড়বড় করে ক্যাম্পবেল। ফিরেছেন ৬৮ বলে ৩৬ রান করে।

ক্যাম্পবেলের বিদায়ের পর অধিনায়ক ব্র্যাথওয়েটের ব্যাটে প্রথম সেশন ওয়েস্ট ইন্ডিজের। ৩৯ রানে অপরাজিত থেকে লাঞ্চে যাওয়া ব্র্যাথওয়েট অবশ্য লাঞ্চের পর ফিরেছেন ফিফটি মিস করে।

রাহির জোড়া আঘাতের সাথে সৌম্য সরকারের এক উইকেটে দ্বিতীয় সেশনটা বাংলাদেশেরই। দিনের প্রথম সেশনে উইকেট শূন্য থাকলেও দারুণ বোলিং করেন রাহি। তবে প্রাপ্য উইকেটটা পেতে লাঞ্চের পর বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি।

সেশনে নিজের তৃতীয় ওভারেই শট খেলাতে বাধ্য করেন শেইন মোসলেকে। টানা কয়েকটি বলই অফ স্টাম্পের বাইরে থেকে হালকা ইনসুইং করান। আউট হওয়া বলে মোসলে অফ স্টাম্পের বেশ বাইরের বল খেলতে গিয়ে ব্যাট থেকে স্টাম্পে নিয়ে আসেন। বোল্ড হওয়ার আগে করতে পারেন ৭ রান।

ইনিংসের ৩৮ তম ওভারে বল হাতে আক্রমণে আসেন খন্ডকালীন পেসার সৌম্য সরকার। সাকিব আল হাসানের বদলি হিসেবে খেলতে নামা সৌম্য দারুণ খেলতে থাকা প্রতিপক্ষ অধিনায়ককে সাঝঘরের পথ দেখান। স্লিপে দাঁড়ানো নাজমুল হোসেন শান্তর হাতে ক্যাচ দেওয়ায়র আগে ব্র্যাথওয়েট ১২২ বল খেলে ৪ চারের সাহায্যে করেন ৪৭ রান।

আগের ম্যাচের রেকর্ড বয় কাইল মায়ের্সকে বেশিক্ষণ টিকতে দেননি ম্যাচে এখনো পর্যন্ত টাইগারদের সেরা বোলার রাহি। ফুল লেংথে পড়া তার ডেলিভারিটি বেশ ভালোভাবেই ড্রাইভ খেলার চেষ্টা এই বাঁহাতির। তবে ব্যাটে বলের সংযোগটা ঠিকঠাক না হওয়াতে ধরা পড়েন ওয়াইড স্লিপে। ১৮ বল খেলে ৫ রানেই ইতি ঘটে তার ইনিংসের।

২৯ রানে ৩ উইকেট হারানো ওয়েস্ট ইন্ডিজকে পথ দেখান এনক্রুমাহ বোনার। আগের ম্যাচে ৮৬ রানের ইনিংস খেলা এই ডানহাতি দিনশেষ করেছেন সেঞ্চুরির অপেক্ষা নিয়ে। জার্মেইন ব্ল্যাকউডকে নিয়ে ৫ম উইকেট জুটিতে যোগ করেন ৫৮ রান। শেষ সেশনে ওয়েস ইন্ডিজের হারানো একমাত্র উইকেট হয়ে ব্ল্যাকউড ফিরেছেন ২৮ রান করে। তাইজুলের দ্বিতীয় শিকার হওয়ার পথে দিয়েছেন ফিরতি ক্যাচ।

জশুয়া ডা সিলভাকে নিয়ে দিনের বাকিটা সময় অনায়েসেই কাটিয়েছেন বোনার। দুজনের অবিচ্ছেদ্য জুটিতে আসে ৪৪ রান। ৯৮ বলে ফিফটি ছোঁয়া বোনার অপরাজিত ১৭৩ বলে ৬ চারে ৭৪ রান নিয়ে। ৪৫ বলে জশুয়া ডা সিলভা অপরাজিত ২০ রানে।

একাদশে তিন পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নামে বাংলাদেশ। চোটে পড়ে ছিটকে যাওয়া সাকিব আল হাসান ও সাদমান ইসলামের পরিবর্তে সুযোগ হয় সৌম্য সরকার ও মোহাম্মদ মিঠুনের। মুস্তাফিজুর রহমানের পরিবর্তে জায়গা পান পেসার আবু জায়েদ রাহি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (১ম দিন শেষে):

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২২৩/৫ (৯০), ব্র্যাথওয়েট ৪৭, ক্যাম্পবেল ৩৬, মোসলে ৭, বোনার ৭৪*, মায়ের্স ৫, ব্ল্যাকউড ২৮, জশুয়া ২২*; রাহি ১৮-৫-৪৬-২, তাইজুল ৩০-৫-৬৪-২, সৌম্য ৮-১-৩০-১।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

নেই রেডফোর্ড, আসছেন চম্পাকা

Read Next

সাকিবের ছুটি মঞ্জুর করেছে বিসিবি

Total
5
Share