যেকারণে টেস্ট স্কোয়াডে হাসান-রাব্বিরা

শ্রীলঙ্কা সফরের আগে খুব একটা প্রস্তুত ছিলাম না- হাবিবুল বাশার

ইয়াসির আলি রাব্বির এখনো আন্তর্জাতিক অভিষেক হয়নি, তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ সহ জাতীয় দলের স্কোয়াডে আছেন বেশ কয়েকটি সিরিজে। অন্যদিকে ওয়ানডে টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হওয়া হাসান মাহমুদ দ্বিতীয় বারের মত জায়গা পেলেন টেস্ট দলের চূড়ান্ত স্কোয়াডে। সিরিজে দুজনের অভিষেক হবে কিনা তা এখনই বলা যাচ্ছে না। তবে নির্বাচক হাবিবুল বাশার জানালেন ভবিষ্যৎ বিবেচনায় আছেন বলেই দলের সাথে রেখে অভ্যস্ত করানোই মূল লক্ষ্য।

২০১৯ বিশ্বকাপের আগে আয়ারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ত্রিদেশীয় সিরিজের মূল দলে জায়গা হয়েছিল ডানহাতি ব্যাটসম্যান ইয়াসির আলি রাব্বির। গত বছর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টের জন্য ঘোষিত ১৬ সদস্যের স্কোয়াডেও ছিলেন চট্টগ্রামের এই ক্রিকেটার। তবে অভিষেক হয়নি কোন সিরিজেই। এরপর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের ২৪ সদস্যের স্কোয়ায়ডে থাকলেও জায়গা হয়নি ১৮ সদস্যের মূল স্কোয়াডে। ওয়ানডেতে মূল স্কোয়াডে না থাকলেও টেস্টের মূল স্কোয়াডে মিলেছে সুযোগ।

গত বছর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সদ্য সমাপ্ত সিরিজে ওয়ানডে অভিষেকও হয় পেসার হাসান মাহমুদের। তবে টেস্ট স্কোয়াডে রাব্বির মত হাসান মাহমদুও জায়গা পেয়েছিলেন জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে গতবছরই। এবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজেও সাদা পোশাকের স্কোয়াডে ফের জায়গা মিলল এই ডানহাতি পেসারের।

এই সিরিজেই রাব্বি-হাসানের টেস্ট অভিষেক হবে কিনা তা এখনই না বলা গেলেও নির্বাচক হাবিবুল বাশার বলছেন জাতীয় দলের পরিবেশের সাথে আগে থেকেই অভ্যস্ত করানোর উদ্দেশ্যেই স্কোয়াডে বাড়তি ক্রিকেটারের অন্তর্ভূক্তি।

আজ (৩১ জানুয়ারি) চট্টগ্রামের এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে বিসিবি একাদশ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যকার তিনদিনের প্রস্তুতি ম্যাচ চলাকালীন গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বাশার বলেন, ‘দুজনের জন্যই ভালো সুযোগ। যদি টিম ম্যানেজমেন্ট মনে করে তাদের খেলাবে তাহলে তাদের নতুন ক্যারিয়ার শুরু হবে। আর যদি একাদশে না থাকে তাহলেও তারা নিজেদের প্রস্তুত করার সুযোগ পাবে।’

‘কারণ পরবর্তীতে যখন তারা সুযোগ পাবে তখন যেন তাদের কাছে পরিবেশটা নতুন মনে না হয়। সুতরাং এসব মাথায় রেখেই , ভবিষ্যতের কথা মাথায় রেখেই স্কোয়াডটা বড় করা হয়েছে। যারা খেলার সুযোগ পাবে না তারা যেন টিমের সংস্কৃতির সাথে এডজাস্ট করে নিতে পারে।’

ইতোমধ্যে টি-টোয়েন্টি, ওয়ানডে অভিষেক হওয়া হাসান টেস্টের জন্য কেমন হতে পারেন এমন প্রশ্নে এই নির্বাচক জানান হাসানের মত প্রতিভাবানের কাছ থেকে বাংলাদেশ ক্রিকেট সব ফরম্যাতেই দারুণ সেবা পাবে।

তিনি বলেন, ‘খুব বেশি ফার্স্ট ক্লাস ম্যাচ কিন্তু এই (হাসান মাহমুদ) ছেলেটা খেলেনি কিন্তু পরিণত হয়েছে অল্প সময়ের মধ্যে। আমাদের জন্য খুব ভালো একটা প্রতিভা। আমরা মনে করি হাসান মাহমুদের কাছে আমরা অনেক ভালো কিছু আশা করতে পারি।’

‘বিশেষ করে আমরা যখন দেশের বাইরে খেলতে যাই এ ধরণের পেসার কিন্তু আমাদের খুব দরকার যাদের বলে বাড়তি পেস থাকে। তার খুব ভালো একটা ফিউচার আছে। আমি মনে করি বাংলাদেশ ক্রিকেট তার কাছ থেকে সাদা ও লাল বল দুই দিক থেকেই ভালো সার্ভিস পাবে।’

চট্টগ্রাম থেকে, ক্রিকেট৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

রাজ্জাকের জন্য নান্নুর শুভকামনা

Read Next

হাফিজ-ইমাদ ছাড়া পাকিস্তানের টি-টোয়েন্টি দলে নতুন মুখ জাহিদ

Total
4
Share