মুমিনুলে খুশি কোচ, ব্যাখ্যা দিলেন বাড়তি পেসার না খেলানোর

ঘুরে দাঁড়াতে জাদুমন্ত্রের খোঁজে মুমিনুল
Vinkmag ad

সাগরিকার জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম মানেই মুমিনুল হকের জন্য ব্যাটিং স্বর্গ। ক্যারিয়ারের ১০ সেঞ্চুরির ৭ টিই হাঁকিয়েছেন সাগরপাড়ের মাঠটিতে। আজ (৬ ফেব্রুয়ারি) চট্টগ্রাম টেস্টের চতুর্থ দিনে ক্যারিবিয়ায়নদের বিপক্ষে খেললেন ১১৫ রানের ইনিংস। অধিনায়কের সেঞ্চুরিতে ভর করে বড় ৩৯৪ রানের বড় লিড পাওয়া বাংলাদেশ পাচ্ছে জয়ের সুবাস।

১৭১ রানের লিড নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করা বাংলাদেশ ৮ উইকেটে ২২৩ রান করে ইনিংস ঘোষণা করে। যেখানে মুমিনুল খেলেছেন ১১৫ রানের দারুণ এক ইনিংস, তাকে যোগ্য সঙ্গ দেওয়া লিটন দাসের ব্যাট থেকে আসে ৬৯ রান। আজকের সেঞ্চুরি নিয়ে দেশের সর্বোচ্চ টেস্ট সেঞ্চুরির একক মালিক এখন টাইগারদের টেস্ট কাপ্তান।

সর্বশেষে টেস্টেও জিম্ববাবুয়ের বিপক্ষে ১৩২ রানের ইনিংস খেলে তামিম ইকবালের সাথে ৯ সেঞ্চুরিতে যৌথভাবে শীর্ষে উঠে আসেন। আজ ক্যারিবিয়ায়নদের বিপক্ষে সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে সে রেকর্ডের একক মালিক হলেন।

মুমিনুলের প্রশংসা করে দিন শেষে ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো বলেন, ‘ব্যাক টু ব্যাক শতক হাঁকিয়েছে, দারুণ। গত মার্চে সবশেষ খেলেছিল। আরেক দারুণ শতক দিয়ে ফিরল। সে যেভাবে খেলছে তাতে আমরা বেশ খুশি।’

৩৯৫ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে চতুর্থ দিন শেষ সেশনেই মিরাজের স্পিন ঘূর্ণিতে তিন উইকেট হারায় ক্যারিবিয়ায়নরা। শেষদিকে মিরাজ, নাইম, তাইজুলদের সামলে আর কোণ উইকেট না হারিয়ে স্কোরবোর্ডে ১১০ রান তুলে দিন শেষ করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তবে শেষদিনে কাজটা যে বেশ কঠিন হবে সফরকারীদের জন্য সেটা বলার অপেক্ষা রাখেনা। জিততে হলে ৭ উইকেটে ৫ম দিনে করতে হবে ২৮৫ রান।

শেষদিন ক্যারিবিয়ানদের ৭ উইকেট তুলে নিতে পারলেই টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম জয়ের দেখা পাবে বাংলাদেশ। এর আগে খেয়াল তিন ম্যাচেই হেরেছে ইনিংস ব্যবধানে। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের পয়েন্ট পেতে বেশি ম্যাচ না খেলার আক্ষেপ টাইগারদের প্রধান কোচের।

তিনি বলেন, ‘অনেক গুরুত্বপূর্ণ। টেস্ট ক্রিকেটে আমরা অনেক গুরুত্ব দিতে চাইছি। আমরা উন্নতি করতে চাই। আমি জানি, ঘরের বাইরে আমাদের পারফরম্যান্স ভালো নয়। এই দলের আরও বেশি টেস্ট খেলা প্রয়োজন। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে অনেক দল ১৬-১৭টি ম্যাচ খেলে ফেলেছে, অথচ আমরা মাত্র ৩টি। ধারাবাহিকতা ধরে রাখা কঠিন। বছরে মাত্র ৩-৪টা টেস্ট খেলা হয়। যমরা যত বেশি খেলবো, তত ভালো করব এবং আশা করি উন্নতিও করব।’

এদিকে স্কোয়াডে পাঁচ পেসার রাখা হলেও ম্যাচে খেলছেন একমাত্র মুস্তাফিজুর রহমান। উইকেট বিবেচনায় ডোমিঙ্গো অবশ্য বলছেন ইচ্ছে থাকলেও খেলানো সম্ভব হয়নি বাড়টি পেসার।

ডোমিঙ্গো বলেন, ‘চেষ্টা করছি দলে ফাস্ট বোলারদের ভেড়ানোর। এমন উইকেটে অবশ্য কঠিন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের একাদশ দেখুন- তাদের কেমার রোচ ও শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের মত অনেক অভিজ্ঞ দুই ফাস্ট বোলার আছে। ২৩০ রানের মত খরচ করে তারা মাত্র ২ উইকেট পেয়েছে এই পিচে। তাই এই উইকেটে ফাস্ট বোলারদের ভালো করা কঠিন। গতি নেই, বাউন্স নেই, এসব বিবেচনা করেই আমরা হোম টেস্টের একাদশে পেসারদের বিবেচনা করি।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ঢাকা টেস্টেও অনিশ্চিত সাকিব

Read Next

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার অ্যাওয়ার্ড নাইটে অ্যাওয়ার্ড জিতলেন যারা

Total
15
Share