বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশ আসবে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড

বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশ আসবে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড

আইসিসির এফটিপি (ফিউচার ট্যুরস প্রোগ্রাম) অনুসারে চলতি বছরের শেষদিকে সাদা বলের ক্রিকেট খেলতে বাংলাদেশ সফর করার কথা অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডের। তবে ভারতে অনুষ্ঠিতব্য টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের বাংলাদেশে আসা অনেকটা চূড়ান্ত। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে অস্ট্রেলিয়ার সাথে তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলার সুযোগ তৈরি হওয়াতে উচ্ছ্বসিত বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

আজ (১০ ফেব্রুয়ারি) মিরপুরে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপটা যেহেতু ভারতে নির্ধারিত আছে অক্টোবরে তার আগে আমরা চেষ্টা করছি। এটা আমাদের এফটিপিতেই আছে, কয়েকটি দেশের বাংলাদেশ সফরের পরিকল্পনা রয়েছে, তার মধ্যে অস্ট্রেলিয়াও আছে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশ সফরের ব্যাপারে আমরা (ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া ও বিসিবি) দুই বোর্ড নীতিগতভাবে সম্মত আছি। আর এভাবেই আমাদের শিডিউল করা আছে।’

অস্ট্রেলিয়ার সাথে ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ডেরও বাংলাদেশ সফরের কথা আছে। কাছাকাছি সময়ে হওয়াতে ত্রিদেশীয় সিরিজ হওয়ার একটা সম্ভাবনা থাকলেও নিজাম উদ্দিন চৌধুরী বলছেন চূড়ান্ত হওয়ার আগে কিছু বলতে পারছেন না।

বিসিবি প্রধান নির্বাহী এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘আমরা আসলে কাজ করছি। এখনো পর্যন্ত কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। এখনো পর্যন্ত যেটা আছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ড বাংলাদেশ সফর করবে। এভাবেই আমাদের প্ল্যান আছে, এখন পর্যন্ত কোন ত্রিদেশীয় সিরিজ আয়োজনের ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি।’

এদিকে এফটিপি অনুসারে অস্ট্রেলিয়ার সাথে তিন টেস্ট, দুই টি-টোয়েন্টি ম্যাচের সিরিজ খেলার কথা ছিল বাংলাদেশের। তবে ব্যস্ত সূচিতে ঠাঁসা দুই দলের পর্যাপ্ত সময় না থাকাতে আপাতত টি-টোয়েন্টি সিরিজটিই সামঞ্জস্য করা হচ্ছে। যেখানে বাড়ছে টি-টোয়েন্টি ম্যাচের সংখ্যাও, দুইটির জায়গায় হবে তিনটি। অক্টোবরে ভারতে অনুষ্ঠিতব্য টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বলে নিজেদের মাঠে অজিদের বিপক্ষে খেলতে পারাকে বড় সুযোগ হিসেবে দেখছে বিসিবি প্রধান নির্বাহী।

নিজাম উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়ার সাথে আমাদের তিন টেস্ট দুই টি-টোয়েন্টি ছিল। এখন যেহেতু টি-টোয়েন্টিটা এখানে ফিট করা যাচ্ছে আমরা সেটা করছি। দুইটা টি-টোয়েন্টি বাড়িয়ে তিনটা করা হচ্ছে। এর মানে এই না যে এটার বদলে ওটা, যতটুকু ফিট করা যায়। যেমন যদি টেস্ট ফিট করার জায়গা থাকতো আমরা টেস্ট ফিট করতাম।’

‘যেহেতু আমাদের ও অস্ট্রেলিয়ার সময় এভেইলেবল তিনটা ওয়ানডে, তিনটা টেস্ট অথবা তিনটা টি-টয়েন্টি খেলার। তাই আমরা টি-টোয়েন্টি ফিট করেছি। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে এটা আমদের জন্য ভালো প্রস্তুতি। এটা বড় সুযোগ যে বিশ্বকাপের আগেই এমন হাই প্রোফাইল একটা দলের বিপক্ষে খেলার সুযোগ পাচ্ছি।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

লিটনের ক্যারিয়ার সেরা রেটিং, মুমিনুল-সাকিবদের উন্নতি

Read Next

‘পরবর্তী ম্যাচ হারলে অধিনায়কত্ব ছেড়ে দিবেন কোহলি’

Total
71
Share