‘২৫০’ ই যথেষ্ট বলছেন তাইজুল, তবে…

'২৫০' ই যথেষ্ট বলছেন তাইজুল, তবে

চট্টগ্রাম টেস্টের তৃতীয় দিন শেষে ২১৮ রানের লিড বাংলাদেশের। দ্বিতীয় ইনিংসে ৩ উইকেটে ৪৭ রান নিয়ে দিন শেষ করেছে বাংলাদেশ। জয়ের জন্য সাগরিকার এই উইকেটে ২৫০ রানের লিডই হবে যথেষ্ট বলছেন বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলাম।

প্রথম দুইদিন সেভাবে স্পিন না ধরলেও জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে আজ (৫ ফেব্রুয়ারি) তৃতীয় দিন সকাল থেকেই বাড়তি টার্ন দেখা যায়। যার শুরুটা করেছেন তাইজুল ইসলাম, দিনের প্রথম বলেই ফেরান প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যান ক্রুমাহ বোনারকে।

তৃতীয় দিন দুই দল মিলে হারিয়েছে ১১ উইকেট যার ১০ টিই শিকার করেছেন স্পিনাররা। তবে প্রথম সেশনে ক্যারিবিয়ানদের ৩ উইকেট তুলে নিলেও করেছেন বেশ কিছু বাজে বল। যেখানে উইকেট হারালেও অনেকটা ওয়ানডে মেজাজে রান তুলতে পেরেছে ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যানরা। সকালের সেশনেই তুলে নেয় ১১৪ রান।

দ্বিতীয় সেশনের শুরুতে উইকেট না পেলেও বেশ ভুগিয়েছে জশুয়া ডা সিলভা ও জার্মেইন ব্ল্যাকউডকে। দুজনের ৯৯ রানের জুটি ভাঙে টানা ভালো জায়গায় বল করার সুবাদে।

ইতোমধ্যে ২১৮ রানের লিড পাওয়া বাংলাদেশ আগামীকাল ব্যাট করেও লিড বাড়িয়ে নেওয়ার সুযোগ পাচ্ছে। দলের জয়ের জন্য ২৫০ কে যথেষ্ট মনে করছেন তাইজুল। তবে আজ তৃতীয় দিন প্রথম সেশনের মত বাজে বোলিং করলে জয়টা কঠিন হতে পারে বলেও মানছেন।

তৃতীয় দিন শেষে ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তাইজুল বলেন, ‘এই উইকেটের জন্য তৃতীয় দিনে এটা ভালো লিড। এছাড়া কাল তো ব্যাটিং করব। এই উইকেটে ২৫০ রানই যথেষ্ট। তবে একটা বিষয় আছে- আমাদের প্রথম সেশন যেরকম খারাপ বোলিং করেছি ওরকম বোলিং করলে এই রানে জেতা কঠিন হয়ে যাবে। দ্বিতীয় সেশনে যে বোলিং করেছি ওরকম করলে ২৫০ যথেষ্ট। তারপরও আমাদের আশা ওদের ৩০০-৩৫০ এর মত লক্ষ্য ছুঁড়ে দেওয়া।’

দলের স্ট্রাইক বোলার সাকিব দ্বিতীয় দিন থেকেই চোটের কারণে মাঠের বাইরে। তৃতীয় দিন সকালে দলের সাথে আসলেও নামতে পারেননি মাঠে। সদ্য কুঁচকির চোট কাটিয়ে ফেরা এই অলরাউন্ডারের স্ক্যানের পর ধরা পড়ে উরুর নতুন চোট। অনিশ্চিত ম্যাচের বাকি অংশেও তার থাকা নিয়ে।

সাকিবের না থাকার কারণে বাঁহাতি স্পিনার হিসেবে দায়িত্বটা পড়েছিল তাইজুলের কাঁধে। দিনের শুরুতেই উইকেট তুলে নিলেও এরপর সেই রেশ আর ধরে রাখতে পারেননি। তার দ্বিতীয় শিকার প্রতিপক্ষের শেষ ব্যাটসম্যান ওয়ারিক্যান। সাকিবের অবর্তমানে দায়িত্বটা যে আরও ভালোভাবে পালন করা দরকার ছিল মানছেন নিজেই।

তাইজুল বলেন, ‘হয়ত আমার যতটা দায়িত্ব পালন করা উচিত ছিল ততটা পারিনি। তবে দ্বিতীয় সেশন আলহামদুলিল্লাহ খুব ভালো গেছে। ঐ সময়টায় কামব্যাক করতে পেরেছি।’

তবে সাকিব ছাড়াই ম্যাচ জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী ২৮ বছর বয়সী এই স্পিনার, ‘আত্মবিশ্বাসী অবশ্যই। আল্লাহর রহমতে আত্মবিশ্বাস আছে জিতব। তারপরও ক্রিকেটে কিছু বলা যায় না। আমার জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ছিল কামব্যাক করেছি। আশা করি কাল বা পরশু ভালো কিছু হবে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

আইপিএল নিলামে নাম দিয়েছেন ৫ বাংলাদেশি

Read Next

টেস্টে তাইজুলের লক্ষ্য ‘৩০০’ উইকেট

Total
3
Share