২৩ দিনের জন্য এনে ৭০ দিনের বেতন দিতে হত ভেট্টোরিকে!

ড্যানিয়েল ভেট্টোরি
Vinkmag ad

১০০ দিনের চুক্তিতে রেকর্ড পারিশ্রমিকের বিনিময়ে নিউজিল্যান্ডের কিংবদন্তী স্পিনার ড্যানিয়েল ভেট্টোরিকে বাংলাদেশ দলের স্পিন কোচ হিসেবে নিয়োগ দেয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। তবে ২০১৯ সালে নিয়োগের পর থেকে বেশিরভাগ সিরিজেই নানা কারণে কাজ করা হয়নি তাইজুল ইসলাম, নাইম হাসানদের নিয়ে। এদিকে করোনা প্রভাবে ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজে তাকে পেতে বেশ বড় অঙ্কের অর্থই খরচ করতে হত দেশের ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে।

ক্যারিবিয়ায়নদের বিপক্ষে সিরিজে তাকে পাওয়া না গেলেও বাংলাদেশের নিউজিল্যান্ড সফরের সময় টাইগার স্পিনারদের সঙ্গ দিবেন ভেট্টোরি। তিনটি ওয়ানডে ও তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলতে চলতি মাসের শেষদিকে নিউজিল্যান্ডের উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়বে টাইগার ক্রিকেটাররা।

২০১৯ সালে নভেম্বরে বাংলাদেশ দলের স্পিন কোচের দায়িত্ব পান ভেট্টোরি। ভারত সফর দিয়ে মিশন শুরু করা ভেট্টোরি নিরাপত্তা ইস্যুতে যাননি পাকিস্তান সফরে। ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টাইগার স্পিনার সাথে কাজ করার পরই বিশ্বজুড়ে নামে করোনার থাবা। সেই যে দেশে ফিরে গেছেন আর বাংলাদেশে আসা হয়নি ভেট্টোরির।

করোনা পরবর্তী শ্রীলঙ্কা সফর দিয়ে গত অক্টোবরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রত্যাবর্তনের কথা ছিল বাংলাদেশের। শেষ মুহূর্তে সফর স্থগিত হলেও ভেট্টোরির আসা না আসা নিয়ে ছিল বেশ সংশয়। মূলত নিউজিল্যান্ডের কোয়ারেন্টাইন নিয়মের কারণেই জটিল হয়ে পড়ে তার দেশ ছেড়ে আসা। একই কারণে চলমান ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজেও পাওয়া আয়নি তাকে। যেখানে খরচ করতে হত বিসিবিকে বড় অঙ্কের অর্থও।

এ প্রসঙ্গে আজ (৮ ফেব্রুয়ারি) গণমাধ্যমকে বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান বলেন, ‘আসলে তাকে ৬০-৭০ দিন দেশের বাইরে থাকতে হতো। নিউজিল্যান্ড দেশের বাইরে থেকে যাওয়ার পর কোয়ারেন্টাইনের জন্য একটি হোটেল বুক করেছে। এটাতে কিন্তু ওভার বুকড।’

‘ওকে যদি আনি ২৩ দিনের জন্য আর ৭০ দিনের জন্য টাকা পয়সা দিতে হয় তাহলে আর্থিক ভাবে আমাদের অনেক ক্ষতি হবে। তাই তাঁকে আনত পারিনি। সে নিউজিল্যান্ডে বাংলাদেশ দলের সঙ্গে যোগ দিচ্ছে। ওর কোয়ারেন্টাইন লাগবে না। যেহেতু সে সেখানেই আছে। এর মধ্যে ভালো একজন স্পিন বোলিং কোচ পাওয়ার চেষ্টা করবো আমরা।’

বাংলাদেশের নিউজিল্যান্ড সফরের সময় কাজ করলেও ১০০ দিনের চুক্তি শেষ হলে এ যাত্রায় আর ভেট্টোরিকে চালিয়ে না নেওয়ার পথে হাঁটছে বিসিবি।

তার আগে চলমান ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের জন্য খন্ডকালীন স্পিন কোচ হিসেবে নিয়োগ পেয়েছিলেন বিসিবির চুক্তিবদ্ধ দেশি কোচ সোহেল ইসলাম। কিন্তু ঢাকায় প্রথম দুই ওয়ানডে পর্যন্ত তাকে দলের সাথে দেখা গেলেও চট্টগ্রামে দেখা মেলেনি এই কোচের।

চট্টগ্রাম টেস্টে স্পিনারদের ব্যর্থতা ও ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে হারের পরই বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে সামনে আসে। সোহেল ইসলামের চট্টগ্রাম না যাওয়া ও স্পিনারদের ব্যর্থতার মাঝে অবশ্য যোগসূত্র খুঁজে পাননা ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান।

তিনি বলেন, ‘একদিনে আসলে সব শিক্ষা হয় না। যেখানে সাকিব আছে সেখানে যত বড়ই কোচ আসুক না কেন তাঁর পরামর্শ থাকলে সেটাই যথেষ্ঠ। এখন আসুন মাঠের খেলাটা, যখন কোচিংয়ের প্রয়োজন ছিল তখন দিয়েছি, এইজ গ্রুপে। তাঁর পরও ব্যক্তিগত কারণে সে কেন যেতে পারেনি সেটা জানি না।’

‘আমার কাছে মনে হয়েছে অনেক দিন পর টেস্ট খেলছে বাংলাদেশ। বোলাররা অনেকদিন পর এতো লম্বা সময় বোলিং করেছে। এ কারণেই চোখে পড়েছে আমার দুর্বল জায়গাগুলো। আর ওয়েস্ট ইন্ডিজ সত্যিই ভালো ব্যাটিং করেছে। (মায়ের্স) একাই সে ম্যাচিটা জিতিয়েছে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

কোচ বাবার রাতের ঘুম কেড়ে নেওয়া কাইল মায়ের্স

Read Next

বিশ্ব জয়ের এক বছর, আকবর আছেন আগের মতই

Total
3
Share