যেকারণে টেস্ট স্কোয়াডে ‘৫’ পেসার

খালেদের জিতে যাওয়া, মুস্তাফিজের টিকে থাকা ও এবাদতের একরাশ অস্বস্তি

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২ ম্যাচের টেস্ট সিরিজের জন্য ১৮ সদস্যের স্কোয়াড ঘোষণা করে বাংলাদেশ। প্রাথমিক স্কোয়াডে থাকা সৈয়দ খালেদ আহমেদ ও কাজী নুরুল হাসান সোহান ছাড়া জায়গা ধরে রেখেছেন সবাই। করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) কে মাথায় রেখেই স্কোয়াড বড় রেখেছেন নির্বাচকরা।

চট্টগ্রামে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও বিসিবি একাদশের প্রস্তুতি ম্যাচ শেষে বড় স্কোয়াড রাখার ব্যাখ্যা দিয়েছেন টাইগারদের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু।

তিনি বলেন, ‘এটা ১৮ জনের স্কোয়াড দেওয়া হয়েছে মূলত আপনারা জানেন কোভিড-১৯ মাথায় রেখে। কে কখন অসুস্থ হয় এটা মাথায় রেখেই আমরা স্কোয়াডটা বড় করেছি। তারপরেও যাদের নিয়েছি তাদেরকে আমাদের টেস্ট ক্রিকেটের কথা মাথায় রেখে যে পুল আমরা করেছি বেশিরিভাগকেই রাখা হয়েছে।’

‘যারা খেলবে না, তারা যেন একটা সিস্টেমে থাকে, টিম ম্যানেজমেন্টের সাথে কাজ করে অভ্যস্ত হইয়ে যেন আরও উন্নতি করতে পারে এবং খেলার জন্য প্রস্তুত হতে পারে। এটা মাথায় রেখেই স্কোয়াডটা বড় করা হয়েছে।’

১৮ সদস্যের স্কোয়াডে আছে পেসারদের আধিক্য। তবে বাংলাদেশে খেলা হলে সাদা পোশাকের ম্যাচে একসাথে একাধিক পেসার খেলানোর নজির খুব বেশি নেই, কখনো কখনো থাকে না পেসারই। একাদশে পেসার বা স্পিনারের সংখ্যা কত হবে তা নিয়ে আগাম বলতে পারলেন না নান্নু।

তিনি বলেন, ‘আমরা হোম সয়েলে সবসময় যেভাবে খেলি সেভাবেই খেলি। এটা এখনই বলা মুশকিল, ২৪ ঘন্টা আগে টিম ম্যানেজমেন্ট একাদশ চূড়ান্ত করবে। কয়টা স্পিনার, কয়টা সিমার নিয়ে খেলবে এটা তখনই সিদ্ধান্ত হবে। আগাম বলা মুশকিল যে কখন কাকে খেলানো হবে।

স্কোয়াডে ৫ পেসার রাখার ব্যাখ্যাও দিয়েছেন প্রধান নির্বাচক।

তিনি বলেন, ‘টিমের মধ্যে স্পিনার, পেস বোলার সবাইকেই রেডি রাখতে হয়। কারণ আমরা যখন পুল তৈরি করি তখন কিন্তু শুধু একটা টেস্ট ম্যাচ মাথায় রেখে টিম করা হয়না। এটা সামনের কথা ভেবে, বিদেশের মাটিতে খেলার বিষয় মাথায় রাখা হয়। তারপরও হোম সয়েলে স্পিনারটাই আমরা বেশি খেলি। কম্বিনেশনটা যেন ঠিক থাকে, বোলারদের স্ট্যান্ডার্ড যেন ঠিক থাকে সেভাবেই ভারসাম্য রাখা হয়।’

‘এখানে পাঁচ জন পেসার রাখা হয়েছে কারণ অনেকদিন পর আমরা টেস্ট খেলছি, যেকোন সময় যে কেউ ইনজুরিতে পড়তে পারে। পাঁচ দিনের টেস্ট শেষে আপনি বলতে পারেন না যে তাদের স্ট্যামিনা একই রকম থাকবে। সে হিসেবে তাদের ফিটনেস লেভেলের কথা চিন্তা করে আমরা পাঁচ জন পেসার রেখেছি। আশা করি সবার ফিটনেস লেভেলটা ভালো অবস্থায় আছে এবং দুটো টেস্টেই তাদের ভালো অবস্থানে পাবো।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

দল থেকে বাদ পড়ে প্রতিক্রিয়া জানালেন হাফিজ

Read Next

কর্নওয়ালে বাজি ধরছেন ব্র্যাথওয়েট

Total
1
Share