বাংলাদেশে ভালো করার পথ বাতলে দিলেন রোচ

বাংলাদেশে ভালো করার পথ বাতলে দিলেন রোচ

বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ টেস্ট সিরিজ শুরুর আগে ক্যারিবিয়ানদের পেস আক্রমণের ভালো করার উপর নির্ভর করবে অনেক কিছুই। বিশেষ করে স্পিন নির্ভর উইকেটে ওয়েস্ট ইন্ডিজের অভিজ্ঞ পেস আক্রমণ টাইগারদের কতটা পরীক্ষা নিতে পারবে সেটাই দেখার বিষয়। তবে অভিজ্ঞ কেমার রোচ বাতলে দিয়েছেন এমন বিরুদ্ধে কন্ডিশনে সফল হবার উপায়।

৩ ফেব্রুয়ারি থেকে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে শুরু হবে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথমটি। সিরিজ সামনে রেখে সাগর পাড়ের মাঠটিতে অনুশীলন করছে ক্যারিনিয়ানরা।

আজ ( ২৬ জানুয়ারি) অনুশীলন শেষে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে কেমার রোচ বাংলাদেশের কন্ডিশনে সফল হওয়া প্রসঙ্গে বলেন, ‘পেসারদের এখানে কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। গতি কিংবা সিম মুভমেন্টের জন্য সহায়ক হবে না পিচ। ঠিক জায়গায় ধারাবাহিকভাবে বল করে যেতে হবে। ব্যাটসম্যানকে সামনের পায়ে চ্যালেঞ্জ জানাতে হবে।’

‘বাংলাদেশে সাফল্য পাওয়ার এটাই সবচেয়ে ভালো পথ। নিজেকে উজাড় করে দিয়ে বোলিং করতে হবে। বাংলাদেশের মিডল অর্ডারকে ভোগাতে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব রিভার্স সুইং করানোর চেষ্টা করতে হবে।’

সিরিজে দুই দলের পার্থক্য গড়ে দিবে বোলাররা, এমনটাই মত কেমার রোচের। তাই নিজে সহ শ্যানন গ্যাব্রিয়েল, আলঝারি জোসেফদের দায়িত্ব পাওয়ার ব্যাপারে দিলেন বার্তা।

বাংলাদেশের বিপক্ষে ৮ টেস্টে ৩৩ উইকেট শিকারি এই পেসার বলেন, ‘আমার মনে হয় আমাদের বোলারদেরকেই যা করার করতে হবে। উইকেট স্পিনারদের সাহায্য করবে, কিন্তু পেসারদেরও সাহায্য করতে হবে। আমি নিশ্চিত আমি, শ্যানন (গ্যাব্রিয়েল) এবং আলজারি (জোসেফ) মুখিয়ে আছি চ্যালেঞ্জটির জন্য। আমরা সব সময়ই পারফর্ম করার চাপে থাকি, তাই এটি নতুন কিছু নয়। এখন শুধু নিজেদের ওপর বিশ্বাস রেখে পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে হবে।’

‘আমি সত্যিই মুখিয়ে আছি। আমাদের পরিকল্পনা করাই আছে। বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের আমরা চিনি। কয়েক বছর ধরে ওদের দলটা প্রায় একই আছে। ওদের মূল ব্যাটসম্যানরাই কাজটা করে। ওদের খুব ভালো করে জানি আমরা। টিম মিটিংয়ে আমরা যে পরিকল্পনা ঠিক করব সেটার বাস্তবায়ন গুরুত্বপূর্ণ।’

এদিকে সফরকারী ব্যাটসম্যানরা টাইগার স্পিনারদের সামলানোর ব্যাপারে কাজ করেছেন। ওয়ানডে সিরিজে তাদের ব্যাটসম্যানরা বাজে পারফরম্যান্স করলেও টেস্টে ভালো করবে বলে আশাবাদী রোচ।

তিনি যোগ করেন, ‘ব্যাটসম্যানরা স্পিন সামলানো নিয়ে অনেক কাজ করছে। কীভাবে এই ক্ষেত্রে উন্নতি করা যায় এ নিয়ে প্রশ্ন করছে, পরামর্শ শুনছে। যা দেখছি, তাতে আমি খুব খুশি। আমি নিশ্চিত, ওরা ভালো করবে। স্পিন ভালো খেলার জন্য ওরা অবশ্যই বাড়তি পরিশ্রম করছে। পায়ের ব্যবহার ও সুইপ নিয়ে প্রচুর কাজ করছে। এখানে আসার পর থেকে যেভাবে কাজ করছে তাতে আমি উন্নতির ছাপ দেখেছি।’

চট্টগ্রাম থেকে, ক্রিকেট৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

রাশিদ জাদুতে আইরিশদের হোয়াইটওয়াশ করল আফগানরা

Read Next

করোনামুক্ত হয়েই বাংলাদেশ ছাড়লেন হেইডেন ওয়ালশ জুনিয়র

Total
3
Share